শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১০ ডিসেম্বর, ২০১৯ ২৩:১৬

চট্টগ্রামে বাড়ছে এডিস মশা নিধনে কার্যক্রম নেই

সমীক্ষা প্রতিবেদন

রেজা মুজাম্মেল, চট্টগ্রাম

চট্টগ্রামে বাড়ছে এডিস মশা নিধনে কার্যক্রম নেই

চট্টগ্রাম নগরে এডিসসহ নানা মশা ক্রমাগতহারে বাড়ছেই। কিন্তু সে তুলনায় মশকনিধন কার্যক্রম চোখে পড়ে না। সিটি করপোরেশন নগরে নালা-নর্দমায় মশকনিধন কার্যক্রম পরিচালনার কথা বললেও তা আনুষ্ঠানিকতা নির্ভর।

চট্টগ্রামে এক সমীক্ষায় উঠে এসেছে এমন চিত্র। এবারই প্রথমবারের মতো ডেঙ্গু আক্রান্তদের নিয়ে সমীক্ষা পরিচালিত  হয়। চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের সমন্বয়ে গঠিত টিম এ সমীক্ষা পরিচালনা করে।

সমীক্ষায় উঠে এসেছে, চট্টগ্রাম মহানগর ও উপজেলায় তিন এলাকায় এবার ডেঙ্গুর প্রকোপ বেশি দেখা দিয়েছিল। এর মধ্যে মহানগরের কোতোয়ালি ও আকবরশাহ থানার বিশ্বকলোনি এলাকা এবং বোয়ালখালী উপজেলা।  সমীক্ষা সূত্রে জানা যায়, চমেক হাসপাতালে চিকিৎসা নেওয়া ৩০২ জন রোগীর মধ্যে ২৪০ জন আক্রান্ত হন মহানগর ও  উপজেলায়। সর্বাধিক রোগী আক্রান্ত হয়েছে চট্টগ্রাম নগরের কোতোয়ালি থানা এলাকায় ৩৬ জন। এর আগে কখনো এ এলাকায় এতবেশি রোগী ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত হয়নি। পরের অবস্থানে আছে আকবরশাহর ১৮ জন। এছাড়া খুলশীর ১৩ জন, পাহাড়তলীর ১১ জন, ডবলমুরিংর ১০ জন, বাকলিয়ার ৯ জন, পাঁচলাইশর ৮ জন, বায়েজিদর ৬ জন, চকবাজার এলাকায় ৫ জন, বন্দর ও হালিশহর এলাকায় ৩ জন করে এবং চান্দগাঁও, ইপিজেড ও কর্ণফুলী থানা এলাকায় দুজন করে রোগী ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হন।

অন্যদিকে, সমীক্ষায় দেখা যায়, উপজেলাগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত হয়েছে বোয়ালখালীতে ৩২ জন। অন্য উপজেলার মধ্যে চন্দনাইশে ১৪ জন, লোহাগাড়ায় ১০ জন, সীতাকুন্ডে ১০ জন, সাতকানিয়ায় ৯ জন, পটিয়ায় ৮ জন, ফটিকছড়ি ও মিরসরাইয়ে ৭ জন করে, সন্দ্বীপে ৬ জন, আনোয়ারা ও রাঙ্গুনিয়ায় ৩ জন, রাউজানে দুইজন এবং হাটহাজারী উপজেলায় ১ জন করে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর