শিরোনাম
প্রকাশ : ৩ ডিসেম্বর, ২০২০ ১০:৫৪
আপডেট : ৩ ডিসেম্বর, ২০২০ ১০:৫৯
প্রিন্ট করুন printer

আশুলিয়ায় পারিবারিক কলহের জেরে তরুণীকে এসিড নিক্ষেপ

সাভার প্রতিনিধি

আশুলিয়ায় পারিবারিক কলহের জেরে তরুণীকে এসিড নিক্ষেপ
প্রতীকী ছবি

আশুলিয়ায় পারিবারিক কলহের জের ধরে সড়কে পোশাক শ্রমিক তরুণীকে এসিড নিক্ষেপ করেছে সাবেক স্বামী। এসময় চোখ ও মুখসহ বুক পর্যন্ত ঝলসে যাওয়া ওই তরুণীকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। 

এ ঘটনায় অভিযুক্ত ব্যক্তি রঞ্জু মিয়াকে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোর্পাদ করেছে স্থানীয়রা। গতকাল বুধবার (২ ডিসেম্বর) গভীর রাতে  দিকে আশুলিয়ার জামগড়ায় এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। ওই তরুণীকে উদ্ধার করতে গিয়ে স্থানীয় দুই যুবকও এসিডে দগ্ধ হন বলে জানা গেছে। 

ভুক্তভোগী নারীর নাম দোলনা আক্তার রিমা (১৮)। তিনি আশুলিয়ায় দি ড্রেস এন্ড দি আইডিয়াস পোশাক কারখানায় চাকরি করেন। রিমার গ্রামের বাড়ির জামালপুরের মেলান্দহ থানায় ও অভিযুক্ত সাবেক স্বামী রঞ্জু মিয়া বাড়িও একই এলাকায়। 

পুলিশ ও ভুক্তভোগী মেয়ের পরিবার জানায়, দোলনা আক্তার নামে ওই তরুণী কাজ শেষে বাড়ি ফেরার পথে জামগড়ায় একটি সড়কে আগে থেকে ওৎ পেতে থাকা রঞ্জু তাকে এসিড নিক্ষেপ করে। এসময় স্থানীয়রা ঝলসে যাওয়া দোলনাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠিয়েছে ও সাবেক স্বামীকে পুলিশে সোর্পাদ করে।

প্রাথমিকভাবে জানা যায়, গত ৩ মাস আগে পারিবারিক কলহের জের ধরে তাদের ডির্ভোস হয়। পরে দোলনা আশুলিয়ায় এসে পোশাক কারখানায় চাকরি নেয়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে রঞ্জু মিয়া গ্রাম থেকে আশুলিয়ায় এসে তাকে এসিড নিক্ষেপ করে। এ ঘটনায় আশুলিয়া থানায় মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে।


বিডি-প্রতিদিন/আব্দুল্লাহ


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৭ জানুয়ারি, ২০২১ ২৩:১২
প্রিন্ট করুন printer

রাজধানীতে চুরি করা স্বর্ণসহ গ্রেফতার ৬

নিজস্ব প্রতিবেদক

রাজধানীতে চুরি করা স্বর্ণসহ গ্রেফতার ৬

রাজধানীর পূর্ব রামপুরার একটি বাসা থেকে চুরি করা স্বর্ণসহ ছয়জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তারা হলেন মো. রুবেল শেখ, মো. সোহেল ওরফে জামাই সোহেল, ফরহাদ ফকির, মো. বিল্লাল হোসেন-১, মো. বিল্লাল হোসেন-২ ও মামুনুর রশিদ।

আজ সোমবার ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ ও গাজীপুরে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়। অভিযানে ডাকাতি করা ৬ ভরি স্বর্ণ তাঁতীবাজারের শিফা বুলিয়ান স্টোর (সোনার দোকান) থেকে উদ্ধার করা হয়।

