শিরোনাম
প্রকাশ : ৮ জুলাই, ২০২১ ১২:১৮
প্রিন্ট করুন printer

সুবীর নন্দী-আইয়ুব বাচ্চু-এন্ড্রু কিশোরকে নিউইয়র্কে গভীর শ্রদ্ধায় স্মরণ

যুক্তরাষ্ট্র প্রতিনিধি

সুবীর নন্দী-আইয়ুব বাচ্চু-এন্ড্রু কিশোরকে নিউইয়র্কে গভীর শ্রদ্ধায় স্মরণ
Google News

বাংলাদেশের প্রয়াত তিন বরেণ্য শিল্পী সুবীর নন্দী,আইয়ুব বাচ্চু ও এন্ড্রু কিশোরের স্মরণ সভা ছিল নিউইয়র্কের কুইন্স প্যালেসে। শো টাইম মিউজিক এই স্মরণসভার আয়োজন করে সোমবার।

বাংলাদেশের প্রয়াত এই তিন গুণী শিল্পী সম্পর্কে বলতে গিয়ে আবেগে আপ্লুত হয়ে পড়েন তাদের সহ-শিল্পীরা। স্মৃতিচারণ করেন প্রখ্যাত শিল্পী বেবি নাজনীন, কনক চাঁপা, রিজিয়া পারভীন, শহীদ হাসানসহ বিশিষ্ট শিল্পীরা।

বেবি নাজনীন বলেন, তাদের চলে যাওয়া আমাদের সঙ্গীতের ভুবনে বিশাল শূন্যতা তৈরি করেছে। তাদের শূন্যতা পূরণ হবার নয়। তারা প্রত্যেকেই যার যার জায়গায় ছিলেন অসাধারণ, ছিল ব্যতিক্রমধর্মী গায়কীর অধিকারী। একে একে অনেকেই চলে গেছেন। আমাদেরও ডাক আসবে, চলে যেতে হবে বলে। তিনি প্রয়াত তিন শিল্পীর আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন।

কনক চাঁপা বলেন, প্রয়াত সুবীর নন্দী ছিলেন সরলতার প্রতীক। সাদাসিদে জীবনযাপনে অভ্যস্ত দাদা যখন গান করতেন, তখন তিনি হয়ে উঠতেন অসাধারণ। অন্যরকম গায়কী ঢং ছিল তার- যা সচরাচর চোখে পড়ে না।

আইয়ুব বাচ্চু সম্পর্কে কনক চাঁপা বলেন, তিনি যখন ব্যান্ড সঙ্গীত পরিবেশন করতেন গোটা এলাকা যেন একসঙ্গে নেচে উঠত। তিনি তরুণদের এক অন্যরকম মায়ার বন্ধনে আবদ্ধ করেছিলেন। 

প্রয়াত আরেক বিখ্যাত শিল্পী এন্ড্রু কিশোর সম্পর্কে বলতে গিয়ে কেঁদে ফেলেন কনক চাঁপা। তিনি বলেন, এত বড় মাপের শিল্পী হয়েও তিনি ছিলেন অসাধারণ বিনয়ী। দ্বৈত কণ্ঠে গান গাওয়ার আগে তিনি বলতেন, আমাকে উদ্ধার করে দিও। অথচ গানে তিনি ছিলেন অসম্ভবরকম সাবলীল। তার দরাজ কণ্ঠের গান বাংলা গানকে অন্য উচ্চতায় নিয়ে গিয়েছিল।

কনক চাঁপা বলেন, অসুখটা ধরা পড়ার আগে এই গুণী শিল্পী কালো হয়ে যাচ্ছিলেন। ডাক্তার দেখানোর কথা বলতে গেলে হেসে উড়িয়ে দিতেন। সবশেষে আমাদের ছেড়ে চলেই গেলেন।

অনুষ্ঠানে শিল্পী রিজিয়া পারভীন তিন গুণী শিল্পীর সাথে বিভিন্ন দেশে গান গাওয়ার স্মৃতি তুলে ধরেন।

স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের শিল্পী তথা কণ্ঠযোদ্ধা শহীদ হাসান বলেন, তাদের জনপ্রিয়তা, পরিবেশনা ছিল ঈর্ষণীয় পর্যায়ে। আমাদের সঙ্গীত জগতকে একরাশ শূন্যতায় রেখে তারা আমাদের ছেড়ে চলে গেছেন। তিনি তাদের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন।

স্মরণসভায় শো টাইম মিউজিকের কর্ণধার আলমগীর খান আলম বলেন, তাদের দিয়েই নিউইয়র্কে আমার ক্যারিয়ার শুরু। তাই আমার কষ্টটা একটু অন্যরকম। প্রয়াত শিল্পীদের স্মরণে সঙ্গীত পরিবেশন করেন শিল্পী শাহ মাহবুব, চন্দন চৌধুরী, শেফালী সরগম প্রমুখ।

বিডি প্রতিদিন/ফারজানা

এই বিভাগের আরও খবর