শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ২৩ মে, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ২২ মে, ২০২১ ২৩:৪৯

কৃষিকে এগিয়ে নিতে হবে

-ডা. মোসলেহ উদ্দিন আহমেদ

কৃষিকে এগিয়ে নিতে হবে
Google News

কুমিল্লার কৃষি জমি অনেক উর্বর। এখানকার কৃষকরা সবজি ও ধান উৎপাদন সাফল্যের স্বাক্ষর রাখছে। জেলার চাহিদা মিটিয়ে তা দেশের চাহিদা পূরণেও ভূমিকা রাখছে। এখানে উৎপাদিত সবজি সংরক্ষণের কোনো ব্যবস্থা নেই। বিশেষ করে টমেটো ও কচুর লতি সংরক্ষণ হলে কৃষক ভালো দাম পেত, ভোক্তাও উপকৃত হতো। ভরা মৌসুমে সংরক্ষণ না করায় অনেক টমেটো নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। সংরক্ষণের ব্যবস্থা করা হলে কৃষকরা আরও বেশি উপকৃত হতো। বাংলাদেশ প্রতিদিনের সঙ্গে আলাপচারিতায় এসব মন্তব্য করেন কুমিল্লা মেডিকেল কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ ও বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) কুমিল্লার সভাপতি অধ্যাপক ডা. মোসলেহ উদ্দিন আহমেদ।

 তিনি বলেন, এখানে ভালো ফসল উৎপাদন হলেও অনেক উর্বর জমি অনাবাদী থেকে যাচ্ছে। সেখানে ফসল উৎপাদনে তরুণ প্রজন্মকে উদ্বুদ্ধ করতে হবে। এ ছাড়া মাছ চাষ ও পোলট্রি শিল্পেও তাদের উদ্বুদ্ধ করা যায়। এ জন্য কৃষি বিভাগকে অনুপ্রেরণামূলক বরাদ্দ দিতে হবে। এদিকে লালমাই পাহাড়ে খননের বাকি রয়েছে ৪০টির বেশি প্রত্ন স্থাপনা। পাহাড় সংরক্ষণ না হলে এগুলোও বিনষ্ট হতে পারে। বাকি প্রত্ন স্থাপনাগুলো খনন হলে প্রত্ন পর্যটনে কুমিল্লায় নতুন দিগন্তের উন্মোচন হবে। এদিকে নওয়াব ফয়জুন্নেছার বাড়ি, শাহসুজা মসজিদ, শচীন দেব বর্মণের বাড়ি, ময়নামতি রানীর বাংলো, রানীর কুটি, সতের রত্ন মন্দির সংরক্ষণ প্রয়োজন। কুমিল্লার পুরাতন গোমতী সংরক্ষণ হলে পরিবেশের দূষণ কমবে, বিনোদনেরও ক্ষেত্র তৈরি হবে। পরিবেশ বাঁচাতে ও কৃষির উন্নয়নে গোমতী নদী, ডাকাতিয়া নদী, কালাডুমুর নদ, বেরুলা খালসহ বিভিন্ন নদী ও খাল সংস্কার প্রয়োজন। কুমিল্লার উন্নয়নে বিভাগের স্বীকৃতির বিষয়টিও তুলে ধরেন তিনি। বিভাগ হলে কুমিল্লা নগরীতে পয়ঃনিষ্কাষণে আরও বেশি বরাদ্দ পাবে। চিকিৎসার উন্নয়নে কুমিল্লায় মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়েরও দাবি জানান তিনি।

এই বিভাগের আরও খবর