শুক্রবার, ১৯ নভেম্বর, ২০২১ ০০:০০ টা
অষ্টম কলাম

জাকারবার্গসহ পাঁচজনকে লিগ্যাল নোটিস

নিজস্ব প্রতিবেদক

আন্তর্জাতিক নীতিমালা অনুযায়ী ফেসবুক পরিচালনার জন্য এর প্রধান নির্বাহী মার্ক জাকারবার্গসহ পাঁচজনকে আইনি নোটিস দেওয়া হয়েছে। রেজিস্ট্রি ডাকযোগে গতকাল সাংবাদিক সেলিম সামাদসহ চার ব্যক্তি এ নোটিস পাঠান বলে নিশ্চিত করেন নোটিসকারীদের আইনজীবী তাপসকান্তি বল। জাকারবার্গ ছাড়া আরও যাদের নোটিসটি পাঠানো হয়েছে তারা হলেন- বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন রেগুলেটরি কমিশনের (বিটিআরসি) চেয়ারম্যান, তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সচিব, স্বরাষ্ট্র (জননিরাপত্তা) সচিব ও ডিজিটাল নিরাপত্তা সংস্থার মহাপরিচালক।

নোটিসে ফেসবুকের অপব্যবহার রোধে আন্তর্জাতিক নীতিমালা অনুযায়ী পরিচালনা করতে ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে। আগামী তিন দিনের মধ্যে ব্যবস্থা গ্রহণ না করলে পরবর্তী আইনগত পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে জানানো হয়েছে। নোটিসে বলা হয়- ১৩ অক্টোবর হিন্দুদের মন্দিরে কোরআন শরিফ রাখা হয়েছে ফেসবুক পোস্টে দাবি করা হয়। সেটি ছড়িয়ে পড়ায় সারা দেশের ২৭ জেলায় সাম্প্রদায়িক সহিংসতা হয়। এর আগেও রামু, নাছিরনগর, শাল্লা, বোরহানউদ্দিন, পাটগ্রাম, দেবহাটায় ফেসবুকের এমন ব্যবহারের ঘটনা ঘটে। ফেসবুকে এ ধরনের ঘৃণিত পোস্ট বন্ধে বা নিয়ন্ত্রণে বিবাদীরা সম্পূর্ণরূপে ব্যর্থ হয়েছেন। সম্প্রতি বাংলাদেশেও ফেসবুক অফিস খুলেছে। এ কারণে বাংলাদেশের সংবিধান ও বিদ্যমান আইন তাদের মানতে হবে বলে নোটিসে উল্লেখ করা হয়।

 এতে বলা হয়- ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন অনুযায়ী ভুয়া, অসত্য তথ্য ছড়ানো বন্ধ করা ১ থেকে ৪ নম্বর বিবাদীর দায়িত্ব। কিন্তু এ দায়িত্ব পালনে আপনারা ব্যর্থ হয়েছেন। আরও বলা হয়েছে- চলতি বছরের দুর্গাপূজার সময় বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলায় অসত্য তথ্য ছড়িয়ে দেশের জনগণের জানমালের যে ক্ষতি হয়েছে সে সময় ফেসবুক কর্তৃপক্ষ জাতিসংঘের গাইডলাইন, আন্তর্জাতিক আইন ও দেশি আইন পালনে ব্যর্থ হয়েছেন। নীতিমালা অনুযায়ী ফেসবুকে এসব অসত্য তথ্য প্রচার বন্ধে বিবাদীরা ব্যর্থ হয়েছেন। নোটিসকারীদের পক্ষে আইনজীবী জানান, ফেসবুকে এ ধরনের অপব্যবহার বন্ধে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করতে এবং দেশে ফেসবুকের কার্যক্রম নিয়ন্ত্রণে এ আইনি নোটিস দেওয়া হয়েছে। তিন দিনের মধ্যে ব্যবস্থা গ্রহণ না করলে বিবাদীদের বিরুদ্ধে আইনগত পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

সর্বশেষ খবর