মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর, ২০২১ ০০:০০ টা
অষ্টম কলাম

২২ দিনের নিষেধাজ্ঞা শেষে ফের মাছ ধরতে সাগরে জেলেরা

শফিকুল ইসলাম খোকন, পাথরঘাটা

দীর্ঘ ২২ দিন অলস সময় কাটিয়ে বুকভরা আশা নিয়ে আবারও সাগরে গেলেন বরগুনার উপকূলীয় উপজেলা পাথরঘাটার জেলেরা। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে সূর্যোদয়ের আগেই বরফ নিয়ে সাগরের উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরুর সব প্রস্তুতি নিয়েছেন তারা। সে হিসেবে আজকের সূর্যোদয়ের আগেই বেশির ভাগ জেলের পাথরঘাটা ছাড়ার কথা। দীর্ঘদিন বঙ্গোপসাগর থেকে মাছ আহরণ বন্ধ থাকায় এবার বেশি মাছ পাবেন বলে তারা আশাবাদী। মৌসুমে ইলিশের প্রজনন নির্বিঘ্ন করতে ৪ থেকে ২৫ অক্টোবর পর্যন্ত মাছ শিকারে নিষেধাজ্ঞা জারি করে সরকার। গত বছর এ নিষেধাজ্ঞা ছিল ১৪ অক্টোবর থেকে ৪ নভেম্বর পর্যন্ত। জেলেরা জানান,  ট্রলার ধোয়ামোছা ও জাল মেরামত শেষে ট্রলারে উঠানো, ধর্মীয় আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করেছেন। বরফ পাওয়ার পর পরই সাগরের উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করবেন। এতে শুধু জেলে ও শ্রমিকদের মুখেই হাসি ফোটেনি, পাশাপাশি আড়তদার, পাইকার ও ট্রলার মালিকদেরও মুখে হাসির ঝিলিক দেখা গেছে। তাছাড়া স্থানীয় মুদি ও মনোহারি দোকানদারদের মধ্যে আনন্দ বিরাজ করছে। জেলেরা বলছেন, সাগরে মাছ আহরণ নিষেধাজ্ঞার কারণে তারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। যে কারণে ২২ দিন ধরে তারা আর্থিক অভাব-অনটনের মধ্যদিয়ে দিনাতিপাত করেছেন। আবার অনেকে ঋণগ্রস্তও হয়ে পড়েছেন। গতকাল দুপুরে রুহিতা হাজিরখাল এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, আ. করিম, আ. রহমান, মোশারেফসহ একাধিক জেলেরা তাদের ট্রলার মেরামত শেষে জাল উঠানো কাজে ব্যস্ত। তারা বলছেন, ২২ দিন অলস সময় কাটিয়েছি। এখন অনেক আশা নিয়ে সাগরে যামু। জিনতলা গ্রামের জেলে বাবুল মিয়া ও ইসমাইল বলেন, ‘এহন সাগরে যাওয়ার পালা। আমাদের বাজার-সদায় করা শেষ। আর রাইতে বরফ নিমু ট্রলারে। মঙ্গলবার সকাল সকাল বরফ লইয়া সাগরে রওনা দিমু।’ বরগুনা জেলা মৎস্যজীবী ট্রলার মালিক সমিতির সভাপতি গোলাম মোস্তফা চৌধুরী বলেন, নিষেধাজ্ঞা শেষে জেলেদের সাগরে পাঠানোর সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছি। ভোররাত থেকেই সারিবদ্ধভাবে সাগরে যাত্রা শুরু হবে।

সর্বশেষ খবর