শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ২৯ নভেম্বর, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৮ নভেম্বর, ২০২০ ২৩:০৮

এলপিজির ব্যবহার বাড়ানো হচ্ছে

-বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেন, মানসম্পন্ন ও সাশ্রয়ী মূল্যে টেকসই বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সরবরাহের লক্ষ্যে সরকার নিরলসভাবে কাজ করছে। তিনি আরও বলেন, পাইপলাইনের মাধ্যমে দেশের সর্বত্র গ্যাস দেওয়া সম্ভব নয়। এ জন্য এলপিজির (তরলীকৃত পেট্রোলিয়াম গ্যাস) ব্যবহার বাড়ানো হচ্ছে। এ জন্য বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনকে এলপিজির মূল্য রেগুলেট করার অনুরোধ করেছেন তিনি। প্রতিমন্ত্রী গতকাল বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) সেন্টার ফর এনার্জি স্টাডিস-এর আয়োজনে ‘ফরমুলেশন অব ন্যাশনাল এনার্জি পলিসি’ শীর্ষক ওয়েবিনারের প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তৃতাকালে এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, উন্নয়নের ধারা  ধরে রাখতে আমাদের প্রচুর প্রাথমিক জ্বালানি প্রয়োজন। ভাসমান টার্মিনালের মাধ্যমে এলএনজি আমদানি করা হচ্ছে। ল্যান্ড ব্যাজড এলএনজি টার্মিনাল করা হচ্ছে। এলপিজি টার্মিনাল করার বিষয়টিও এগিয়ে যাচ্ছে। একই সঙ্গে প্রাকৃতিক গ্যাস অনুসন্ধানের কাজও চলছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শী নের্তৃত্বে আমাদের কল্পনার থেকেও অনেক বড় জায়গা তৈরি হয়েছে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে। আর এ খাত পরিচালনার জন্য অনেক দক্ষ লোকবল প্রয়োজন। ভিশন-২০২১ ও ভিশন-২০৪১-এর সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে প্রযুক্তির প্রয়োগ ও ব্যবহার বাড়াতে হবে। বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে অটোমেশন, স্মার্ট গ্রিড, স্ক্যাডা সেন্টার, আন্ডারগ্রাউন্ড ক্যাবলিং বাস্তবায়ন হলে পুরো সেক্টরেরই আমূল পরিবর্তন হবে।

বুয়েটের উপাচার্য অধ্যাপক সত্য প্রসাদ মজুমদার-এর সভাপতিত্বে ‘ফরমুলেশন অব ন্যাশনাল এনার্জি পলিসি’ শীর্ষক ওয়েবিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন অধ্যাপক ম. তামিম। তিনি পলিসি কী, বৈশিষ্ট্য, বাংলাদেশে পলিসি গ্রহণের প্রেক্ষাপট, জ্বালানি পলিসি উন্নয়নের জটিলতা, প্রতিক্রিয়াশীল ও প্ররোচক সিদ্ধান্ত ইত্যাদি বিষয় আলোচনা করেন।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর