শিরোনাম
শনিবার, ২৫ নভেম্বর, ২০২৩ ০০:০০ টা

কলেজছাত্রকে ইয়াবা দিয়ে ফাঁসানোর চেষ্টায় পুলিশ কর্মকর্তা প্রত্যাহার

নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল

বরিশালে এক কলেজছাত্রকে আটক করে তিন পিস ইয়াবা দিয়ে চালান দেওয়ার অভিযোগে মেট্রোপলিটন পুলিশের কাউনিয়া থানার উপপরিদর্শক রেদওয়ান হোসেন রিয়াদকে পুলিশ লাইনে প্রত্যাহার করা হয়েছে। এ ঘটনায় কলেজছাত্র আবদুল্লাহ বিন লাদেনের বাবা মোসলেম জমাদ্দার গত বৃহস্পতিবার পুলিশ কমিশনার বরাবর লিখিত অভিযোগ দিলে ওই দিনই তাকে থানা থেকে পুলিশ লাইনে প্রত্যাহার করা হয়। আবদুল্লাহ নগরীর আলেকান্দা সরকারি কলেজের এইচএসসি প্রথম বর্ষের ছাত্র।

জমিসংক্রান্ত এক মামলায় আদালতে হাজিরা দিতে ২১ নভেম্বর সকালে লঞ্চযোগে মেহেন্দীগঞ্জের শ্রীপুর থেকে বরিশাল নদীবন্দরে পৌঁছান মোসলেম জমাদ্দার ও তার ছেলে আবদুল্লাহ। কোতোয়ালি মডেল থানার নদীবন্দর থেকে বের হওয়ার সময় আইনের লোক পরিচয়ে এসআই রেদওয়ান হোসেন রিয়াদ বাবা ও ছেলেকে তল্লাশি করেন। মোসলেমের অভিযোগ, মাদক উদ্ধারের নামে দিনভর তাদের সঙ্গে নিয়ে নগরের বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে ১ লাখ টাকা দাবি করেন রিয়াদ। ওই টাকা নিতে তিনি বিকাশ নম্বর দেন এবং আমাকে ছেড়ে দিয়ে ছেলেকে কাউনিয়া থানায় আটকে রাখেন। ৩ পিস ইয়াবা উদ্ধারের কাহিনি জুড়ে দিয়ে কাউনিয়া থানায় আটক আবদুল্লাহকে কোতোয়ালি থানায় হস্তান্তর করেন এবং তিনি বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেন। দায়েরকৃত মামলায় আদালত আবদুল্লাহকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। গত বৃহস্পতিবার আদালতে তার জামিন মঞ্জুর হয়। ওই দিন মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার বরাবর এ-সংক্রান্ত একটি লিখিত অভিযোগ দেন মোসলেম জমাদ্দার।

অভিযোগ দেওয়ার পরপরই রিয়াদকে কাউনিয়া থানা থেকে পুলিশ লাইনে প্রত্যাহার করা হয়। এ বিষয়ে মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মো. সাইফুল ইসলাম বলেন, পুরো ঘটনাটি উপ-পুলিশ কমিশনার (উত্তর)-কে  খতিয়ে দেখতে বলা হয়েছে। প্রাথমিক তদন্তে পুলিশের ওই উপপরিদর্শক (রিয়াদ) নিজ থানা এলাকার বাইরে গিয়েছিলেন, সে বিষয়টি উঠে এসেছে। তাই তাকে ক্লোজড করে পুলিশ লাইনসে সংযুক্ত করা হয়েছে।

সর্বশেষ খবর