শিরোনাম
প্রকাশ : ৮ এপ্রিল, ২০২০ ১৮:৫৬
আপডেট : ৮ এপ্রিল, ২০২০ ১৯:০০

করোনা পরিস্থিতিতে সৌদি প্রবাসীদের কমন ১০টি প্রশ্ন ও উত্তর

সৌদি আরব প্রতিনিধি

করোনা পরিস্থিতিতে সৌদি প্রবাসীদের কমন ১০টি প্রশ্ন ও উত্তর

বিশ্বজুড়ে করোনভাইরাস মহামারী রোধে লকডাউনসহ নানা ব্যবস্থা নিচ্ছে। এদিকে, মধ্যপ্রাচ্যের দেশ সৌদি আরবও এ ভাইরাসের বিস্তার কমিয়ে আনতে বিভিন্ন ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। সর্বশেষ রাজধানী রিয়াদসহ ১১টি শহরে ২৪ ঘণ্টা কারফিউ এবং লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে।

সৌদি আরবের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এ পর্যন্ত ২ হাজার ৭৯৫ জন করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত করেছে এবং এখন পর্যন্ত দেশটিতে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে  ৪১ জনে। 

দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রী সতর্ক করেছেন যে, সৌদি ও বিদেশি চারটি পৃথক গবেষণার ভিত্তিতে আগামী কয়েক সপ্তাহের মধ্যে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ১০ হাজার থেকে এবং ২লাখ পর্যন্ত হতে পারে।

বর্তমান পরিস্থিতিতে অনেক প্রবাসীরা কয়েকটি কমন প্রশ্নের উত্তর জানতে চান বার বার। তাদের জন্য আজকের আয়োজন। উত্তরগুলো সৌদি আরবের রাষ্ট্রীয় বিভিন্ন দপ্তর এবং স্থানীয় গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদ থেকে নেয়া।

কোন শহরগুলো ২৪ ঘণ্টা লকডাউনের অধীনে?

রিয়াদ, তাবুক, দাম্মাম, ধাহরান এবং হাফুফ এবং জেদ্দা, তাইফ, কাতিফ এবং খোবারে ২৪ ঘণ্টা লকডাউন এবং কারফিউ চলমান রয়েছে। পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত চলবে।

দেশটির সরকার ইতোমধ্যে পবিত্র শহর মক্কা ও মদিনায় পুরো লকডাউন ঘোষণা করেছে। পরবর্তী নির্দেশ না পাওয়া পর্যন্ত মক্কা ও মদিনার দুটি পবিত্র মসজিদে প্রবেশ ও নামাজ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

অন্যান্য শহরে কি কোনো বিধিনিষেধ রয়েছে?

অন্যান্য শহর ও প্রভিন্সগুলোতেও বিকেল ৩টা থেকে সকাল ৬টা পর্যন্ত কারফিউ চালু রয়েছে।

ফার্মেসি এবং মুদি দোকান বন্ধ থাকবে?

ফার্মেসি, মেডিকেল সেন্টার, মুদির দোকান এবং মুষ্টিমেয় অন্যান্য প্রয়োজনীয় পরিষেবাগুলো কারফিউর আওতামু্ক্ত।

আর কী প্রয়োজনীয় সেবা চালু থাকবে?

লন্ড্রি, প্লাম্বিং, বিদ্যুৎ, শীতাতপ নিয়ন্ত্রণ, এবং পানি ও স্যানিটেশন পরিষেবাগুলো পরিচালনা করার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। ফিলিং স্টেশনগুলোর অভ্যন্তরে যানবাহন রক্ষণাবেক্ষণ পরিষেবাগুলো এখনও চলবে।

অন্যান্য কোন সেক্টরের কর্মীরা কারফিউ থেকে অব্যাহতি পেয়েছেন?

চিকিৎসা সেবা কর্মী, নিরাপত্তা কর্মী এবং মিডিয়া কর্মীরা এই আইনের আওতামুক্ত থাকবেন।

কারও যদি প্রয়োজনীয় পরিষেবাগুলোর জন্য বাইরে যাওয়ার দরকার হয় তবে কী হবে?

বাসিন্দারা ওষুধ বা খাবার কিনতে তাদের বাসা ছেড়ে যেতে পারে তবে তাদের এলাকার মধ্যে থেকে সকাল ৬টা থেকে বিকাল ৩ টা পর্যন্ত কেনাকাটা করতে পারবেন।

একটি পুরো পরিবার একসাথে মুদি দোকানে যেতে পারেন?

উপরোক্ত উল্লিখিত সময়ে ড্রাইভার ছাড়াও প্রতিটি পরিবার থেকে একজনকেই বাহিরে যাওয়ার অনুমতি দেয়া হবে।

খাদ্য সরবরাহ পরিষেবা কি অনুমোদিত?

রেস্তোঁরাগুলো রাত ১০টা পর্যন্ত হোম ডেলিভারি করতে পারবে। তবে পার্টিতে বা হোটেলের অভ্যন্তরে খাবার পরিবেশন করতে পারবে না।

কৃষিকাজ এবং কৃষি পরিষেবাগুলো কারফিউ থেকে অব্যাহতি পেয়েছে?

প্রাণিসম্পদ, পশুপাখি পালন, হাঁস-মুরগি এবং মাছের শিল্পসহ কৃষি কাজে যারা কাজ করছেন তারা ইতোমধ্যে মন্ত্রণালয় কতৃক প্রদত্ত বৈধ অনুমতি নিয়ে কাজ করতে পারবেন। অনুমতিটি এক সপ্তাহের জন্য বৈধ।

দাতব্য এবং স্বেচ্ছাসেবীরা কি কাজ করতে পারেন?

দাতব্য, স্বেচ্ছাসেবীরা নিজ নিজ এলাকায় সকাল ৬টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করতে পারবেন।


বিডি-প্রতিদিন/বাজিত হোসেন


আপনার মন্তব্য