শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ৭ জুন, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ৬ জুন, ২০২১ ২৩:১৪

‘প্রতিবন্ধীদের জন্য বাজেট অপ্রতুল’

নিজস্ব প্রতিবেদক

Google News

প্রস্তাবিত বাজেটে প্রতিবন্ধীদের জন্য যে বরাদ্দ রাখা হয়েছে তা চাহিদার তুলনায় খুবই অপ্রতুল। এ বরাদ্দ বাড়ানো খুবই জরুরি বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা। গতকাল ‘প্রস্তাবিত বাজেট ২০২১-২২ : প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের অবস্থান’ শীর্ষক ভার্চুয়াল বাজেট প্রতিক্রিয়া সভায় এ তথ্য জানানো হয়। অনুষ্ঠানটি যৌথভাবে আয়োজন করে অ্যাকসেস বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন ও ডিজএবিলিটি অ্যালায়েন্স অন এসডিজিএস বাংলাদেশ।

এতে আরও অংশ নেয় গণতান্ত্রিক বাজেট আন্দোলন, মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন, ডিজএবিলিটি রাইটস ফান্ড, এনজিডিও, ভিপস, এসডিএসএল, পিসিপিএফ, ডিসিএফ, এনসিডিডাব্লিউ, সীতাকুন্ড ফেডারেশন, টার্নিং পয়েন্ট ও ডব্লিউডিডিএফ। সভায় ডিজএবিলিটি অ্যালায়েন্স অন এসডিজিএস বাংলাদেশের পক্ষে খন্দকার জহুরুল আলম স্বাগত বক্তব্য দেন।

অ্যাকসেস বাংলাদেশ ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক আলবার্ট মোল্লা ২০২১-২২ অর্থবছরের বাজেটে অসচ্ছল প্রতিবন্ধী ব্যক্তি ভাতাভোগীর সংখ্যা ২ লাখ ৮ হাজার বৃদ্ধি এবং এর জন্য ২০০ কোটি টাকা বাজেট বরাদ্দ দেওয়ায় অর্থমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান। তিনি বলেন, প্রতিবন্ধিতা খাতে (ব্যক্তি এবং প্রাতিষ্ঠানিক) মোট বরাদ্দ সামাজিক নিরাপত্তা খাতের ২.০৭% যা মোট বাজেটের ০.৩৭%। এ বরাদ্দ প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের চাহিদার তুলনায় খুবই অপ্রতুল।

করোনায় কর্মহীন হয়ে পড়া প্রতিবন্ধী ব্যক্তির কর্মসংস্থানে বাজেটে স্পষ্ট করে কিছু বলা হয়নি, মাসিক ৭৫০ টাকা ভাতা প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের জন্য খুবই কম। প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের বাজেট বরাদ্দের ক্ষেত্রে কভিড-১৯ এর কোনো প্রতিফলন এ বাজেটে পরিলক্ষিত হয়নি। দেশে অধিকাংশ প্রতিবন্ধী শিশু স্কুলে ভর্তি হওয়া থেকে বঞ্চিত হলেও গত বছরের মতো এ বছরও উপকারভোগীর সংখ্যা ও বাজেট আগের মতো রাখা হয়েছে। এ বছরের বাজেট একটি গতানুগতিক বাজেট। প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের বিষয়ে নতুন কোনো প্রকল্প গৃহীত হয়নি, প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের বাজেট বরাদ্দ সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় কেন্দ্রিক, অথচ অন্তর্ভুক্তিমূলক উন্নয়ন ধারণায় মন্ত্রণালয় ভিত্তিক বাজেট বরাদ্দ প্রয়োজন ছিল। প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের জাতীয় কর্মপরিকল্পনা বাস্তবায়নের পদক্ষেপ বাজেটে প্রতিফলিত হয়নি। প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের অধিকারবিষয়ক জাতিসংঘ সনদ ও প্রতিবন্ধী ব্যক্তির অধিকার ও সুরক্ষা আইন ২০১৩-এর মতো শক্তিশালী আইনি কাঠামো থাকলেও উন্নয়ন পরিকল্পনায় প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের ক্ষমতায়ন ও অধিকার বিষয়টির সুনির্দিষ্ট রূপরেখা তৈরি হয়নি।