Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ২৫ আগস্ট, ২০১৯ ০৪:৫৪

গবেষণার ফলাফল

অতিরিক্ত সেলফি পোস্ট আত্মকেন্দ্রিক ও একাকিত্বের লক্ষণ

অনলাইন ডেস্ক

অতিরিক্ত সেলফি পোস্ট আত্মকেন্দ্রিক ও একাকিত্বের লক্ষণ

স্মার্টফোন আছে, কিন্তু কোনো দিন সেলফি তোলেননি- এমন লোক খুঁজে পাওয়া দুস্কর। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম খুললেই দেখা যায়, কেউ না কেউ সেলফি তুলে পোস্ট করেছেন। এছাড়া পথে ঘাটে, মাঠে, শপিংমলে, ড্রয়িংরুমে, বিয়েবাড়ি, পিকনিকসহ নানা অনুষ্ঠানে সেলফি তোলা এখন নিত্যনৈমিত্তিক ব্যাপার। কিন্তু অতিরিক্ত সেলফি পোস্ট করার অভ্যাসকে মোটেও ভাল চোখে দেখছেন না ওয়াশিংটন স্টেট বিশ্ববিদ্যালয়ের মনোবিদরা। 

সাম্প্রতিক সমীক্ষা অনুযায়ী, কোনো ব্যক্তি সোশ্যাল মিডিয়ায় অতিরিক্ত সেলফি পোস্ট করলে তাকে কম আকর্ষণীয় মনে করতে পারেন অন্যরা। সেলফি ভরা সোশ্যাল মিডিয়া গ্যালারি দেখে সেই ব্যক্তি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন বলেও ধরে নেয় মানুষ।

সেলফি আর অন্য কারও তুলে দেওয়া ছবি, এই দুই ধরনের পোস্ট আছে এমন ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট নিয়ে সমীক্ষা করা হয়। তাতেই উঠে আসে এমন তথ্য। দুটি পর্যায়ে সমীক্ষাটি করা হয়। প্রথমে ৩০ জন ছাত্র-ছাত্রীর ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট নির্বাচন করেন মনোবিদরা। তারপর সেই অ্যাকাউন্টগুলির স্ক্রিনশট নেওয়া হয়। এরপর সেই স্ক্রিনশট দেখানো হয় ১১৯ জন ছাত্রছাত্রীকে। ৩০টি অ্যাকাউন্টের ছবি দেখিয়ে আত্মসম্মান, সাফল্য, একাকিত্ব ইত্যাদি বিষয়ে আন্দাজ করে নম্বর দিতে বলা হয় ওই ১১৯ জন ছাত্রছাত্রীদের। 

সমীক্ষার শেষে দেখা যায়, প্রচুর সেলফি আছে, এমন অ্যাকাউন্টগুলির বিষয়ে নেতিবাচক মনোভাব প্রকাশ করেছেন বেশিরভাগ ছাত্রছাত্রীরা। অতিরিক্ত সেলফি আত্মকেন্দ্রিকতা, আত্মবিশ্বাসের অভাব ও একাকিত্বের লক্ষণ বলে মত প্রকাশ করেছেন অনেকেই। 

ওয়াশিংটন স্টেট বিশ্ববিদ্যালয়ের মনোবিদ ক্রিস বেরির মতে, সেলফির তুলনায় পোজ দিয়ে তোলা ছবিকেই বেশি পছন্দ করে সমাজ। বিষয়টি ব্যাখ্যা করে তিনি বলেন, "৩০টির মধ্যে দুটি প্রোফাইল প্রায় একইরকম ছিল। দুটি প্রোফাইলেই ব্যবহারকারী তার বেড়াতে যাওয়ার, সাফল্যের ছবি দিয়েছেন। এক জনের ছবি সেলফিতে, অপরজনের ছবিগুলি পোজ দেওয়া। দ্বিতীয় ব্যক্তিকেই পছন্দ করেছেন সবাই।" 

বেরি জানান, সেলফি দেওয়া ব্যক্তিকে আত্মকেন্দ্রিক ও নেতিবাচক বলে মনে করেছেন সকলেই। তিনি বলেন, "এর থেকে প্রমাণ হয়, কোনো ব্যক্তির সোশ্যাল মিডিয়া প্রোফাইল দেখেই তার মানসিকতার আন্দাজ করে সমাজ।" 

বিডি প্রতিদিন/এনায়েত করিম


আপনার মন্তব্য