শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২৩:৫৩

চ্যালেঞ্জ নিয়ে নিউজিল্যান্ড যাত্রা

ক্রীড়া প্রতিবেদক

চ্যালেঞ্জ নিয়ে নিউজিল্যান্ড যাত্রা

করোনাভাইরাস ভীতিকে পাশ কাটিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরেছে বাংলাদেশ। ঘরের মাঠে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে ও টেস্ট সিরিজ খেলেছে। করোনাকালে দেশের বাইরে প্রথমবারের মতো খেলতে গেছে টাইগাররা। এমন একটি দেশে গেছেন তামিমরা, যেখানে দেশটির বিপক্ষে এখন পর্যন্ত একটি ম্যাচও  জেতেনি। তাসমান সাগর পাড়ের দেশ নিউজিল্যান্ড অজেয়ই রয়ে গেছে বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের। টেস্ট, ওয়ানডে ও টি-২০ মিলিয়ে ২৬ ম্যাচ খেলে জেতেনি একটিও। গতকাল ঢাকা ছাড়ার আগে ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবাল বলেছেন, ব্যর্থতার গোলকধাঁধা থেকে বেরিয়ে জিততে চান, ‘নিউজিল্যান্ডের কন্ডিশন আমাদের জন্য বরাবরই কঠিন। তবে অসম্ভব কিছু না। নিউজিল্যান্ডে আমরা যা কোনোদিন অর্জন করতে পারিনি, চেষ্টা করব এবার যেন সেটা বদলে ফেলতে পারি। আমরা আশাবাদী।’ জয়ের স্বপ্ন নিয়ে গতকাল বিকাল ৪টায় সিঙ্গাপুর এয়ার ওয়েজে ক্রাইস্টচার্চের উদ্দেশ্যে ঢাকা ছাড়েন। সফরে তিনটি করে ওয়ানডে ও টি-২০ ম্যাচ খেলবেন তামিম, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদরা।

করোনাকালে বাংলাদেশ প্রথমবারের মতো দেশের বাইরে যাচ্ছে। তৃতীয় সন্তানের জন্মদানের সময় স্ত্রীর পাশে থাকবেন বলে সফর থেকে ছুটি নিয়েছেন সাকিব আল হাসান। এক বছরের নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরেছেন ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে সিরিজ দিয়েই। নিউজিল্যান্ড সফরে ৩৫ সদস্যের স্কোয়াড  গেছে। ক্রিকেটারদের সঙ্গে ‘কমিউনিকেশন গ্যাপ’ কমাতে দলের সঙ্গে গেছেন বিসিবি পরিচালক ও মিডিয়া চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস। এখন থেকে প্রতিটি সফরেই বিসিবির একজন পরিচালক সফরসঙ্গী হবেন।  

নিউজিল্যান্ড অজেয়। কিন্তু দেশটির মাটিতে জয়ের রেকর্ড রয়েছে বাংলাদেশের। ২০১৫ সালের বিশ্বকাপে স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে তিনশোর্ধ্ব স্কোর তাড়া করে রেকর্ড গড়েছিল টাইগাররা। ওই জয়ের রেকর্ডটি এবার বৈরী পরিবেশে আত্মবিশ্বাস জোগাচ্ছে ক্রিকেটারদের। তার ওপর ঘরের মাঠে ক্যারিবীয়দের ওয়ানডে সিরিজে হোয়াইটওয়াশের আত্মবিশ্বাসও বাড়তি পাওনা। তামিমদের সফর শুরু হবে ওয়ানডে সিরিজ দিয়ে। ২০ মার্চ সিরিজের প্রথম ওয়ানডে। পরের দুটি ২৩ ও ২৬ মার্চ। টি-২০ ম্যাচ তিনটি যথাক্রমে ২৮, ৩০ মার্চ ও ১ এপ্রিল। ৪০ দিনের সফরের প্রথম ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে তামিমদের। এরই মধ্যে প্রথম ৭দিন ক্রিকেটাররা পুরোপুরি রুমবন্দী থাকবেন। পরের সাতদিন নিজেদের মধ্যে অনুশীলন করবেন তামিমরা। ক্রিকেটাররা সফরে গিয়ে প্রথম ১৪দিন থাকবেন ক্রাইস্টচার্চের লিংকন ইউনিভার্সিটি হাইপারফরম্যান্স সেন্টারে। রুমবন্দী থাকাকালীন পরস্পরের সঙ্গে মেলামেশার কোনো সুযোগ নেই। ঘরের দরজায় খাবার দিয়ে যাওয়া হবে। সেখান থেকে নিয়ে খেতে হবে। সবকিছুই নিজেদের করতে হবে ক্রিকেটারদের। দুই সপ্তাহের কোয়ারেন্টাইন শেষে ৫দিন মুক্ত বাতাসে অনুশীলন করবেন ক্রিকেটাররা। সেখানে যোগ দেবেন স্পিন কোচ ড্যানিয়েল ভেট্টরি। নিউজিল্যান্ড সফর শেষে বিসিবির সঙ্গে চুক্তি শেষ হবে ভেট্টরির।

সফরে কোনো টেস্ট নেই। তিনটি ওয়ানডে ও তিনটি টি-২০। টেস্ট সিরিজ হারলেও বাঁ হাতি ড্যাসিং ক্রিকেটার সৌম্য সরকার জানিয়েছেন দলের ক্রিকেটাররা মানসিকভাবে ফিট আছেন এবং জয় পেতে সবাই উদগ্রীব হয়ে আছেন, ‘অবশ্যই ভালো কিছু হবে এবার। সবাই যেভাবে মানসিকভাবে ফিট রয়েছে বা মানসিকভাবে প্রস্তুতি নিয়েছে, নিজেদের সেরাটা দিতে পারলে আশা করি ভালো কিছু হবে।’ সৌম্য আরও বলেন, ‘ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডেতে আমরা ভালো করেছি। নিউজিল্যান্ডেও ওয়ানডে সিরিজ আছে। আশা করি ভালো ফল নিয়ে ফিরতে পারব।’

টাইগাররা ২০০৭ সালে প্রথমবার নিউজিল্যান্ড সফর করে। প্রতিপক্ষ ব্ল্যাক ক্যাপসদের পাশাপাশি প্রবল প্রতিপক্ষ হিসেবে সবসময় বাধা হয়েছিল প্রচ- বাতাস। প্রথমবারের মতো জিততে হলে, নিউজিল্যান্ডের পাশাপাশি হারাতে হবে বাতাসকেও। 


আপনার মন্তব্য