শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ২৩ জুন, ২০১৮ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৩ জুন, ২০১৮ ০২:১৭

আর্জেন্টিনা দলে বিদ্রোহ!

ক্রীড়া ডেস্ক

আর্জেন্টিনা দলে বিদ্রোহ!

রেফারির শেষ বাঁশি বাজতেই আকাশপানে চাইলেন লিওনেল মেসি। এরপর বাঁ হাত দিয়ে দুই চোখ মুছলেন। ক্যামেরায় ক্লোজ হয়ে আসা মেসির অবয়বে ফুটে উঠেছিল না পারার কষ্ট, ক্লান্তি আর বেদনার ছাপ। ‘বরফরাজ্য’ আইসল্যান্ডের সঙ্গে ড্রয়ের পরও টিকে ছিল স্বপ্ন। কিন্তু ক্রোয়েশিয়ার কাছে হেরে স্বপ্নকে ছুড়ে ফেলতে হয়েছে কাস্পিয়ান সাগরে। আন্তে রেবিচ, লুকো মদ্রিক, ইভান রাকিতিচরা চোখ-ধাঁধানো, মন ভোলানো গোল করে এক এক করে পেরেক ঠুকেছেন আর্জেন্টিনার সম্ভাবনার কফিনে। চুরমার করে দিয়েছেন পাঁচবারের বিশ্বসেরা ফুটবলারের বিশ্বকাপ ট্রফি তুলে ধরার স্বপ্নকে। ক্রোয়েশিয়ার কাছে হারের পরও গাণিতিক হিসাবে সূক্ষ্ম একটি সম্ভাবনা রয়ে গেছে মেসিদের। সেজন্য নাইজেরিয়ার হারাতে হবে আইসল্যান্ডকে। এমন জটিল সমীকরণে দাঁড়িয়ে থাকা মেসির বিশ্বকাপ তাহলে কার্যত শেষই বলা যায়! যদিও নাইজেরিয়ার বিপক্ষে একটি ম্যাচ এখনো বাকি আর্জেন্টিনার। তবে এটা ঠিক, আর্জেন্টিনার এই ঝুলে পড়ার আশঙ্কায় বর্ণ হারিয়েছে বিশ্বকাপ। একই সঙ্গে হারিয়েছে সৌন্দর্যও।

মেসির বয়স এখন ৩১। চার বছর পর কাতার বিশ্বকাপে তা বেড়ে দাঁড়াবে ৩৫। ওই বয়সে বিশ্বকাপে খেলার ভাবনা আর ছোট্ট ডিঙিতে উত্তাল আটলান্টিক পাড়ি দেওয়া প্রায় একই। তাই রাশিয়ায় পা দেওয়ার আগে আগে নিজে থেকেই ঠিক করে নিয়েছিলেন টার্গেট, ‘নাউ অর নেভার’, ‘হয় এবার, না হলে আর নয়।’ আইসল্যান্ডের বিপক্ষে নিষ্প্রাণ ড্রয়ের পর ক্রোয়েশিয়ার কাছে হার। তাহলে কি মেসির বিশ্বকাপ জেতাটা অধরাই রয়ে যাবে। গুঞ্জন উঠেছে আর্জেন্টিনা দলে ঐক্য নেই। খেলোয়াড়রা নাকি কোচের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ ঘোষণা করেছে। তাছাড়া মেসির সঙ্গেও অনেকের সম্পর্ক ভালো যাচ্ছে না। তাই মেসিকে কেউ বল জোগান দিতে চান না। বিষয়টি আর্জেন্টিনা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন খুব গুরুত্বসহকারে দেখছে। এ ব্যাপারে নাকি কোচ ও অধিনায়কের সঙ্গে কথাও বলেছেন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

যদিও কাল নাইজেরিয়ার জয়ে আশা জেগেছে আর্জেন্টিনার তবু হিসাবটা জটিল। আইসল্যান্ডকে ক্রোয়েশিয়া হারালে বা ড্র করলে তখনই দ্বিতীয় রাউন্ডে যাওয়ার সম্ভাবনা মেসিদের জেগে উঠবে। তবে গ্রুপের শেষ ম্যাচে নাইজেরিয়াকে হারাতেই হবে। ড্র করলে গ্রুপ খেলেই মেসিদের বিশ্বকাপ মিশন শেষ হয়ে যাবে।


আপনার মন্তব্য