শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২৬ এপ্রিল, ২০১৮ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৬ এপ্রিল, ২০১৮ ০২:১৮

সিদ্ধেশ্বরীর শিক্ষকদের মারধরের অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক

Google News

রাজধানীর সিদ্ধেশ্বরী বালক উচ্চমাধ্যমিক স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষকদের মারধরের অভিযোগ করেছেন শিক্ষকরা। তাদের অভিযোগ, মারধরের ঘটনায় যুবলীগ কর্মীরা জড়িত। এ ঘটনায় সোমবার রমনা থানায় তিনজনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত সাত-আট জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন অধ্যক্ষ শেখ ফরিদুজ্জামান। গতকাল বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনে (ক্র্যাব) এক সংবাদ সম্মেলনে এসব অভিযোগ করেন স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষক-শিক্ষিকা, কর্মচারী ও অভিভাবকরা। তারা সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ীদের কবল থেকে বিদ্যালয়টি উদ্ধার ও শিক্ষক-অভিভাবকদের নিরাপত্তার জন্য প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ম্যানেজিং কমিটির চেয়ারম্যান মুন্সি কামরুজ্জামান কাজল।

লিখিত বক্তব্যে অধ্যক্ষ শেখ ফরিদুজ্জামান বলেন, দীর্ঘদিন ধরে স্থানীয় সন্ত্রাসী, মাদক ব্যবসায়ী ও ইয়াবাসম্রাট গোলাম মোস্তফা শিমুল, দেওয়ান আলীম উদ্দিন শিশির, মাসুদ রানাসহ তার সহযোগীরা সিদ্ধেশ্বরী বালক উচ্চমাধ্যমিক স্কুল অ্যান্ড কলেজকে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের আখড়ায় পরিণত করে রেখেছে। তারা শিক্ষকদের অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে বিদ্যালয়ের মাঠ ও ক্লাসরুমগুলো টর্চার সেল হিসেবে ব্যবহার করছে। তাদের বিরুদ্ধে শিক্ষকরা কোনো কথা বলতে পারেন না। ২২ এপ্রিল দুপুরে শিমুলসহ তার সন্ত্রাসী বাহিনী বিদ্যালয়ে আসে। তারা অফিসরুমে প্রবেশ করে কোনো কথা না বলে বিদ্যালয়ের শিক্ষক আমিনুল ইসলাম, মোশাররফ হোসেন ও রুহুল আমিনকে বেধড়ক মারধর করে। চোখের সামনে অস্ত্র ঠেকিয়ে আমার শিক্ষকদের বেধড়ক পেটালেও আমি কিছুই করতে পারিনি। প্রতিনিয়ত আমার শিক্ষকরা ভয় নিয়ে বিদ্যালয়ে আসেন।

ম্যানেজিং কমিটির চেয়ারম্যান মুন্সি কামরুজ্জামান কাজল বলেন, এ ঘটনায় প্রতিবাদ করলে সন্ত্রাসীরা তাকে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। মাসুদ, শিমুল ও শিশির আগে ছাত্রদল করত। পরে যুবলীগে যোগ দেয়। মাসুদ ১৯ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের বহিষ্কৃত সাধারণ সম্পাদক। তারা একাধিক অস্ত্র মামলার আসামি।