Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : শুক্রবার, ১২ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ১১ অক্টোবর, ২০১৮ ২১:২৯
লাবণ্য ধরে রাখুন
লাবণ্য ধরে রাখুন
♦ মডেল : আঁখি আলমগীর ♦ ছবি : ফ্রাইডে ♦ গ্রন্থনা : ফেরদৌস আরা

বয়স বাড়ছে! ইদানীং আয়নার সামনে নিজেকে অন্যরকম লাগে! ত্বকে আগের মতো উজ্জ্বলতা নেই! মন খারাপ করবেন না। রূপ লাবণ্যের প্রথম শর্তই হলো তারুণ্য। আর তারুণ্য ধরে রাখতে চাই নিয়মিত ত্বকের পরিচর্যা। আজ থেকে মেনে চলুন প্রতিদিনের রূপ রুটিন।

 

বয়সটা বাড়ছে! ত্বকের উজ্জ্বলতা কমে আসছে! ইদানীং আয়নার সামনে দাঁড়ালেই চোখের তলায় কালো দাগ, ত্বকে বলিরেখা আরও কত কী! আসল কথা হলো, সময়ের সঙ্গে সঙ্গে আমাদের বয়স যেমন বেড়ে যায় ঠিক তেমন ত্বকেরও বয়স বাড়ে। সতেজ ত্বকের জন্য আমরা নানারকম ট্রিটমেন্ট হয়তো নিয়ে থাকি, কিন্তু ত্বকে বার্ধক্যের ছাপ থামিয়ে রাখতে পারবেন না এটাও সত্য। তাই বলে তো মন খারাপ করা যাবে না। একটু সচেতন হলেই বয়সের ছাপের লক্ষণগুলো সহজেই নিয়ন্ত্রণে রাখা সম্ভব। এক্ষেত্রে সারাক্ষণ আয়নার সামনে বসে থাকতে বলছি না, কিন্তু প্রতিদিনের একটু যত্ন আত্তি আর লাইফস্টাইল ম্যানেজমেন্টই পারে আপনার ত্বকের লাবণ্যতা ধরে রাখতে। একটু ক্লেনজিং, টোনিং, ময়েশ্চারাইজিংই পারে ত্বক সুন্দর রাখতে। মাসে একবার ফেসিয়াল, পেডিকিউর, হেয়ার স্পা করতে আপত্তি কোথায়! তাই আজ থেকে মেনে চলুন রূপ রুটিন।

 

নিত্যদিনের রূপ রুটিন

সারা দিন হয়তো কাজে ব্যস্ত থাকেন। তাই বলে ত্বকের জন্য একটু সময় বের করতে পারবেন না তা তো নয়। সারা দিনের জমে থাকা ধুলো-ময়লা, ঘাম, তেল রোমকূপে জমে ত্বকের ক্ষতি করে। আর ত্বক পরিষ্কার না থাকলে রোমকূপের মুখ বন্ধ হয়ে যায়। ফলে ত্বক তার নিজস্ব স্বাভাবিকতা হারায়। তাই সব ধরনের ত্বকেই ক্লেনজিং, টোনিং এবং ময়েশ্চারাইজিং মাস্ট। ত্বক পরিষ্কার করার জন্য ভালোমানের ফেসওয়াশ ব্যবহার করুন। এক্ষেত্রে মিল্ক বা জেলজাতীয় ক্লিনজার বেছে নিতে পারেন। মুখ পরিষ্কার করার পর তুলোয় টোনার নিয়ে ভালো করে মুখ মুছে নিন। বাজারের কৃত্রিম টোনার ব্যবহার করতে না চাইলে প্রাকৃতিক টোনার ব্যবহার করতে পারেন। এক্ষেত্রে পোলাপজল হতে পারে সবচেয়ে উত্তম প্রাকৃতিক উপাদান। মুখ পরিষ্কার করার পর অবশ্যই ময়েশ্চারাইজিং লোশন ব্যবহার করুন। এটি আপনার ত্বককে হাইড্রেটেড রাখে। ফলে ত্বক ভালো থাকে দীর্ঘক্ষণ।

 

ত্বকের যত্নে প্রাকৃতিক সমাধান

♦  ত্বকের যত্নে গোলাপজল বেশ উপকারী। খুব সহজেই এটি ব্যবহার করতে পারেন। ২ চা চামচ গোলাপজল, ১/২ চা চামচ লেবুর রস আর কয়েক ফোঁটা গ্লিসারিন নিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিন। এরপর একটি তুলোর বলের সাহায্যে পুরো মুখে লাগিয়ে নিন। এই প্যাকটি রাতে ঘুমানোর আগে মুখ ভালোভাবে পরিষ্কার করে লাগিয়ে নিন। শুকিয়ে যাওয়ার আগ পর্যন্ত অপেক্ষা করে শুয়ে পড়ুন। পানি দিয়ে ধোয়ার কোনো দরকার নেই। সারা রাত এটি আপনার ত্বকের ওপর কাজ করবে।

♦  নারিকেলের দুধে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট রয়েছে। যা ত্বকের রিংকেল রোধ করতে খুবই কার্যকরী। ২-৩ চামচ নারিকেলের দুধ নিয়ে একটি তুলোর বলের সাহায্যে পুরো মুখে ও গলায় লাগিয়ে নিন। ২০ মিনিট অপেক্ষা করে ঠাণ্ডা পানিতে মুখ ধুয়ে ফেলুন। প্যাকটি সপ্তাহে একবার ব্যবহার করতে পারেন।

♦  ছোট একটি পাকা কলা নিয়ে ভালো করে চটকে নিন। এবার এর সঙ্গে মেশান ১ চামচ গোলাপজল, ১ চামচ মধু ও ১ চামচ টকদই। মিশ্রণটি একটু সময় নিয়ে ভালো করে একটি পেস্টের মতো তৈরি করতে হবে। এরপর মুখে, গলায় ও ঘাড়ে লাগিয়ে রাখুন ২০ মিনিট। এরপর ঠাণ্ডা পানিতে ভালো করে ধুয়ে নিন। সপ্তাহে মাত্র ২ দিন ব্যবহারেই দেখবেন ত্বকে দারুণ পরিবর্তন এসেছে।

ত্বকের মৃত কোষ দূর করতে স্ক্রাবিং

কোমল, সুন্দর ত্বক পেতে সপ্তাহে অন্তত তিন দিন স্ক্রাবিং করানো উচিত। কারণ, ত্বকের নতুন সেল তৈরি করলেই ত্বক সুন্দর ও সজীব থাকবে। স্ক্রাবার মুখে লাগিয়ে হালকা হাতে সার্কুলার মুভমেন্টে কিছুক্ষণ ম্যাসাজ করে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এতে ত্বকের মরা কোষ ঝরে গিয়ে নতুন কোষ জম্মাাবে। ফলে ত্বক হয়ে উঠবে উজ্জ্বল, মসৃণ। এক্ষেত্রে বাজারের চলতি প্রোডাক্টের পরিবর্তে ঘরোয়া টোটকা ব্যবহার করুন।

 

ত্বকের সুস্থতায় ফেস মাস্ক

জেনে রাখা ভালো যে, ফেস মাস্ক ত্বকের মৃত কোষ দূর করে ত্বকের ব্লাড সার্কুলেশন ভালো রাখে, চামড়া টানটান, ত্বক নরম ও মসৃণ রাখে। এজন্য একটা শসা কুরে নিন। আধা কাপ টকদই ও আধা কাপ ওটমিলের সঙ্গে ভালো করে মিশিয়ে মুখে ও গলায় লাগিয়ে নিন। শুকিয়ে গেলে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে নিন। এই মাস্ক ত্বকের বলিরেখা কমাতে ভীষণ উপকারী। ওটমিল স্ক্রাবার হিসেবে কাজ করবে। দই আপনার ত্বককে ময়েশ্চারাইজ করবে, ত্বকের ভিতর থেকে পুষ্টি জোগাবে।

 

রোদ থেকে দূরে থাকুন

সূর্যের ক্ষতিকারক আলট্রাভায়োলেট রশ্মির প্রভাবে ত্বকে বার্ধক্যের ছাপ দেখা দেয়। ফলে ত্বক হয়ে পড়ে নির্জীব, প্রাণহীন। এই রশ্মি ত্বকের গভীরে প্রবেশ করে কোলাজেনের ক্ষতি করে। তাই রোদে বের হওয়ার অন্তত ২০ মিনিট আগে মুখে, গলায় ও ঘাড়ে উচ্চ এসপিএফযুক্ত সানস্ক্রিন অবশ্যই লাগাবেন। গবেষণায় দেখা গেছে, সানস্ক্রিন ব্যবহার করলে শুধু বাইরের দূষণ থেকেই ত্বককে রক্ষা করে না, ত্বকের লাবণ্যতাও ধরে রাখে।

 

রাতেও নিন ত্বকের যত্ন

রাতে ঘুমোতে যাওয়ার আগে মুখ পরিষ্কার করে মুখে ও গলায় নাইট ক্রিম (নারিশিং ক্রিম) লাগিয়ে হালকা হাতে কিছুক্ষণ ম্যাসাজ করুন। প্রয়োজন হলে হাতে সামান্য পানি নিতে পারেন। সব শেষে ভিজা তুলো দিয়ে অতিরিক্ত ক্রিম মুছে নিন। নারিশিং ক্রিম ত্বকের ভিতর থেকে পুষ্টি জোগাবে। ফলে ত্বকের উজ্জ্বলতা বহুগুণ বাড়বে, বলিরেখার সমস্যাও কমবে।

 

অ্যান্টি অক্সিডেন্ট ফেসিয়াল করুন

মাসে একবার ভালো পারলারে গিয়ে ফেসিয়াল ট্রিটমেন্ট করে নিন। কারণ, এখানকার এক্সপার্টরা দক্ষ হাতে বিভিন্ন ম্যাসাজ টেকনিকের মাধ্যমে ত্বকের এক্সফোলিয়েশন এবং ম্যাসাজ করে থাকেন। পারলারের অ্যান্টি অক্সিডেন্টসমৃদ্ধ ক্রিম দিয়ে ফেসিয়াল ম্যাসাজের ফলে ত্বকের ওপর জমে থাকা ডেড সেল দূর হওয়ার পাশাপাশি ব্লাড সার্কুলেশন ভালো হবে, চামড়া টানটান হবে। ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়বে। যারা বেশির ভাগ সময় রোদে বাইরে থাকেন তাদের ত্বকের জন্য অ্যান্টি অক্সিডেন্ট ফেসিয়াল বেশ উপকারী।

এই পাতার আরো খবর
সর্বাধিক পঠিত
up-arrow