প্রকাশ : ১৬ এপ্রিল, ২০১৯ ১৩:৫৮
আপডেট : ১৬ এপ্রিল, ২০১৯ ১৫:১৬

লন্ডনে ভৈরববাসীর মিলন মেলা

নিজস্ব প্রতিবেদক, যুক্তরাজ্য

লন্ডনে ভৈরববাসীর মিলন মেলা

৫৬ হাজার বর্গমাইলের পরিধি পেরিয়ে বাঙালিরা আজ বিশ্বের আনাচে কানাচে এমনকি প্রতিটি দেশে অবস্থান করছে। জীবিকার সন্ধানে কিংবা উন্নত জীবনের আশায় তাদের এই পাড়ি দেওয়া। ভিন্ন ভিন্ন সংস্কৃতির ভিন্ন ভিন্ন দেশে তাদের অবস্থান হলেও বাঙালি কিন্তু কখনও তার নিজস্ব কৃষ্টি-সংস্কৃতি ভুলে যায় না। সব সময় একে অপরের সাথে সুখে দুঃখে মিলে মিশে থাকে। মিলিত হয় মিলন মেলায়। 

এমনই এক সন্ধ্যায় বাংলাদেশের ভৈরবের লন্ডন প্রবাসী অধিবাসীরা মিলিত হয়েছিল রেডব্রিজ টাউন হলে। সপ্তাহের শেষ দিন রবিবারে অনুষ্ঠিত ভৈরব মিলন মেলার জাঁকজমকপূর্ণ এই অনুষ্ঠানে প্রথমে কোরআন তেলওয়াত করেন ফাহিম আহমেদ।  

স্কুলে পড়ুয়া অর্ধশতাধিক কোমলমতি বাচ্চাদের সমস্বরে জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশনের পর শুরু হয় মূল অনুষ্ঠান। কামরুজ্জামান সাফির স্বাগত বক্তব্যে উঠে আসে ভৈরববাসীর মিলন মেলার উদ্দেশ্য। 

ভৈরব বাংলাদেশের কিশোরগঞ্জ জেলায় অবস্থিত একটি নদী বন্দর ও বাণিজ্যিক শহর। তবে ব্যবসায়িক কোনো উদ্দেশ্যে এই মিলন মেলা নয়। সবার সাথে মিলে থাকা ও লন্ডনে বসবাস করা ছেলে-মেয়েদের পড়াশনায় আরো উৎসাহিত করাই এর মূল লক্ষ্য। দেশটির কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যায়নরত এরকম ৬৯ জন মেধাবী শিক্ষার্থীদের ক্রেস্ট দিয়ে সম্মননা জানানো হয়। 

সেই সাথে আরো ৫০ জন ভৈরব প্রবাসী মুরব্বিকেও এই মিলন মেলার পক্ষ থেকে ক্রেস্ট উপহার দিয়ে কৃতজ্ঞতা জনানো হয়। রাখা হয় বাচ্ছাদের জন্য চিত্রাংঙ্কন প্রতিযোগিতা। ৩ থেকে ১৪ বছর বয়সী শিশু শিশোরদের চারটি গ্রুপে ভাগ করে শুরু হয় এই প্রতিযোগিতায়।

প্রতিটি গ্রুপে একজন গ্রুপ লিডারের অধীনে এই প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। ৯০ জন শিশু-কিশোরের মধ্যে থেকে ৪টি গ্রুপে ৩ জন করে মোট ১২ জনকে বিজয়ী ঘোষণা করা হয়। তবে অংশগ্রহণকারী সবাইকেই শান্ত্বনা পুরস্কার দেওয়া হয়। 

অনুষ্ঠানের শেষ পর্বে আয়োজন করা হয় এক মজার প্রতিযোগিতা। কুইজের মাধ্যমে বাছায় করা ১০ জন প্রতিযোগীকে নিয়ে মজার খেলার শেষ ধাপে ৩জনকে পুরস্কৃত করা হয়। অনুষ্ঠানটির ভিন্ন ভিন্ন ধাপে সঞ্চালনার দায়িত্বে ছিলেন কবির আহমেদ, নাজির আজহার, আল আমিন, রনি, সাদিয়া ইসলাম, মেহেদী হাসান ও ইসতিয়াক চৌধুরী মান্না। 

অনুষ্ঠানে প্রধান অথিতি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন লন্ডন মেট্রোপলিটন পুলিশের কর্মকর্তা আব্দুল মোমেন ভূঁইয়া। 

অনুষ্ঠানটিকে সাফল্য মণ্ডিত করতে সহযোগিতা করেছেন আনিসুজ্জামান ছোট, আল আমিন সরকার, তারেক আহমেদ, নাদিবুর রহমান, আরমান, জালাল উদ্দিন, শাহ হোসেন, কামরুল, কাজী মানিক, আঙ্গুর মিয়া, তুহিন চৌধুরী, মোবারক হোসেন, রিপন, মাহিন মিয়া, মো. মনিরুজ্জামান ও আতাউর রহমান খোকন সহ আরো অনেকে। 


বিডি-প্রতিদিন/বাজিত হোসেন 


আপনার মন্তব্য