শিরোনাম
সোমবার, ২১ জুন, ২০২১ ০০:০০ টা

গোলের সেঞ্চুরিতে বসুন্ধরার সাবিনা

৯৮ গোল নিয়ে মাঠে নামেন তিনি। ২ গোলের অপেক্ষা, ২০ ও ৩১ মিনিটে টানা দুই গোল করে শততম গোল পূর্ণ করেন সাবিনা। ৭৮ মিনিটে হ্যাটট্রিকও পূরণ করেন। সব মিলিয়ে লিগ ক্যারিয়ারে তার ১০১ গোল। ম্যাচে বাকি ২টি গোল করেন আঁখি খাতুন ও মারিয়া মান্ডা।

ক্রীড়া প্রতিবেদক

গোলের সেঞ্চুরিতে বসুন্ধরার সাবিনা

পুরুষদের গোলখরা কাটছে না। অথচ নারী ফুটবলে শুধু গোল আর গোল। বসুন্ধরা কিংসের মেয়েরা ইতিহাস লিখেই চলেছেন। কাজী সালাউদ্দিন, আসলাম বা সালাম নয় দেশের ফুটবলে সাবিনা খাতুনের নামটি সোনার অক্ষরে লেখা হয়ে থাকবে। গতকাল কিংসের অধিনায়ক সাবিনা শুধু লিগেই ১০০ গোলের মাইলফলক গড়ে ফেললেন। এ-এক অন্যরকম সেঞ্চুরি। মাত্র চার লিগে ১০০ গোল দেওয়াটা চাট্টিখানি কথা নয়। দক্ষিণ এশিয়ায় সাবিনাই প্রথম ফুটবলার যিনি অল্পকটি ম্যাচ খেলে গোলের সেঞ্চুরি পূরণ করলেন।

গতকাল থেকেই মাঠে গড়িয়েছে চলতি নারী লিগের দ্বিতীয় লেগ। কমলাপুর বীর শ্রেষ্ঠ সিপাহী মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে প্রতিপক্ষ পুস্করণী যুব স্পোর্টিং ক্লাব হারবে এনিয়ে কারোর সংশয় ছিল না। ৫-০ গোলে জয়ে শিরোপার পথে এগিয়ে গেছে বসুন্ধরা কিংস। তবে আলোচনায় ছিলেন সাবিনা। ৯৮ গোল নিয়ে মাঠে নামেন তিনি। ২ গোলের অপেক্ষা, ২০ ও ৩১ মিনিটে টানা দুই গোল করে শততম গোল পূর্ণ করেন সাবিনা। ৭৮ মিনিটে হ্যাটট্রিকও পূরণ করেন। সব মিলিয়ে লিগ ক্যারিয়ারে তার ১০১ গোল। ম্যাচে বাকি ২টি গোল করেন আঁখি খাতুন ও মারিয়া মান্ডা।

২০১১ সালে অভিষেক লিগে শেখ জামালের ২৫, ২০১৩ মোহামেডানের জার্সিতে ২৮, গত লিগে বসুন্ধরার হয়ে ৩৫ ও এবার এখন পর্যন্ত আট ম্যাচে ১৩ গোল। চার লিগে সেঞ্চুরির পূরণ করাটা পুরুষদের জন্য স্বপ্নই বলা যায়। অথচ সাবিনা দেখালেন অসম্ভবকে সম্ভবে পরিণত করা যায়। সব ধরনের প্রতিযোগিতা মিলিয়ে গত বছরই ২৫০ গোলের মাইলফলক গড়েন। যা বাংলাদেশের জন্য গর্বই বলা যায়। সেঞ্চুরির প্রস্তুতি আগে থেকেই ছিল কিংস ম্যানেজমেন্টের। সেঞ্চুরির পূরণের পর শুধু সাবিনা নয়, সব খেলোয়াড়, কোচ ও কর্মকর্তারা এই জার্সি পরেই সেঞ্চুরি গার্লকে অভিনন্দন জানান।