শিরোনাম
প্রকাশ : ৫ এপ্রিল, ২০২০ ২০:২৪

চট্টগ্রামে করোনা আক্রান্ত এক রোগীর কারণে আট আত্মীয়ের বাড়ি লকডাউন

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম:

চট্টগ্রামে করোনা আক্রান্ত এক রোগীর কারণে আট আত্মীয়ের বাড়ি লকডাউন

চট্টগ্রামের এক করোনা আক্রান্ত রোগীর কারণে তিন উপজেলার ৮টি বাড়িকে লকডাউন করতে হয়েছে। দক্ষিণ চট্টগ্রামের পটিয়া পৌর সদরের শেয়ানপাড়া, সাতকানিয়ার পুরানগড় ও চন্দনাইশের দোহাজারী পৌরসভার জামিরজুরী এলাকায় ৮ বাড়ির ১৫ পরিবারকে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ দিয়েছে প্রশাসন। লকডাউন ঘোষণা করেছে প্রশাসন। নগরীর দামপাড়ায় করোনা আক্রান্ত ব্যক্তির নিকটাত্মীয় হওয়ায় এবং ওই ব্যক্তির সংস্পর্শে আসার কারণে এ বাড়িগুলো লকডাউন করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, শনিবার দুপুরে পটিয়া পৌর সদরের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের শেয়ানপায়ায় একটি, শুক্রবার মধ্যরাতে সাতকানিয়ার পুরানগড় ইউনিয়নে আক্রান্ত ব্যক্তির মেয়ের শ্বশুর বাড়ির চারটি ও সাতকানিয়া সদরে একটি এবং দোহাজারী পৌরসভার জামিরজুরী এলাকায় একটি বাড়ি লকডাউন করে প্রশাসন। অন্তত ১৪দিন ওইসব বাড়ির সব সদস্যকে নিজেদের বাড়িতে অবস্থানের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। একইসঙ্গে করোনা আক্রান্ত ব্যক্তির স্ত্রীকে দেখতে যাওয়ায় থার্ড লেভেল কন্ট্রাকে আসার কারণে পটিয়ার খরনা ইউনিয়নের একটি বাড়িকেও লকডাউন করেছে প্রশাসন।

প্রসঙ্গত, নগরীর দামপাড়া এলাকায় যে ব্যক্তি করোনা আক্রান্ত হয়েছেন তার মেয়ে ও মেয়ের শাশুড়ি স¤প্রতি সৌদি আরব থেকে ওমরাহ পালন করে দেশে আসেন। গত ১২ মার্চ ওমরা শেষে মেয়ের শাশুড়ি সাতকানিয়ায় যাওয়ার পথে বেয়াইয়ের দামপাড়াস্থ বাসায় যান। সেখান থেকে তিনি বিমানবন্দর থেকে আসা একই গাড়িতে করে সাতকানিয়ার পুরানগড়ে যান। এই তথ্য জানার পর সাতকানিয়া উপজেলা প্রশাসন পুরানগড়ের ওই বাড়িসহ আশ-পাশের আরও চারটি বাড়ি লকডাউন করে। এসময় বাড়িগুলোতে লাল পতাকা টাঙিয়েদেওয়া হয়।

এদিকে চট্টগ্রামে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংস্পর্শে যাওয়ায় দোহাজারী পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ড জামিরজুরী এলাকার ১৫ সদস্য বিশিষ্ট একটি বাড়িও লকডাউন করে চন্দনাইশ উপজেলা প্রশাসন। পটিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফারহানা জাহান উপমা, সাতকানিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নুর এ আলম এবং চন্দনাইশ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইমতিয়াজ হোসেন জানান, বাড়িগুলোর সদস্যরা পুলিশের নজরদারিতে রয়েছে। তাদেরকে প্রশাসনের পক্ষ থেকে আগামী দশ দিনের উপযোগী খাদ্য সামগ্রী দেওয়া হয়েছে। 

বিডি প্রতিদিন/এ মজুমদার/ফারুক তাহের


আপনার মন্তব্য