বৃহস্পতিবার, ২ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০০:০০ টা

প্রদীপ ও চুমকির বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র গ্রহণ সম্পত্তি ক্রোকের নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম

অবসরপ্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তা মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান হত্যা মামলার আসামি টেকনাফ থানার সাবেক ওসি প্রদীপ কুমার দাশ ও তার স্ত্রী চুমকি কারণের বিরুদ্ধে জ্ঞাত আয়বহির্ভূত অবৈধ সম্পদ অর্জনের মামলার অভিযোগপত্র গ্রহণ করেছে আদালত। এ সময় পলাতক চুমকির বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা ও তাদের সম্পত্তি ক্রোকের নির্দেশ দিয়েছে আদালত। গতকাল এ আদেশ দেন চট্টগ্রামের সিনিয়র স্পেশাল জজ-১ আশফাকুর রহমান। দুদকের আইনজীবী মাহমুদুল হক বলেন, ‘অভিযোগপত্র উপস্থাপনের পর শুনানি শেষে বিচার প্রক্রিয়া শুরুর আদেশ দেয় আদালত। চুমকি পলাতক থাকায় তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি ও ক্রোক পরোয়ানা জারি করেছে আদালত।

 এ সময় আসামি পক্ষের আইনজীবী প্রদীপ জামিন আবেদন করলে তা নামঞ্জুর করে আদালত।’ জানা যায়, জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে প্রদীপ ও তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে দুদক অভিযোপত্র দাখিল করে। যাতে সাক্ষী করা হয় ২৯ জনকে। দুদক তদন্তে প্রদীপের বিরুদ্ধে ২ কোটি ৩৫ লাখ ৯৮ হাজার ৪১৭ টাকার জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জন করে সেই সম্পদ স্ত্রীর নামে হস্তান্তর এবং স্থানান্তরপূর্বক মানি লন্ডারিংয়ের অভিযোগের তথ্য প্রমাণ উল্লেখ করা হয়। এ ছাড়া উভয়ের বিরুদ্ধে ৪৯ লাখ ৫৮ হাজার ৯৫৭ টাকার অর্জিত সম্পদের তথ্য ও মিথ্যা তথ্য সম্পদ বিবরণীতে উল্লেখের তথ্য-প্রমাণ পাওয়ার কথা উল্লেখ করে। প্রসঙ্গত, ২০২০ সালের ২৩ আগস্ট দুদকের সমন্বিত জেলা কার্যালয়, চট্টগ্রাম-২ এর তৎকালীন সহকারী পরিচালক মো. রিয়াজ উদ্দিন বাদী হয়ে প্রদীপের অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে মামলা করেন। মামলায় প্রদীপের স্ত্রী চুমকিকেও আসামি করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে ৩ কোটি ৯৫ লাখ ৫ হাজার ৬৩৫ টাকার জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জন, সম্পদের তথ্য গোপন ও মানিলন্ডারিংয়ের অভিযোগ আনা হয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর