Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ২১ মার্চ, ২০১৯ ২০:৪১

অনলাইনে রাজস্ব আদায় করবে চসিক

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম

অনলাইনে রাজস্ব আদায় করবে চসিক

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন (চসিক) হোল্ডিং ট্যাক্স, ট্রেড লাইসেন্স ফিসহ নানা চার্জ অনলাইনে গ্রহণ করবে। এ নিয়ে প্রাথমিকভাবে চারটি ব্যাংকের সঙ্গে সমঝোতা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে চসিকের কনফারেন্স হলে চার ব্যাংকের সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। 

চসিকের পক্ষে প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সামসুদ্দোহা এবং ব্যাংকের মধ্যে প্রাইম ব্যাংকের পক্ষে ইভিপি ও টিম লিডার মো. আনোয়ারুল ইসলাম, ডাচ বাংলা ব্যাংকের অপারেশন ব্রাঞ্চ প্রধান মোশারফ হোসেন, ওয়ান ব্যাংকের অতিরিক্ত উপ ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফজলুর রহমান চৌধুরী ও সাউথইস্ট ব্যাংকের উপ ব্যবস্থাপনা পরিচালক আনোয়ার উদ্দীন স্বাক্ষর করেন। মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, ব্যাংকের মাধ্যমে রাজস্ব আদায়ে আগ্রহী ব্যাংকগুলোর কাছ থেকে গত বছর ২১ জুন আবেদন আহবান করে চসিক। এর প্রেক্ষিতে ১১টি ব্যাংক আবেদন করলে সাতটি বাছাই করে চসিক। এর মধ্যে গতকাল চারটি ব্যাংকের সঙ্গে গতকাল চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।

মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, ‘অটোমেশন পদ্ধতি চালুর ফলে নগরবাসী ঘরে বসেই তাদের হ্যোল্ডিং ট্যাক্স, ট্র্রেড লাইসেন্স ফি, মার্কেটের দোকান ভাড়া, উন্নয়ন চার্জ এবং ইজারাকৃত সম্পত্তির যাবতিয় কর ও ফি অন-লাইনের মাধ্যমে পরিশোধ করতে পারবেন। এতে কর প্রদান প্রক্রিয়া সহজ হবে, ট্যাক্স আদায়ের হারও বাড়বে কয়েকগুণ।’

মেয়র বলেন, ‘চসিকের আয়ের প্রধান উৎস পৌরকর। এর ওপর নির্ভর করেই চসিক যাবতীয় সেবা কার্যক্রম পরিচালনা করে। তাই পৌর কর আদায়ের প্রক্রিয়াটিকে হয়রানি মুক্ত করার জন্য অনলাইন প্রক্রিয়া চালু করা হচ্ছে। অটোমেশন হচ্ছে যে কোনো ধরণের জটিলতা নিরসনে একটি নিরাপদ পদ্ধতি। শুধু তাই নয়, সর্বোচ্চ কর আদায়ের জন্য প্রযুক্তি সর্বোত্তমও বটে। জনঅধিকার নিশ্চিতকরণে কার্যকর প্রদক্ষেপ গ্রহণের অংশ হিসেবে এই অটোমেশন পদ্ধতি চালু করা হলো।’

তিনি বলেন, ‘নানা কারণে আমরা সরকারের নির্ধারিত লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী পৌরকর আদায় করতে পারছিনা। আমি যখন দায়িত্ব গ্রহণ করি, তখন সিটি কর্পোরেশনে কর্মকর্তা-কর্মচারীর বেতন ছিল ৯ কোটি টাকা। এখন বৃদ্ধি পেয়ে হয়েছে ২০ কোটি টাকা। এ খরচ যোগাতে কর্পোরেশনকে পৌরকর আদায়ে জোর দিতে হচ্ছে। কর্পোরেশনের শিক্ষা, স্বাস্থ্য, পরিচ্ছন্নতাসহ বিবিধ সেবা সচল রাখতে হলে নগরবাসীকে নিয়মিত ট্যাক্স দিয়ে সহযোগিতা করতে হবে। নচেৎ কর্পোরেশনের সেবা সচল রাখা কঠিন হয়ে পড়বে।’


বিডি-প্রতিদিন/আব্দুল্লাহ তাফসীর


আপনার মন্তব্য