পুলিশ বলছে, মঙ্গলবার তাদের আদালতে পাঠিয়ে ৫ দিন করে রিমান্ড আবেদন করা হয়। এদের মধ্যে মো. রুবেল শেখ, মো. বিল্লাল হোসেন-১ ও মামুনুর রশিদ আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। এছাড়া মো. সোহেল ওরফে জামাই সোহেল, ফরহাদ ফকির ও মো. বিল্লাল হোসেন-২ এর তিনদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করে আদালত। গ্রেফতারকৃতরা পেশাদার ছিনতাইকারী। তাদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় চুরি, ডাকাতিসহ একাধিক মামলা রয়েছে।

রামপুরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল কুদ্দুস ফকির বলেন, গত ১২ জানুয়ারি রাতে সৈয়দ আলী ইমামের ছেলে সৈয়দ তানভীর ইমামের ২৩/১ পূর্ব রামপুরার বাসায় চুরি হয়। চোররা তানভীরের মা হাসিনা ইমামের দ্বিতীয় তলার বাসায় প্রবেশ করে। তাকে চেয়ারে বসিয়ে দুই হাত বাধা হয়। বাঁধা দিলে মাথায় চাপাতির বাট দিয়ে আঘাত করা হয়। ওই বাসার ড্রাইভার রিয়াজুল খালাশি বিষয়টি টের পেলে তাকেও দুই হাত বেঁধে মুখে কাপড় গুজে দেওয়া হয়।

চোর চক্র বেড রুমের পাশের রুমের জানালার গ্রিল ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করে। পরে তারা ৮০ হাজার টাকা, ৫ ভরি ১২ আনা স্বর্ণালংকার ও একটি মোবাইল ফোন নিয়ে যায়। যাওয়ার সময় তাদের হাতে থাকা একটি চাকু ও একটি গলার মাফলার ফেলে যায়। পরে এ বিষয়ে ভুক্তভোগীরা রামপুরা থানায় মামলা করে। ওই মামলা তদন্তে সিসিটিভি ফুটেজ ও বিভিন্ন তথ্য উপাত্তের উপর ভিত্তি করে গ্রেফতারকৃত ছয়জনকে শনাক্ত করে গ্রেফতার করা হয়।

বিডি-প্রতিদিন/শফিক


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৭ জানুয়ারি, ২০২১ ২২:৪৪
প্রিন্ট করুন printer

সান্তাহার বিএনপির ৪৬ নেতাকর্মীর হাইকোর্টে জামিন

অনলাইন ডেস্ক

সান্তাহার বিএনপির ৪৬ নেতাকর্মীর হাইকোর্টে জামিন
প্রতীকী ছবি

বগুড়ার আদমদীঘির সান্তাহার পৌরসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে নৌকা প্রার্থীর নির্বাচনী ক্যাম্পে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ধানের শীষের নবনির্বাচিত মেয়র তোফাজ্জল হোসেন ভুট্টু সমর্থিত ৪৬ বিএনপি নেতাকর্মীর এক মাসের আগাম জামিন মঞ্জুর করেছেন হাইকোর্ট।

আজ বুধবার হাইকোর্টের বিচারপতি হাবিবুল গনি ও বিচারপতি মো. রিয়াজ উদ্দিন খানের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আদালতে আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট আসাদুজ্জামান। তার সঙ্গে ছিলেন আজমল হোসেন খোকন।

গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মেয়র তোফাজ্জল হোসেন ভুট্টু। আসামিদের জামিনের মেয়াদ শেষ হলে বিচারিক (নিম্ন) তাদের আদালতে আত্মসমর্পণ করতে বলে। পরে আজ বুধবার দুপুরে অভিযুক্তরা হাইকোর্টে হাজির হয়ে এক মাসের জামিন পান। 

বিডি-প্রতিদিন/শফিক


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৭ জানুয়ারি, ২০২১ ২১:৪৬
প্রিন্ট করুন printer

শাহজালাল বিমানবন্দরে স্বর্ণসহ আটক ১

অনলাইন ডেস্ক

শাহজালাল বিমানবন্দরে স্বর্ণসহ আটক ১
প্রতীকী ছবি

রাজধানীর হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিপুল স্বর্ণালঙ্কার, আইফোন ও ল্যাপটপসহ একজনকে আটক করেছে বিমানবন্দর আর্মড পুলিশ। আটক ব্যক্তির নাম আশিকুল ইসলাম (৩২)। 

