শিরোনাম
প্রকাশ : ১ জানুয়ারি, ২০২১ ০১:৩১
প্রিন্ট করুন printer

অভিনব কায়দায় লাখ টাকা চুরি, নারী ও শিশুসহ আটক ৫

বিশ্বনাথ (সিলেট) প্রতিনিধি

অভিনব কায়দায় লাখ টাকা চুরি, নারী ও শিশুসহ আটক ৫

পণ্যদ্রব্য কিনতে দোকানের সামনে সিএনজি চালিত অটোরিকশা থামিয়ে ভেতরে ঢুকলেন এক নারী ও দুই শিশুসহ ওই অটোরিকশার বেশ কয়েকজন যাত্রী। ঢুকেই একেকজন একেক দিকে ছড়িয়ে পড়ে শুরু করলেন পণ্যসামগ্রী দেখা। তারপর দরদাম জিজ্ঞাসা। দোকানে একা থাকা মহাজন পুরোদস্তুর হিমশীম খেতে লাগলেন এক সাথে এত ক্রেতাকে সামাল দিতে। 

এই ফাঁকে কোন পণ্য না কিনেই ওই ক্রেতাদের একজন উঠে পড়লেন দোকানের সামনে রাখা অটোরিকশায়। একইভাবে অন্যরাও কোনো পণ্য না কিনে ধীরে ধীরে সেই অটোরিকশায় উঠে পড়ায় সন্দেহ দেখা দেয় মহাজনের। তিনি তাৎক্ষণিক তার ক্যাশ ঠিক আছে কি না দেখতে গিয়ে দেখলেন ক্যাশে থাকা প্রায় এক লাখ টাকার একটি টাকাও নেই। 

সাথে সাথে তিনি তাদেরকে আটকাতে গেলে তারা অটোরিকশা নিয়ে পালানোর চেষ্টা চালায়। যাওয়ার পথে স্থানীয় মসজিদের মোয়াজ্জিন অটোরিকশা থামাতে চাইলে তাকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে চলে যেতে থাকে অটোরিকশাটি। কিন্তু নাছোড়বান্দা মহাজন আরেকটি গাড়ি নিয়ে পিছু নেন ওই অটোরিকশার। পথিমধ্যে চুরির টাকাসহ ২ জন অটোরিকশা থেকে নেমে পালিয়ে যায়। মহাজন অটোরিকশাটির পিছু না ছেড়ে কিছুটা পথ পেরিয়ে স্থানীয়দের সহযোগিতায় এক নারী ও দুই শিশুসহ ৫ জনকে আটক করতে সক্ষম হন।

নাটকীয় স্টাইলে এই চুরি ও চুরির সাথে জড়িতদের আটকের ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার (৩১ ডিসেম্বর) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলার রামপাশা ইউনিয়নের রামপাশা কোনাপাড়া গ্রামের ‘হোসনা ভ্যারাইটিজ স্টোর’ নামের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে। খবর পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে নারী-শিশুসহ আটক ৫জন ও তাদের চুরির কাজে ব্যবহৃত অটোরিকশাটি থানায় নিয়ে আসে। বারবার বিভ্রান্তিকর তথ্য দেয়ায় তাদের সঠিক পরিচয় জানাতে পারেনি পুলিশ।

হোসনা ভ্যারাটিজ স্টোরের স্বত্তাধিকারী মাফিজ আলী জানান, নারী ও শিশুসহ তারা বেশ কয়েকজন একসাথে দোকানে প্রবেশ করে। আমাকে নানাভাবে ব্যস্ত রেখে এক ফাঁকে আমার ক্যাশে থাকা প্রায় একলক্ষ টাকা নিয়ে তারা চম্পট দিতে চেয়েছিল। আমি পিছু না ছেড়ে তাদেরকে ধরতে সক্ষম হয়েছি। যদিও আমার ক্যাশের ওই টাকাসহ অটোরিকশা থেকে ২ জন পালিয়ে গেছে।

বিশ্বনাথ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শামীম মুসা জানান, নারীসহ আটক ৩ জনের পরিচয় জানার চেষ্টা করছে পুলিশ। তাদের সাথে দু'টি শিশুও রয়েছে। চুরি যাওয়া টাকা উদ্ধারের পাশাপাশি এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।


বিডি-প্রতিদিন/ তাফসীর আব্দুল্লাহ


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২২:২৯
প্রিন্ট করুন printer

কানাইঘাট পৌরসভার মেয়র পদের গেজেট স্থগিত

নিজস্ব প্রতিবেদক, সিলেট:

কানাইঘাট পৌরসভার মেয়র পদের গেজেট স্থগিত

সদ্য সমাপ্ত সিলেটের কানাইঘাট পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদের গেজেট ও শপথ স্থগিত করার আদেশ দিয়েছেন উচ্চ আদালত। কানাইঘাট পৌরসভা নির্বাচনে স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী সোহেল আমিনের রিট আবেদনের প্রেক্ষিতে গত মঙ্গলবার হাইকোর্ট বিভাগের ৩ বিচারপতির সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এই আদেশ প্রদান করেন।

গত মঙ্গলবার হাইকোর্টের এ আদেশের কথা জানিয়েছে উপজেলা নির্বাচন কার্যালয়ের একটি সূত্র।

সূত্র জানায়, মেয়র পদের গেজেট ও শপথ স্থগিত করার পাশাপাশি কানাইঘাট উপজেলার ফাটাহিজল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, শিবনগর দারুল কোরআন মাদ্রাসা ও দূলর্ভপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভোটকেন্দ্রের ফলাফল পুনঃগণনার আদেশ দিয়েছেন উচ্চ আদালত।
একই সাথে ফাটাহিজল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রের দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রিসাইডিং অফিসার শাখাওয়াতকে আগামী ৭ দিনের মধ্যে উচ্চ আদালতে উপস্থিত হয়ে ব্যাখ্যা প্রদানের আদেশ দেন আদালত।

প্রসঙ্গত, গত ১৪ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত কানাইঘাট পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগের প্রার্থী লুৎফুর রহমান ১৪৬ ভোটের ব্যবধানে বিজয়ী হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন সোহেল আমিন। 

বিডি প্রতিদিন/ মজুমদার 


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২১:১৮
প্রিন্ট করুন printer

মা-ভাইয়ের হামলায় আহত স্ত্রীকে নিয়ে হাসপাতালে অটোচালক

নেত্রকোনা প্রতিনিধি

মা-ভাইয়ের হামলায় আহত স্ত্রীকে নিয়ে হাসপাতালে অটোচালক

নেত্রকোনায় মা ভাইদের হামলায় আহত হয়ে স্ত্রীকে নিয়ে হাসপাতালে অটোচালক মাহবুবুর রহমান। জেলার বারহাট্টা উপজেলার সাহতা ইউনিয়নের কদমদেওলী গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে গতকাল মঙ্গলবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) রাতে। এরপর এলাকাবাসীর সহায়তায় নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয় লাকী আক্তার (৩২)-কে। কিন্তু সাথে ৬ মাসের দুধের শিশু থাকায় বিপাকে অটোচালক মাহবুবুর রহমান। শিশু সন্তানকে কোলে নিয়েই বিচার চেয়ে ঘুরছেন দ্বারে দ্বারে।  

বুধবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) বিকালে খবর পেয়ে নেত্রকোনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মোরশেদা খাতুন জানান, বারহাট্টা থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিলে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে। 

এ ব্যাপারে স্থানীয় ভাবে করনীয় বিষয়ে বারহাট্টা উপজেলার সাহতা ইউপি চেয়ারম্যান পল্টন সরকারের মোবাইলে বারবার ফোন করলেও তিনি রিসিভ করেননি। 

তবে বারহাট্টা থানার ওসি মিজানুর রহমান জানান, একটি অভিযোগ পেয়েছেন তিনি। মাহবুবের মা ছেলেকে অত্যাচার করার। সেখানে তিনি পুলিশ পাঠিয়েছেন। বিষয়টি দেখবেন। 

নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে চিকিৎসারত আহত লাকী আক্তার ও তার স্বামী অটো চালক মাহবুবুর রহমান জানান, তারা দুই বছর পূর্বে বিয়ে করেন। এরপর স্বামী স্ত্রী মিলে পরিবারে টাকা পয়সা দিয়ে এমনকি একটি ঘরও করে দিয়েছেন। কিন্তু মাহবুবুর রহমানের মা হেনা আক্তার ও বোন লিপি আক্তার, ভাই জুয়েলসহ সবাই মিলে তাদেরকে মারধর করে বাড়ি ছেড়ে দেয়ার জন্য। পাশাপশি টাকা দেয়ার জন্য। যতক্ষন তারা টাকা দেয় ততক্ষণই ভালো থাকে। এভাবে প্রায় সময়ই মারধর করে। গত রাতে মারতে মারতে লাকীর মাথা ফাটিয়ে দিয়েছে। ছেলেকে উলঙ্গ করে মেরেছে।
 
মাহবুবুর বলেন, তার পরিবারের সদস্যরা এলাকায় অন্যান্য মানুষদেরকেও এভাবে হয়রানি করে এবং সাথে সাথে নিজেরা মারমারি করে থানায় গিয়ে মিথ্যা মামলা দেয়। তারা আমার সংসারে এমন অশান্তি শুরু করেছে। এর থেকে তিনি ও তার স্ত্রী এবং ৬ মাস বয়সী দুধের শিশু রেহাই চান। 

 

বিডি-প্রতিদিন/আব্দুল্লাহ সিফাত


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২০:৫৮
প্রিন্ট করুন printer

করোনার টিকা নিলেন মেয়র আরিফ

নিজস্ব প্রতিবেদক, সিলেট

করোনার টিকা নিলেন মেয়র আরিফ

সিলেটে গত ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হয়েছে করোনা ভ্যাকসিন প্রদান কার্যক্রম। প্রথম দিন ইচ্ছা থাকলেও শারীরিক অসুবিধার কারণে ভ্যাকসিন নিতে পারেননি সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। 

শেষ পর্যন্ত বুধবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তিনি করোনার টিকা নিয়েছেন।  টিকা নেয়ার পর হাসপাতালে প্রায় আড়াই ঘণ্টা বিশ্রাম নেন মেয়র আরিফ। বুধবার বিকেল পর্যন্ত তার শরীরে কোন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া পরিলক্ষিত হয়নি বলে জানিয়েছেন তিনি। 

 

বিডি-প্রতিদিন/আব্দুল্লাহ সিফাত


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২০:৫০
প্রিন্ট করুন printer

সিলেটে পাঁচ কোটি টাকার মাদক ধ্বংস

নিজস্ব প্রতিবেদক, সিলেট

সিলেটে পাঁচ কোটি টাকার মাদক ধ্বংস

সিলেটের বিভিন্ন সীমান্ত থেকে গত দেড় বছরে উদ্ধারকৃত প্রায় পাঁচ কোটি টাকার বিভিন্ন ধরনের মাদকদ্রব্য ধ্বংস করেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)। 

বুধবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) দুপুর ১২ টায় সিলেটের ৪৮ বিজিবি ব্যাটালিয়ন সদর দপ্তরে এই মাদকদ্রব্যগুলো ধ্বংসকরন কার্যক্রম উদ্বোধন করেন বিজিবি উত্তরপূর্ব কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এবিএম নওরোজ এহসান।

ধ্বংসকৃত মাদকদ্রব্যগুলোর মধ্যে ছিল- ১৯ হাজার ৮৮ বোতল ভারতীয় বিভিন্ন ব্রান্ডের মদ, ৪ হাজার ২১ বোতল ফেন্সিডিল, ৯ হাজার ৭৯৩ পিস ইয়াবা, ৯২ কেজি গাঁজা ও ছয় লাখ ৬৯ হাজার পিস ভারতীয় বিড়ি। 

বিজিবি ৪৮ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক আহমদ ইউসুফ জামিল জানান, ধ্বংসকৃত মাদক দ্রব্যের আনুমানিক দাম প্রায় ৪ কোটি ৭৮ লাখ ৬৭ হাজার ৩৩০ টাকা। ২০১৯ সালের ১৩ জুন থেকে ২০২১ সালের ৩১ জানুয়ারী পর্যন্ত  বিভিন্ন সীমান্ত এলাকায় ভারত থেকে অবৈধভাবে নিয়ে আসা এসব মাদক দ্রব্যগুলো উদ্ধার করা হয়।

সীমান্ত দিয়ে মাদক প্রবেশ বন্ধে বিজিবির তৎপরতা আরা বাড়ানা হয়েছে বলে জানান বিজিবি কর্মকর্তা জামিল।


বিডি-প্রতিদিন/আব্দুল্লাহ সিফাত


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১৩:২১
আপডেট : ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১৩:৪৭
প্রিন্ট করুন printer

ব্যাংক কর্মকর্তা হত্যা মামলার প্রধান আসামি কারাগারে

সিলেট ব্যুরো

ব্যাংক কর্মকর্তা হত্যা মামলার প্রধান আসামি কারাগারে
ব্যাংকার মওদুদ হত্যা মামলার প্রধান আসামি নোমান হাছনুরকে কারাগারে নেওয়া হচ্ছে

সিলেটে পরিবহন শ্রমিকদের হামলায় অগ্রণী ব্যাংক কর্মকর্তা মওদুদ আহমেদ হত্যা মামলার প্রধান আসামি সিএনজি অটোরিকশাচালক নোমান হাছনুর আদালতে আত্মসমর্পণ করেছেন। 

আজ বুধবার সকাল ১১টায় মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট ২য় আদালতে তিনি আত্মসমর্পণ করেন। শুনানি শেষে বিচারক তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। হাছনুর সিলেট সদর উপজেলার জালালাবাদ ইউনিয়নের টুকেরগাঁও পশ্চিমপাড়া গ্রামের আব্দুল হান্নানের ছেলে।

জানা যায়, এর আগে গত শনিবার (২১ ফেব্রুয়ারি) সিলেট নগরীর কোর্ট পয়েন্ট এলাকায় ভাড়া নিয়ে বাকবিতণ্ডার জেরে হাছনুরসহ তার কয়েকজন সহযোগী ব্যাংক কর্মকর্তা মওদুদ আহমদকে মারধর করে। তাকে গুরুতর আহতাবস্থায় সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

নিহত মওদুদ সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলায় অগ্রণী ব্যাংকের হরিপুর গ্যাস ফিল্ড শাখার কর্মকর্তা ছিলেন। তার বাড়ি ময়মনসিংহ জেলার গৌরীপুরের বাসিন্দা। 

মৃত্যুর পর হত্যাকাণ্ডকে সড়ক দুর্ঘটনা বলে প্রচার চালায় পরিবহন শ্রমিকরা। এ ঘটনায় নিহত মওদুদের বড়ভাই আব্দুল ওয়াদুদ বাদী হয়ে কোতোয়ালি থানায় সিএনজি অটোরিকশাচালক নোমান হাছনুর নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাত কয়েকজনকে আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করেন কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এসএম আবু ফরহাদ। তিনি জানান, মওদুদকে হত্যা করার অভিযোগে থানায় মামলা হলে পুলিশ এজহার নামীয় আসামি হাছনুরকে গ্রেফতার করতে একাধিকবার অভিযান চালিয়েছে। কিন্তু সে পলাতক থাকায় গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি। আজ সকালে সে আদালতে আত্মসমর্পণ করেছে। বাকি আসামিদেরও চিহ্নিত করার চেষ্টা চলছে।

বিডি প্রতিদিন/আবু জাফর


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর