শিরোনাম
প্রকাশ : ৯ মার্চ, ২০২১ ১৬:৪৮
আপডেট : ৯ মার্চ, ২০২১ ১৬:৫২
প্রিন্ট করুন printer

‘একজন বিশ্বমানের ক্রিকেটার কালীপূজায় নাকি মসজিদে যাবে, এটা তার ব্যক্তিগত ব্যাপার’

অনলাইন ডেস্ক

‘একজন বিশ্বমানের ক্রিকেটার কালীপূজায় নাকি মসজিদে যাবে, এটা তার ব্যক্তিগত ব্যাপার’
সাকিব আল-হাসান (বামে) ও হাইকোর্ট। ফাইল ছবি

ফেসবুক লাইভে এসে রামদা হাতে সাকিবকে খুনের হুমকি দিয়েছিলেন মহসীন তালুকদার নামের এক ব্যক্তি। কারণটি সবারই জানা। কলকাতায় কয়েকমাস আগে কালীপূজার অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছিলেন সাকিব আল হাসান আর তাতেই ক্ষেপে গিয়ে তিনি ওই হুমকি দেন।

এরপর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হন মহসীন। অবশেষে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ।  আজ মঙ্গলবার সেই মহসীনের জামিন আবেদনের শুনানি হয়েছে বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেন সেলিম ও বিচারপতি মো. বদরুজ্জামানের সমন্বয়ে গঠিত ভার্চুয়াল হাইকোর্ট বেঞ্চে।

শুনানিতে আদালত বলেছেন, ‘একজন বিশ্বমানের ক্রিকেটার কালীপূজায় নাকি মসজিদে যাবে, এটা তার ব্যক্তিগত ব্যাপার। এ জন্য কেউ তাকে হত্যার হুমকি দিতে পারে না।’

২০২০ সালের ১২ নভেম্বর কলকাতায় একটি কালীপূজার অনুষ্ঠানে গিয়েছিলেন সাকিব আল হাসান। এরপর খবর বের হয় তিনি পূজা উদ্বোধন করেছেন।কিন্তু পরে সাকিব ও আয়োজকেরা তা অস্বীকার করেন। এরপর ১৫ নভেম্বর রাত ১২টা ৭ মিনিটে ফেসবুক লাইভে এসে চাপাতি দেখিয়ে সাকিবকে গলাকেটে হত্যার হুমকি দেয় মহসীন তালুকদার। মহসীন তালুকদার সিলেট সদর উপজেলার টুকেরবাজার ইউনিয়নের তালুকদার পাড়া গ্রামের আজাদ বক্সের ছেলে। বিপদ বুঝে ১৬ নভেম্বর মহসীন লাইভে এসে ক্ষমা চান। এ দিনই সাকিব ইউটিউবে ভিডিও প্রকাশ করে কালীপূজায় যাওয়ার জন্য ‘ক্ষমা চান’ এবং নিজেকে সাচ্চা মুসলিম দাবি করেন।

অপরদিকে নেটিজেনদের তীব্র প্রতিক্রিয়ার মুখে ১৭ নভেম্বর মহসীন তালুকদারকে গ্রেফতার করে পুলিশ।  

বিডি প্রতিদিন/জুনাইদ আহমেদ

  


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর