শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ২৩:০১

রাজশাহীতে বাড়ছে নারী উদ্যোক্তা

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী

রাজশাহীতে বাড়ছে নারী উদ্যোক্তা

নওগাঁর নিয়ামতপুর উপজেলার নিমদীঘি গ্রামের গৃহবধূ সাঈদা রায়হানা। নানা প্রতিবন্ধকতাকে মাড়িয়ে চালিয়ে গেছেন পড়াশোনা। তিনি প্রাণিবিদ্যায় স্নাতকোত্তরে ডিগ্রি অর্জন করেও চাকরির পেছনে ছুটেননি। স্বল্প পুঁজি নিয়ে গ্রামীণ নারীদের হাতে তৈরি রকমারি পণ্য নিয়ে শুরু করেছেন স্বপ্নযাত্রা। গড়ে তুলেছেন অপরাজিতা নামের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। ব্যক্তি উদ্যোগে গড়ে তোলা এ প্রতিষ্ঠানকে তিনি প্রতিষ্ঠা করতে চান ব্র্যান্ড হিসেবে। নিজের সফলতার পাশাপাশি পিছিয়ে পড়া গ্রামীণ নারীদেরও আর্থিক ভিত গড়ে দিতে চান তিনি।

রাজশাহীর আরেক উদ্যোক্তা সাঈদা খাতুন। তিনি হাতের কাজের দক্ষতা বাড়াতে নিয়েছেন প্রশিক্ষণ। সাঈদা হস্তশিল্প নিয়ে যাত্রা শুরু করলেও বাণিজ্যিকভাবে ভেড়ার খামার এবং ভেড়ার পশম থেকে বস্ত্রবুনন শিল্প গড়ে তুলতে চান। তবে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে মূলধন। তার সঙ্গে প্রশিক্ষণ নেওয়া আরও অনেক নারীই বেশ দক্ষ। কিন্তু বিনিয়োগে ঝুঁকি নিতে সাহস পাচ্ছিলেন না তারা। তবে বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের উদ্যোক্তা সৃষ্টি ও দক্ষতা উন্নয়ন প্রকল্প ইএসডিপির আওতায় রাজশাহীতে প্রশিক্ষণ নেওয়ার পর সেই ভীতি কেটেছে স্বপ্নচারী এসব নারীর। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গত বছরের সেপ্টেম্বর থেকে রাজশাহীতে শুরু হয়েছে ইএসডিপির   প্রশিক্ষণ কার্যক্রম। এখানে ১৫টি ব্যাচে ২৫ জন করে মোট ৩৭৫ জন প্রশিক্ষণের সুযোগ পাবেন। এরই মধ্যে ৫টি ব্যাচে প্রশিক্ষণ নিয়েছেন ১২৫ জন তরুণ উদ্যোক্তা। পুরুষদের পাশাপাশি এখানে প্রশিক্ষণ নিয়ে সফল উদ্যোক্তা হওয়ার স্বপ্ন বুনছেন নারীরাও। ইএসডিপির জেলা প্রশিক্ষক জামিলা আফসারী আলম জানান, দেশের কর্মক্ষম জনগোষ্ঠীকে উৎপাদনমুখী অর্থনৈতিক কর্মকান্ডে সম্পৃক্ত করে বিনিয়োগ প্রসার ঘটানো তাদের মূল লক্ষ্য। এরই অংশ হিসেবে সংশ্লিষ্ট বিষয়ে পারদর্শী ও প্রায়োগিক জ্ঞানসম্পন্ন রিসোর্স পারসনের মাধ্যমে উদ্যোক্তাদের প্রশিক্ষণ চলছে।

বাংলাদেশ উইমেন্স চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (বিডব্লিউসিসিআই) রাজশাহী বিভাগের সভাপতি মনিরা মতিন জোনাকী বলেন, রাজশাহীর নারীদের একটি বড় অংশ কুটিরশিল্প নিয়ে কাজ করছেন। একই ধরনের কাজ করছেন অনেকেই।

অনেকেই সমবায়ী হিসেবে কাজ করছেন।

বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের রাজশাহীর পরিচালক একেএম বেনজামিন রিয়াজী জানান, ‘রাজশাহী মূলত শিক্ষা নগরী। ফলে এখানে সেভাবে বাণিজ্য প্রসার লাভ করেনি। আমরা তরুণদের প্রশিক্ষণের মাধ্যমে বিনিয়োগে আগ্রহী করে তুলছি।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর