শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ১৬ জুন, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৫ জুন, ২০১৯ ২৩:০৩

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য কে হচ্ছেন

আলোচনায় তিন অধ্যাপক

রাহাত খান, বরিশাল

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য কে হচ্ছেন

প্রায় তিন সপ্তাহ ধরে উপাচার্যশূন্য বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে অভিভাবকহীন অবস্থা বিরাজ করছে।

গত ২৭ মে সাবেক উপাচার্যের মেয়াদ শেষ হয়। উপাচার্য না থাকায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা কার্যক্রম গতি হারিয়েছে। আটকে গেছে বিভিন্ন অনুষদের পরীক্ষা ও ফলাফল। পাশাপাশি সেশন জট আরও প্রকট হওয়ার আশঙ্কা করেছেন সংশ্লিষ্টরা। শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মধ্যেও গাছাড়া ভাব। স্থবির বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ও আর্থিক কর্মকা । নির্ধারিত সময়ের মধ্যে পরীক্ষাগারের ব্যবহারিক উপকরণ কিনতে না পারায় ফেরত যাচ্ছে বিদায়ী অর্থবছরের বরাদ্দ। এমনকি শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন-ভাতাও আটকে যাওয়ার আশঙ্কা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

এদিকে নতুন উপাচার্য হিসেবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) দুই শিক্ষকসহ তিনজনের নাম জোরালোভাবে উচ্চারিত হচ্ছে। তারা হলেন ঢাবির হিসাববিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. মিজানুর রহমান এবং ভূগোল ও পরিবেশবিজ্ঞান বিভাগের সদ্য অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক ড. এ কিউ এম মাহাবুব।

এরমধ্যে   অধ্যাপক ড. এ কিউ এম মাহাবুবের বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য হওয়া প্রায় নিশ্চিত ছিল। কিন্তু বরিশাল অঞ্চলের এক শীর্ষ রাজনৈতিক নেতা অধ্যাপক ড. মো. মিজানুর রহমানের পক্ষে অবস্থান নেওয়ায় সেটি ঝুলে গেছে। এদিকে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এক কর্মকর্তা গাজীপুরের ঢাকা ইউনিভার্সিটি অব ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজির গণিত বিভাগের শিক্ষক প্রফেসর ড. আবু নাঈম শেখকে উপাচার্য হিসেবে নিয়োগ দিতে তৎপরতা শুরু করেছেন বলে জানা গেছে। বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাবেক সভাপতি মো. আরিফ হোসেন আলোচিত তিনজনের মধ্যে একজনকে উপাচার্য হিসেবে নিয়োগ দেওয়ার গুঞ্জনের কথা স্বীকার করেছেন।

বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আবু জাফর মিয়া বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের ছয়টি ডিনের পদে কর্মরত দুজন। এরমধ্যে একজন ডিন ছুটিতে। আর বাকি পাঁচ ডিনের পদে দায়িত্বে রয়েছেন উপাচার্য। তার (ডিনের) স্বাক্ষর ছাড়া বিভিন্ন বিভাগের পরীক্ষা এবং ফল প্রকাশ করা যাচ্ছে না। এতে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে সেশন জট আরও প্রকট হওয়ার আশঙ্কা করেন তিনি।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর