শিরোনাম
প্রকাশ : ৭ এপ্রিল, ২০২০ ২০:১২
আপডেট : ৭ এপ্রিল, ২০২০ ২০:২৭

বৈশাখ মাতাবে না শখের হাঁড়ি!

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী:

বৈশাখ মাতাবে না শখের হাঁড়ি!
পহেলা বৈশাখের আর কয়েকটা দিন বাকি। এ সময় ব্যস্ততা থাকে মৃৎ শিল্পীদের। কিন্তু কুমোরপাড়ায় যেন নিস্তব্ধতা। বৈশাখী উৎসবের প্রস্তুতিকে ঘিরে ব্যস্ততায় দিন কাটছে তাদের। কিন্তু সেই শখের হাঁড়ি এবার মাতাবে না বৈশাখ। কারণ বৈশাখ পালন এবার হচ্ছে না আড়ম্বরে। 
 
রাজশাহীর পবা উপজেলার বাগধানী বসন্তপুর এলাকার ‘ঐতিহ্যবাহী শখের হাঁড়ি’ তৈরির কারিগরের বাড়িতে এমন চিত্র দেখা যায়। অন্য বৈশাখে বাড়ির সদস্যদের যেনো দম ফেলার সময়টুকুও থাকে না। এবার তার উল্টো চিত্র।
 
বাড়ির সামনের সুশান্ত কুমার পাল তৈরি করছেন ছোট ছোট হাঁড়ি। পাশেই কাজ করছে সঞ্জয় কুমার পাল। তাকে সাহায্য করছেন বাড়ির সদস্যরা। তিনি ছোট ছোট হাঁড়ি তৈরি করছেন। বাড়িতে ঢুকতেই চোখে পড়ে ব্যস্ততার ছবি। পরিবারের একেকজন একেক কাজে ব্যস্ত। উদ্দেশ্যে পহেলা বৈশাখ। কেউ প্রস্তুত করছে মাটি, কেউ তৈরি করছে বিভিন্ন জিনিসপত্র। আবার কেউ বা রঙের তুলির শেষ আঁচড় কাটছেন নানা ধরনের সখের হাঁড়িতে। 
 
রঙের তুলির আঁচড়ে পরিবারের ছোট সদস্যরাই অংশ নিচ্ছে। ১০ বছরের সঞ্জিতা রানী পাল। সেই সখের হাঁড়িতে বিভিন্ন আলপনা আঁকছে নিজের ইচ্ছেমত। আবার বাবা-মাদের দেখানো নকশায় তুলির আঁচড় কাটছে সে। কিন্তু মুখে নেই হাসি। পুরো মুখে মলিনতা ফুটে উঠেছে করোনার কারণে। 
 
সঞ্জয় কুমার পাল বলেন, কাজ চলছে। তবে করোনার কারণে এবার বৈশাখ হচ্ছে না। তাই এতো প্রস্তুতির পরও তারা মেলায় নিতে পারবেন না শখের হাঁড়ি। 
 
কারুশিল্পী সুশান্ত কুমার পাল জানান, আগামী ১০ থেকে ১১ এপ্রিল রাজশাহী থেকে তৈরি ‘সখের হাঁড়ি’ ঢাকায় নিয়ে আসা হবে। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে সেখানে যদি ভালো বেচা-বিক্রি করা যায়!
 
বিডি প্রতিদিন/হিমেল

আপনার মন্তব্য