শিরোনাম
প্রকাশ : ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৯ ১৪:৫৭

মেয়ের খুনের বিচারের দাবিতে বৃদ্ধার সংবাদ সম্মেলন

লামা (বান্দরবান) প্রতিনিধি:

মেয়ের খুনের বিচারের দাবিতে বৃদ্ধার সংবাদ সম্মেলন

বান্দরবানের লামা উপজেলার আলোচিত সাজু আক্তার হত্যার ঘটনায় বিচারের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করেছেন নিহতের পরিবার। শনিবার (১৪ ডিসেম্বর) বেলা ১১টায় লামা রিপোর্টার্স ক্লাব হলরুমে এই সাংবাদিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এসময় স্থানীয় প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ার কর্মরত সাংবাদিক ও সরকারের বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। 

এসময় লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন, নিহত সাজু আক্তারের বড় ভাই ও মামলার বাদী মোস্তাফিজুর রহমান। এসময় সাজু আক্তারের বৃদ্ধ মা আসমা খাতুন (৮৫), ভাই মো. আবুল কাসেম উপস্থিত ছিলেন। খুনের শিকার সাজু আক্তার (২৫) লোহাগাড়া উপজেলার পুটিবিলা ইউনিয়নের পহর চাঁদা গ্রামের মৃত গোলাম ছোবহান এর মেয়ে। 

লিখিত বক্তব্যে মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ২০০৮ সালের ১৫ ডিসেম্বর সরই ইউনিয়নে জয়নাল আবেদীন প্রকাশ ভেট্টুর তরমুজ খেতে আমার ছোট বোন সাজু আক্তারকে (২৫) অত্যন্ত নির্মমভাবে হত্যা করা হয়। খুনি চট্টগ্রাম জেলার লোহাগাড়া উপজেলার পুটিবিলা ইউনিয়নের গৌড়স্থান সিকদার পাড়ার আব্দুল জব্বার এর ছেলে জয়নাল আবেদীন ভেট্টু। ভেট্টু তার প্রতিপক্ষ লোকজনকে ফাঁসানোর জন্য নিজ হাতে এই হত্যাকাণ্ড সংঘটিত করেন। এই ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শীসহ অন্যান্য স্বাক্ষীদের স্বাক্ষীর ভিত্তিতে পুলিশ আদালতে চার্জশিট দিয়েছে। মামলাটি বর্তমানে স্বাক্ষীর পর্যায়ে রয়েছে। যার মামলা নং- দায়রা ৮১/১০, জি.আর- ৮৭/০৮।

বর্তমানে যখন এই হত্যা মামলাটি স্বাক্ষীর পর্যায়ে রয়েছে ঠিক সেই মুহূর্তে অত্র মামলার আসামী জয়নাল আবেদীন ভেট্টু বাঁচার জন্য তার ভাই আরফাতুল ইসলাম, তার পিতা আব্দুল জব্বার সহ পরিবারের সদস্যগণ নামামুখী ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে। আমাকে সন্ত্রাসী লেলিয়ে দিয়ে একাধিকবার আক্রমণ করা হয়েছে। এদিকে মামলা তুলে নেওয়ার জন্য বিভিন্ন মাধ্যমে হুমকি ও ভয়ভীতি প্রদর্শন অব্যাহত রেখেছে। 

সাজুর বৃদ্ধ মা আসমা খাতুন বলেন, আমরা সাজু আক্তারের পরিবারের সদস্যরা অত্যন্ত গরীব ও দিনমজুর। জয়নাল আবেদীন ভেট্টু পরিবারের সদস্যদের হামলা ও মামলার কারণে আমরা বর্তমানে চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। প্রশাসনের কাছে আমরা নিরাপত্তার দাবি জানাচ্ছি। বৃদ্ধ মা হিসাবে আমি আমার মেয়ের খুনের ন্যায় বিচার দেখে যেতে চাই। 

বিডি প্রতিদিন/হিমেল


আপনার মন্তব্য