আজ বুধবার বিমানবন্দরের ৩২ নম্বর আগমনী টার্মিনালের আউট গেটের পার্কিংয়ের পশ্চিম পাশে থেকে তাকে আটক করা হয়। তার থেকে উদ্ধার হওয়া স্বর্ণ ও জিনিসপত্রের আনুমানিক বাজার মূল্য ৫০ লাখ টাকা।

বিমানবন্দর আর্মড পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আলমগীর হোসেন গণমাধ্যমকে এ খবর নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, আশিকুল চোরাচালান চক্রের সদস্য। দীর্ঘদিন থেকে তিনি চোরাচালানে জড়িত। 

বিডি-প্রতিদিন/শফিক


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৭ জানুয়ারি, ২০২১ ২১:৩৭
আপডেট : ২৮ জানুয়ারি, ২০২১ ০০:০৪
প্রিন্ট করুন printer

মেয়র কাদের মির্জাকে নাগরিক সংবর্ধনা

অনলাইন ডেস্ক

মেয়র কাদের মির্জাকে নাগরিক সংবর্ধনা

নোয়াখালীর বসুরহাট পৌরসভা নির্বাচনে চতুর্থবারের মতো মেয়র পদে নির্বাচিত আলোচিত মেয়র আবদুল কাদের মির্জাকে নাগরিক সংবর্ধনা দেওয়া হয়েছে। আজ বুধবার সন্ধ্যা ৬টায় বসুরহাট সরকারি মুজিব কলেজ মাঠে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে এ নাগরিক সংবর্ধনা দেওয়া হয়। 

নাগরিক সংবর্ধনার শুরুতে মঞ্চ থেকে নেমে আগত অতিথিদেরও ফুলের পাপড়ি ছিটিয়ে বরণ করেন নবনির্বাচিত মেয়র। কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শাহাব উদ্দিনের সভাপতিত্বে নাগরিক সংবর্ধনায় বক্তব্য রাখেন, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি খিজির হায়াত খান, সাধারণ সম্পাদক নুর নবী চৌধুরী, সিনিয়র সহ-সভাপতি ইস্কান্দর বাবুল প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে নাগরিক সমাজের পক্ষ থেকে ফুল ও ক্রেস্ট দিয়ে মেয়র আবদুল কাদের মির্জাকে বরণ করে নেন উপজেলা চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শাহাব উদ্দিনসহ সংবর্ধনা আয়োজন কমিটির নেতৃবৃন্দরা। এই নাগরিক সংবর্ধনায় এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে সংগীত পরিবেশন করেন কণ্ঠশিল্পী মমতাজ বেগম ও কর্নিয়া প্রমুখ।

বিডি-প্রতিদিন/শফিক


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৭ জানুয়ারি, ২০২১ ১৯:৫৯
প্রিন্ট করুন printer

খুপরি ঘরে বাস করেও সরকারি বরাদ্দের ঘর পেলেন না সুমন-সাথী দম্পতি

নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল

খুপরি ঘরে বাস করেও সরকারি বরাদ্দের ঘর পেলেন না সুমন-সাথী দম্পতি

সহায়-সম্পদ না থাকায় দীর্ঘ দেড় যুগ ধরে একটি গন-শৌচাগারের সেফটিক ট্যাকিংর উপর কোনমতে খুপরি ঘর নির্মাণ করে ৫ সন্তান নিয়ে বসবাস করছেন সুমন-সাথী দম্পতি। স্বামী সুমন পঙ্গু। আশা ছিল মুজিববর্ষে গৃহ ও ভূমিহীনদের জন্য প্রধানমন্ত্রীর দেয়া একটি ঘর পাবেন তিনি। কিন্তু না, তাকে কেউ বিবেচনায় রাখেনি। 

