শিরোনাম
প্রকাশ : ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১৮:৫৩

চট্টগ্রাম বন্দরে পাকিস্তানের ১৭৫ টন পিঁয়াজ খালাস

ফারুক তাহের, চট্টগ্রাম:

চট্টগ্রাম বন্দরে পাকিস্তানের ১৭৫ টন পিঁয়াজ খালাস
ফাইল ছবি

বাজারে পিঁয়াজের সংকট ও বাজার দর কমাতে ব্যবসায়ীদের এলসি করা চালানগুলো একের পর এক আসতে শুরু করেছে বন্দরে। ইতিমধ্যে চট্টগ্রাম বন্দর দিয়ে মিয়ানমার, পাকিস্তান থেকে আসা পিঁয়াজের চালান খালাস হয়েছে। বুধবার পাকিস্তান থেকে আমদানি করা ১৭৫ টন পিঁয়াজ খালাস হয়। 

এর আগে সোমবার মিয়ানমার থেকে আসা ৫৮ মেট্রিকটনের প্রথম চালনটি খালাস হয় চট্টগ্রাম বন্দরে। খালাসের অপেক্ষায় রয়েছে সংযুক্ত আরব আমিরাত (ইউএই) থেকে আসা আরো একটি চালান। এই চালানটি ঢাকার সজীব এন্টারপ্রাইজের নামে ইউএই থেকে এসেছে। এতে ২৯ টন পিঁয়াজ রয়েছে। প্রতিষ্ঠানটির নামে পাকিস্তান থেকে আসা ২ কনটেইনারে ৫৯ টন পিঁয়াজ খালাস হয়েছে বুধবার। ভারতের বিকল্প হিসাবে অন্তত ১২টি দেশের পিঁয়াজে দেশের বাজার সয়লাব হয়ে যাবে বলে ধারণা করছেন দেশের পাইকারি ও খুচরা ব্যবসায়ীরা। এছাড়া বাংলাদেশ ট্রেডিং করপোরেশনের (টিসিবি) ট্রাকগুলোতেও এখন মিলবে দেশি পিঁয়াজ।

টিসিবির চট্টগ্রাম আঞ্চলিক প্রধান জামাল উদ্দিন আহমদ জানান, এখন থেকে টিসিবির ট্রাকে দেশি পিঁয়াজ বিক্রি হবে ভোক্তা পর্যায়ে প্রতি কেজি ৩০ টাকা। নগরের বিভিন্ন স্পটে ২০টি ট্রাকে পিঁয়াজ, চিনি, সয়াবিন তেল, মশুর ডাল বিক্রি হচ্ছে। প্রতিটি ট্রাকে ২০০ কেজি পিঁয়াজ দেওয়া হচ্ছে।

এদিকে চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দরের উদ্ভিদ সংগনিরোধ কেন্দ্রের উপ-পরিচালক ড. মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান বুলবুল জানান, মিয়ানমার ও পাকিস্তান থেকে আসা ১৭৪ টন পিঁয়াজের ছাড়পত্র ইস্যু করেছি আমরা। এ কেন্দ্র থেকে ১ লাখ ৪৭ হাজার ৫৫৪ টন পিঁয়াজ আমদানির জন্য ৩২২টি অনুমতিপত্র (আইপি) নিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। চীন, মিশর, তুরস্ক, মায়ানমার, নিউজিল্যান্ড, নেদারল্যান্ডস, মালয়েশিয়া, সাউথ আফ্রিকা, ইউক্রেন, সংযুক্ত আরব আমিরাত (ইউএই), ভারত (২০০ টন) ও পাকিস্তান- এ ১২ দেশ থেকে এসব পেঁয়াজ আনবেন তারা।

বিডি প্রতিদিন/ মজুমদার


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর