শিরোনাম
প্রকাশ : ১৯ জুলাই, ২০২১ ১২:৫৩
আপডেট : ২৪ জুলাই, ২০২১ ১৬:৫৭
প্রিন্ট করুন printer

কোরবানির পশুর বর্জ্য পরিষ্কারে ক্লেমনের উদ্যোগ ‘ইচ্ছের হাত বাড়াই’ ক্যাম্পেইন

অনলাইন ডেস্ক

কোরবানির পশুর বর্জ্য পরিষ্কারে ক্লেমনের উদ্যোগ ‘ইচ্ছের হাত বাড়াই’ ক্যাম্পেইন
Google News

প্রতি বছর কোরবানির ঈদের পর স্বাভাবিকভাবেই সারাদেশে উৎপন্ন হয় প্রচুর পরিমাণে উচ্ছিষ্ট ও আবর্জনা। এই বিপুল পরিমাণ ময়লা-আবর্জনা পরিষ্কার করতে গিয়ে হিমশিম খেতে হয় পরিচ্ছন্নতাকর্মীদের। তাই তাদের পরিশ্রমের কথা চিন্তা করে, তাদের কষ্ট কিছুটা লাঘব করতেই প্রতিবারের মতো এবারও ক্লেমন নিয়ে এসেছে ‘ইচ্ছের হাত বাড়াই’ ক্যাম্পেইন।

চিন্তার ফ্রেশনেসের ধারাবাহিক যাত্রায় ক্লেমন-এর অন্যান্য অনেক উদ্যোগের মধ্যে ‘ইচ্ছের হাত বাড়াই’ ক্যাম্পেইনটি অন্যতম। এই ক্যাম্পেইনের মাধ্যমে কোরবানির পশুর বর্জ্য যেখানে-সেখানে না ফেলে সঠিক জায়গায় ফেলার মাধ্যমে, পরিচ্ছন্নকর্মীদের কাজে সহায়তা করার জন্য সবাইকে উদ্বুদ্ধ করে চলেছে সিটি করপোরেশন ও জনপ্রিয় ব্র্যান্ড ক্লেমন। 

বর্জ্য ব্যবস্থাপনার বিষয়ে জনসচেতনতা তৈরির লক্ষ্যে ক্লেমন এরই মধ্যে বিভিন্ন মাধ্যমে প্রচারণা চালিয়ে আসছে। এছাড়া কোরবানির পশু থেকে উৎপন্ন বর্জ্য অপসারণ করার জন্য বিভিন্ন এলাকায় ভ্যানের মাধ্যমে প্রচারণা এবং আবর্জনা ফেলার জন্য শহরে বাসিন্দাদের ৫০ হাজার পলিব্যাগ দিয়েছে ক্লেমন। 

এদিকে, মহামারির এই সময়ে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকাটা অত্যন্ত জরুরি হয়ে পড়েছে। তাই করোনা দুর্যোগের এই সময়ে ‘ইচ্ছের হাত বাড়াই’ ক্যাম্পেইনটিকে বিশেষভাবে গুরুত্ব দিয়ে জনসাধারণকে সম্পৃক্ত থাকার আহ্বান জানাচ্ছে ক্লেমন।

এছাড়াও কোরবানি ঈদ শেষে আমাদের শহরগুলো পরিষ্কার রাখতে করণীয় বিষয়গুলো নিয়ে দুই পর্বের ধারাবাহিক অনুষ্ঠানে শেহনীলা’র উপস্থাপনায় রেডিও স্বাধীন-এ লাইভ এসেছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম, জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক খালেদ মাসুদ পাইলট, জনপ্রিয় অভিনেতা ইরেশ যাকের, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা কমোডর এম সাইদুর রহমান, গারবেজম্যান-এর ফাউন্ডার ও সিইও ফাহিম উদ্দিন শুভ এবং আকিজ ফুড অ্যান্ড বেভারেজ লিমিটেড-এর হেড অব মার্কেটিং মাইদুল ইসলাম। 

অনুষ্ঠানে আকিজ ফুড অ্যান্ড বেভারেজ লিমিটেডের হেড অব মার্কেটিং মাইদুল ইসলাম বলেন, আমাদের চারপাশে যেসব পরিচ্ছন্নতাকর্মীরা শহরটাকে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে কাজ করে চলেছেন, নিজেদের বিবেক সক্রিয় করার মাধ্যমে আমরা তাদের কাজের উদ্যমকে মূল্যায়ন করতে পারি। আর সেজন্য প্রয়োজন আমাদের সচেতনতা।

অনুষ্ঠানের বক্তাগণ তাদের নিজ নিজ বক্তব্যে করোনা প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার উপর বিশেষ গুরুত্বারোপ করেন এবং যথেষ্ট সচেতনতা ও সাবধানতা অবলম্বনের মাধ্যমে ঈদ উৎসব পালনের অনুরোধ করেন। পাশাপাশি, সবার অংশগ্রহণের মাধ্যমে ক্লেমনের ‘ইচ্ছের হাত বাড়াই’ ক্যাম্পেইনের সার্বিক সাফল্য কামনা করেন।

বিডি-প্রতিদিন/শফিক/পাভেল