এখনও খুপরি ঘরে কোনমতে স্বামী-সন্তানদের নিয়ে বসবাস করছেন পেশায় সুইপার (মেথর) সাথী বেগম। বরিশালের বাবুগঞ্জ উপজেলার বাবুগঞ্জ বন্দরে গন-শৌচাগারের সেফটিক ট্যাকিংর উপর কোনমতে টিনের ছাউনি দিয়ে এক কক্ষ বিশিষ্ট একটি খুপরি ঘরে বসবাস তাদের। 

স্থানীয় বাসিন্দা মো. সাইফুল ইসলাম জানান, জীবিকার তাগিদে ২০০৩ সালে মাদারীপুরের কালকিনি থেকে স্ব-পরিবারে বরিশালের বাবুগঞ্জে আসেন সুমন-সাথী দম্পতি। নিজস্ব কোন জমিজমা কিংবা বসতি না থাকায় তারা বাবুগঞ্জ বন্দরের গন-শৌচাগারের সেফটিক ট্যাংকির উপর টিনের ছাউনি দিয়ে মানবেতর পরিবেশে বসবাস শুরু করেন। টিনের ঘরটিও এখন জরাজীর্ণ। স্বামী সুমন শারীরিকভাবে অক্ষম। 

মেথরের কাজ করে সংসারের ব্যয়ভার নির্বাহ করেন স্ত্রী সাথী। এক মেয়ে ও ৪ ছেলের মধ্যে বড় ছেলে একটি মোবাইলের দোকানে সেলসম্যানের কাজ করেন। করোনা প্রকোপের প্রথম দিকে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান সরোয়ার মাহমুদ, সমাজসেবক আতিকুর রহমান এবং থানার ওসি মিজানুর রহমান কিছু খাদ্য সহায়তা করেন ওই পরিবারকে। এরপর আর কেউ তাকায়নি তাদের দিকে। 

মুজিব বর্ষে সরকারিভাবে গৃহহীন ও ভূমিহীনদের খাস জমি সহ ঘর দেয়ার খবরে একটি ঘর পাওয়ার আশা করেছিলেন সাথী-সুমনের পরিবার। গত ২৩ জানুয়ারি বাবুগঞ্জ সহ সারা দেশের সকল জেলা উপজেলায় ভূমি ও গৃহহীনদের খাস জমি সহ ঘর দেয়া হলেও সেই তালিকায় নাম নেই গন-শৌচাগারের সেফটিক ট্যাংকির উপর বসবাস করা সুমন-সাথী পরিবারের। 

বাবুগঞ্জ উপজেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, মুজিব বর্ষে প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে বাবুগঞ্জে ১৭০জন ভূমি ও গৃহহীন পরিবারের মধ্যে প্রথম পর্যায়ে ১১০টি ঘরের দায়িত্ব বুঝিয়ে দেয়া হয়েছে। বাকী ৬০টি ঘরের নির্মাণ কাজ চলছে। শীঘ্রই বাকী ৬০টি ঘরের দায়িত্ব হস্তান্তর করা হবে। 

স্থানীয় ইউপি সদস্য জিলানী সাজোয়াল জানান, সরকারের আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর পেতে জাতীয় পরিচয়পত্র থাকা আবশ্যক। কিন্তু ওই দম্পতির জাতীয় পরিচয়পত্র নেই। সময়ের স্বল্পতার কারণে তাদের জাতীয় পরিচয়পত্র তৈরি করা যায়নি। এ কারণে তারা ভূমি ও গৃহহীনদের জন্য বরাদ্দকৃত জমি সহ ঘর থেকে বঞ্চিত হয়েছে। 

বাবুগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আমিনুল ইসলাম বলেন, কি কারণে ভূমি ও গৃহহীন ওই পরিবারের নাম সরকারের আশ্রয়ণ প্রকল্পে অন্তর্ভুক্ত হয়নি তা খতিয়ে দেখবেন তিনি। একই সাথে সুমন-সাথীর পরিবার ভূমি ও গৃহহীন হলে তাদের সরকারিভাবে যথা সম্ভব সকল সাহায্য সহযোগিতা করার প্রতিশ্রুতি দেন তিনি। 

বিডি প্রতিদিন/আবু জাফর


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর