শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১৯ মার্চ, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৮ মার্চ, ২০২০ ২৩:৩৭

করোনাভাইরাস নিয়ে কোনো লুকোছাপা নেই : তথ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক

করোনাভাইরাস নিয়ে কোনো লুকোছাপা নেই : তথ্যমন্ত্রী

তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, দেশের সংকটময় সময়ে বিএনপি জনগণের পাশে না দাঁড়িয়ে করোনা পরিস্থিতি নিয়ে বিষোদগার করছে। তারা বলছে, করোনাভাইরাস নিয়ে নাকি সরকার লোকোচুরি করছে। ব্যাপারটা তা নয়, বরং সরকারের পক্ষ  থেকে প্রতিদিন প্রেস ব্রিফিং করে সবাইকে আপডেট তথ্য জানানো হচ্ছে। কতজন সংক্রমিত হয়েছে সেটি জানানো হচ্ছে, কী করণীয়  সেটিও বলা হচ্ছে। করোনাভাইরাস নিয়ে কোনো লুকোছাপা নেই। এটির প্রশংসা না করে এবং জনগণের পাশে না দাঁড়িয়ে, লোক দেখানো কয়েকটা লিফলেট বিলি করে বরং তারা শুধু বিষোদগার করছে। আমরা চাইব এমন সময় বিষোদগারের রাজনীতি না করে  দেশ ও জনগণের স্বার্থে সম্মিলিতভাবে বিএনপি কাজ করবে। রাজধানীর জাতীয় প্রেস ক্লাবের জহুর হোসেন চৌধুরী হলে গতকাল বাংলাদেশ নারী সাংবাদিক কেন্দ্র আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। সংগঠনের ১৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে তথ্যমন্ত্রী কেক কেটে সভার সূচনা করেন।

 এতে সভাপতিত্ব করেন নারী সাংবাদিক কেন্দ্রের সভাপতি নাসিমুন আরা হক মিনু। বক্তব্য রাখেন সাংবাদিক মিজানুর রহমান মজুমদার, মনিমা সুলতানা, আখতার জাহান মালিক, শাহনাজ সিদ্দীকী সোমা প্রমুখ।

 তথ্যমন্ত্রী বলেন, বিশ্বের উন্নত দেশগুলোতে করোনাভাইরাস যেভাবে ছড়িয়ে পড়েছে, সে দিকটি বিবেচনায় এনে বাংলাদেশ এই ভাইরাস নিয়ন্ত্রণে কার্যকর ভূমিকা গ্রহণ করেছে। করোনাভাইরাসের যে আতঙ্ক বিশ্বব্যাপী সেটির মধ্যেও মুজিববর্ষ নিয়ে মানুষের উৎসাহ উদ্দীপনার কোনো কমতি ছিল না। জাতি বিনম্র চিত্তে, শ্রদ্ধাভরে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ সন্তান জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্মরণ করছে। কিন্তু একটি পক্ষ যারা বঙ্গবন্ধুকে মুছে  ফেলতে চেয়েছিল, তারা সেটি করতে ব্যর্থ হয়েছে। তারা (বিএনপি) তাদের এই বিষোদগারের রাজনীতি, নেতিবাচক রাজনীতি, সবকিছুতে না বলার রাজনীতি, ষড়যন্ত্রের রাজনীতি এবং হত্যাকাণ্ডের মাধ্যমে তাদের যে রাজনীতির উন্মেষ, সেটি থেকে তারা বেরিয়ে আসবে। মুজিববর্ষে সেটিই প্রত্যাশা করব। নতুবা তারা ধীরে ধীরে ইতিহাসের আঁস্তাকুড়ে নিক্ষিপ্ত হবে।

হাছান মাহমুদ বলেন, কাজের ক্ষেত্রে পুরুষের তুলনায় নারীরা অনেক এগিয়ে। হিসাব করলে দেখা যাবে, পৃথিবীর প্রায় ৭০ ভাগ কাজ নারীরা করেন। কর্মজীবী নারীরা একদিকে যেমন অফিস সামলান, অন্যদিকে ঘরে ফিরে সংসার সামলান। পৃথিবীর উন্নয়নে তাদের ভূমিকা অগ্রগণ্য। আর পৃথিবীর অর্ধেক জনসংখ্যা নারী হওয়ায় তাদের বাদ দিয়ে পৃথিবীর উন্নয়ন সম্ভব নয়। এ সময় নারীর উন্নয়নে বঙ্গবন্ধুর অবদানের কথা স্মরণ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, পার্লামেন্টে নারীদের জন্য আসন সংরক্ষণ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানই করেছেন। সমাজে ও রাষ্ট্রে নারীর  যে অগ্রগতি জাতির পিতার হাত ধরে শুরু হয়েছিল, সেটিকে বাস্তবে রূপ দিয়েছেন বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর