শিরোনাম
প্রকাশ : ১৮ জানুয়ারি, ২০২১ ১৮:৫৪
প্রিন্ট করুন printer

৪ দফা দাবিতে শাহবাগে কারিগরী শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক

৪ দফা দাবিতে শাহবাগে কারিগরী শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

দ্রুত ক্লাস শুরু করা ও সংক্ষিপ্ত সিলেবাসের মাধ্যমে পরীক্ষা নেওয়াসহ চার দফা দাবিতে শাহবাগে মানববন্ধন ও অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছে কারিগরী শিক্ষার্থীরা। সোমবার (১৮ জানুয়ারী) সকাল ১০টা থেকে সোয়া একটা পর্যন্ত শাহবাগের জাতীয় জাদুঘরের সামনে এই কর্মসূচি পালন করে রাজধানীর বিভিন্ন কারিগরী কলেজ ও ইন্সটিটিউটের শিক্ষার্থীরা। একই দাবিতে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দিপু মনিকে স্মারকলিপিও দিয়েছে তারা। 

তাদের দাবির মধ্যে আছে- করোনার কারণে সৃষ্ট এক বছর ‘লস’ হওয়া ঠেকানো, প্রথম, তৃতীয়, পঞ্চম ও সপ্তম পর্বের ক্লাস চালু করে সংক্ষিপ্ত সিলেবাসের মাধ্যমে পরীক্ষা নেওয়া, অতিরিক্ত সকল ফি প্রত্যাহার এবং বেসরকারী পলিটেকনিকে সিমেস্টার ফি ৫০ ভাগ মওকুফ করা এবং প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে আসন সংখ্যা বাড়ানো প্রভৃতি। এর আগে, সকাল দশটা থেকে জাদুঘরের সামনে অবস্থান নেয় শতাধিক কারিগরী শিক্ষার্থী। এসময় চার দফা দাবিতে স্লোগান দিতে থাকেন তারা। 

নাঈম খান নামে এক শিক্ষার্থী বলেন, কোনোভাবেই আমরা এক বছর ‘ইয়ার লস’ করতে চাই না। আমাদের দ্বিতীয়, চতুর্থ ও ষষ্ঠ পর্বের তাত্ত্বিক বিষয়গুলো ছেড়ে দেওয়া হোক এবং ব্যবহারিক পরীক্ষাগুলো পরবর্তী পর্বের সাথে যুক্ত করে দেওয়া হোক। আর দ্রুত প্রথম, তৃতীয়, পঞ্চম ও সপ্তম পর্বের ক্লাস শুরু করা হোক এবং সংক্ষিপ্ত সিলেবাসের মাধ্যমে পরীক্ষা নেওয়া হোক। এতে আমাদের ইয়ার লস লাঘব হবে।

তিনি আরও বলেন, দেশের অনেক শিক্ষার্থী বেসরকারী পলিটেকনিকে পড়াশুনা করে। তাদের সিমেস্টার ফি ক্ষেত্রভেদে ১০ থেকে ২০ হাজার টাকা এসেছে। দেখা গেছে, কেউ আজকে ফরম ফিলআপ না করলে পরীক্ষা দিতে পারবে না। কিন্তু টাকার জন্য সেটা করতে পারছে না। আর করোনার মধ্যে এত টাকা অনেকের পক্ষে দেওয়া কষ্টকর। এদিকে, কলেজগুলো এক্ষেত্রে কোনো ছাড় দিচ্ছে না। তাই অতিরিক্ত ফি ও বেসরকারী পলিটেকনিকের সিমেস্টার ফি ৫০ ভাগ মওকুফ করতে হবে। এছাড়াও ২০২১ সালের মধ্যে ডুয়েটসহ দেশের সকল প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ডিপ্লোমা শিক্ষার্থীদের জন্য আসন সংখ্যা বৃদ্ধি করতে হবে। এগুলো আমাদের নৈতিক দাবি। 

আন্দোলনকারী জানান, তাদের দাবি না মানা পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাবেন তারা। এদিকে, কর্মসূচি শেষে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে গিয়ে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দিপু মনিকে একই দাবিতে স্মারকলিপি দেয় আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা।  


বিডি-প্রতিদিন/আব্দুল্লাহ


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর