৭ অক্টোবর, ২০২১ ১৮:৫১

যুবলীগ নেতা জামালের অব্যাহতি নিয়ে ধুম্রজাল

নিজস্ব প্রতিবেদক

যুবলীগ নেতা জামালের অব্যাহতি নিয়ে ধুম্রজাল

ঢাকা মহানগর যুবলীগ দক্ষিণের অন্তর্গত মতিঝিল থানা ০৯ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হাসান উদ্দিন জামালের অব্যাহতি নিয়ে ধুম্রজাল সৃষ্টি হয়েছে। গত ২৮ আগস্ট ঢাকা মহানগর যুবলীগ দক্ষিণের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম রেজার স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে জামালকে অব্যাহতি দেওয়া হয়। এই অব্যাহতির বিষয়ে ঢাকা মহানগর যুবলীগ দক্ষিণের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাইনউদ্দিন রানার কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, এই বিষয়ে আমি কিছুই জানি না। অথচ যুবলীগের গঠনতন্ত্রে সাধারণ সম্পাদকের একক সিদ্ধান্তে অব্যাহতি বা বহিস্কারের এমন নজির নেই। এছাড়াও আগস্ট মাসে সংগঠনিক কোন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় না। 

যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ ও সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিলের পক্ষ থেকে সংগঠনের দপ্তর সম্পাদক এর মাধ্যমে প্রেস বিজ্ঞপ্তির জানানো হয়েছে ২৩ জুন ২০২১ তারিখ থেকে পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত কোন কমিটি গঠন, বিলুপ্ত কিংবা কাউকে সংগঠন থেকে বহিষ্কার কিংবা অব্যাহতি দেওয়া যাবে না। ১ সেপ্টেম্বর ২০২১ তারিখে পরবর্তী বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে আগের বিধি নিষেধ প্রত্যাহার করা হলো। অর্থাৎ কেন্দ্রীয় যুবলীগের সিদ্ধান্তকে উপেক্ষা করে হাসান উদ্দিন জামালকে সংগঠনকে অন্যায়ভাবে অব্যাহতি প্রদান করা হয়েছে। 

অব্যাহতির প্রতিক্রিয়া নিয়ে জামালের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, একটি চক্র পরিকল্পিতভাবে সংগঠনকে দুর্বল করার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। আমি সংগঠন থেকে অব্যাহতি পাওয়ার মতো কোন কর্মকান্ডে কখনো জড়িত ছিলাম না, এখনো নেই। আমি রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার রাজপথের সৈনিক। যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ ও সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিলের হাতকে শক্তিশালী করতে সংগঠনের জন্য কাজ করে যাচ্ছি। যে বা যারা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ও বিভিন্ন পোর্টালে এই ভুয়া অব্যাহতিপত্র দিয়ে আমার মানমর্যাদা ক্ষুন্ন করেছেন, তার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি এবং সংগঠন চেয়ারম্যান ও সাধারণ সম্পাদকের কাছে এর বিচার দাবি করছি। 

ঢাকা মহানগর যুবলীগ দক্ষিণের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রানা বলেন, জামাল সংগঠনের দুঃসময়ের কর্মী। সকল কর্মসূচিতে তিনি ব্যাপক নেতাকর্মী নিয়ে সংগঠনের  সকল কর্মসুচি সফল করেন। তার রয়েছে শক্তিশালী কর্মী বাহিনী। 

এ বিষয়ে মতিঝিল থানা যুবলীগের একাধিক নেতাকর্মীরা জানান, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক অন্যায়ভাবে এ অব্যাহতি দিয়েছেন। মূলত মাইম্যান বসানোর জন্য তিনি এ কাজ করছেন। মতিঝিল ছাড়াও যারাই তাকে ঠিকমতো মাসোয়ারা দেন না তাদেরকে বেছে অব্যাহতি, বা শোকজ পাঠান। যা গঠনতন্ত্র পরিপন্থী। স্থানীয় যুবলীগ নেতা মঞ্জু জানান, এই অব্যাহতির মাধ্যমে আমরা হতাস। জামাল সংগঠনের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হউক এমন কোন কর্মকান্ডের সাথে কখন জড়িত ছিলেন না। তার নেতৃত্বে মতিঝিল ৯ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগ খুবই শক্তিশালী ছিল। রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার সকল কর্মসূচি ও সংগঠনের সকল প্রোগ্রাম তার নেতৃত্বে আমরা সফল করেছি।

এ প্রসঙ্গে ঢাকা মহানগর দক্ষিণের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম রেজার মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

বিডি প্রতিদিন/আল আমীন

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর