শিরোনাম
প্রকাশ : ২৬ মে, ২০২০ ১৯:০১

কিট নিয়ে ব্যস্ততা ডা. জাফরুল্লাহর করোনা ঝুঁকি বাড়িয়েছে : ঐক্যফ্রন্ট

অনলাইন ডেস্ক

কিট নিয়ে ব্যস্ততা ডা. জাফরুল্লাহর করোনা ঝুঁকি বাড়িয়েছে : ঐক্যফ্রন্ট
ফাইল ছবি

নিজের প্রতিষ্ঠান গণস্বাস্থ্য উদ্ভাবিত ‘জি র‍্যাপিড ডট ব্লট’ কিটের পরীক্ষায় ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর করোনা শনাক্ত হয়েছে। তার রোগ মুক্তি কামনা করলেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতৃবৃন্দ। তাদের পক্ষে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের দপ্তর প্রধান জাহাঙ্গীর আলম মিন্টুর পাঠানো বিবৃতিতে বলা হয়, করোনা শনাক্তকরণ কিটের জন্য অনেক বেশি কাজ করে ডা. জাফরুল্লাহ সংক্রমণের ঝুঁকি অনেক বাড়িয়েছেন।

মঙ্গলবার ঐক্যফ্রন্ট নেতারা বলেন, আমরা আশা করি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর অসুস্থতা মৃদু উপসর্গের মধ্য দিয়ে শেষ হবে। কিন্তু এই রোগ কতটা ভয়ঙ্কর হতে পারে সেটা আমরা সারা পৃথিবীতে এবং এই দেশেও দেখছি। তার বয়স এবং অন্যান্য শারীরিক জটিলতা বিবেচনায় নিলে তিনি নিশ্চিতভাবেই খুবই ঝুঁকিপূর্ণ রোগীর হিসেবেই চিহ্নিত হবেন।

দেশের সামগ্রিক করোনা ব্যবস্থাপনা নিয়ে বলা হয়, করোনা রোগীদের চিকিৎসার ক্ষেত্রে নানা রকম অনিয়ম শুরু থেকে দেখা যাচ্ছে যা এখনো চলছে। আমরা আশা করি তার (ডা. জাফরুল্লাহ) রোগ জটিল হবে না, কিন্তু তেমন পরিস্থিতি হলে যেন এক মুহূর্ত সময়ও নষ্ট না হয় তাকে চিকিৎসা দিতে। সেটা নিশ্চিত করতে তার জন্য দেশের সর্বোচ্চমানের হাসপাতালে সর্বোচ্চমানের চিকিৎসা ব্যবস্থা আগে থেকেই প্রস্তুত রাখতে হবে। একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা এবং এখন পর্যন্ত সর্বস্ব দিয়ে দেশের জন্য কাজ করে যাওয়া মানুষটির এইটুকু মনোযোগ রাষ্ট্রের পক্ষ থেকে প্রাপ্য।

বিবৃতিতে গণস্বাস্থ্য উদ্ভাবিত টেস্ট কিট অনুমোদন নিয়ে জটিলতা প্রসঙ্গে বলা হয়, গত বেশ কিছুদিন ধরে করোনা শনাক্তকরণ কিটের জন্য অনেক বেশি কাজ করে তিনি সংক্রমণের ঝুঁকি অনেক বাড়িয়েছেন, এটা নিশ্চিতভাবেই বলা যায়। অত্যন্ত দুঃখজনক ব্যাপার হচ্ছে, সরকার পদে পদে বাধা সৃষ্টি করে এখনো কিটটি বাজারে আসতে দেয়নি। দেশে সামাজিকভাবে করোনা ছড়িয়ে পড়ার এই সময়ে সরকারি টেস্টের চরম অপ্রতুলতার মধ্যে এই কিট জনগণকে খুবই সাহায্য করতে পারত। কিটের পরীক্ষার ফলাফল অতি দ্রুত প্রকাশ করে সেই ব্যাপারে অনতিবিলম্বে সিদ্ধান্ত নেয়ার জন্য আমরা জোর দাবি জানাচ্ছি।

ডা. জাফরুল্লাহ আশু রোগমুক্তি কামনা করছি। জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট অতীতের মতো তার সব প্রয়োজনে সঙ্গে থাকবে বলেও উল্লেখ করা হয়। বিবৃতিদাতাদের মধ্যে রয়েছেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন, বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, জেএসডি সভাপতি আ স ম আবদুর রব, বিএনপির  জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আবদুল মঈন খান সদস্য, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহামুদুর রহমান মান্না, গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক ড. রেজা কিবরিয়া, বিকল্প ধারা বাংলাদেশের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. নুরুল আমিন বেপারী।

বিডি-প্রতিদিন/শফিক


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর