শিরোনাম
প্রকাশ : ১৫ মে, ২০২১ ২২:১০
প্রিন্ট করুন printer

উচ্চ রক্তচাপের জন্য করোনার প্রভাব মারাত্মক হতে পারে

অনলাইন ডেস্ক

উচ্চ রক্তচাপের জন্য করোনার প্রভাব মারাত্মক হতে পারে
প্রতীকী ছবি
Google News

হৃদরোগ বা স্ট্রোকের অন্যতম কারণ উচ্চ রক্তচাপ। করোনাভাইরাস সংক্রমণের পর যাদের পরিস্থিতি হঠাৎ গুরুতর হয়ে উঠছে, তাদের মধ্যে একাংশের আগে থেকেই উচ্চ রক্তচাপের সমস্যা রয়েছে। তাই যাদের এই সমস্যা আগে থেকে আছে, তাদের সাবধান হতে হবে। এই সময়ে প্রত্যেক দিন রক্তচাপ মেপে নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করুন।

করোনায় বিপর্যস্ত ভারতের কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে যা করলে আপনার রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব-

পুষ্টিকর খাবার

প্রোটিনে ভরপুর ডায়েট আপনার জন্য উপযুক্ত। ফল, সবজি, লো-ফ্যাট দুগ্ধজাত খাবার খান। স্যাচুরেটেড ফ্যাট কমাতে হবে। একটা খাবারের ডায়েরি রাখতে পারেন। রোজ কী খাচ্ছেন, কতটা খাচ্ছেন, লিখে রাখুন। কোনো খাবার কেনার সময় ভাল করে পিছনের লিস্টটা পড়ুন। কতটা ফ্যাট, কতটা প্রোটিন, কতটা কার্বোহাইড্রেট রয়েছে সেগুলো দেখে নিন।

নিয়মিত শরীরচর্চা

রোজ অন্তত আধ ঘণ্টা যে কোনো রকমের শরীর চর্চা করলে আপনার রক্তচাপ নিয়ন্ত্রিত হতে পারে। তা হলে চট করে হাইপারটেনশন দেখা যাবে না। সাধারণত হাঁটা, সাইকেল চালানো বা সাঁতার খুব ভাল ব্যায়াম। কিন্তু এই লকডাউনে যেহেতু সেগুলি করা সম্ভব নয়, তাই বাড়িতে সহজ কিছু কার্ডিও এক্সারসাইজ করতে হবে। হাই-ইনটেনসিটি ট্রেনিং করতে পারেন বাড়িতেই। 

ওজন নিয়ন্ত্রণ

আপনার বিএমআই’এর মাত্রা জেনে নেওয়া প্রয়োজন। আপনার বয়স, উচ্চতা এবং আরও কিছু শারীরিক লক্ষণ অনুযায়ী আপনার কত ওজন থাকা বাঞ্ছনীয়, তা চিকিৎসক বলে দেবেন। চেষ্টা করুন সেই ওজনটাই ধরে রাখার। খুব বেশি বেড়ে যাচ্ছে মনে হলেই ওজন কমানোর চেষ্টা করতে হবে।

লবণ কমান 

প্রত্যেক দিন ৫ গ্রামের বেশি লবণ শরীরে যেতে দেবেন না। শুধু রান্নায় কত লবণ দিচ্ছেন সেটা দেখলেই চলবে না, বাজার থেকে যদি কোনো তৈরি করা খাবার কেনেন, সেটায় কতটা লবণ রয়েছে, দেখা প্রয়োজন। তাই কোনো কিছু কেনার আগে প্যাকেটের পিছনে থাকা লেখা মন দিয়ে পড়ুন। প্রসেস্‌ড ফুড না খাওয়াই ভাল। যে কোনো বাজার থেকে কেনা চটজলদি খাবারেও প্রচুর পরিমাণে লবণ থাকে। সেগুলিও খেয়াল রাখুন।

উদ্বেগ কমান

নিজের মন শান্ত রাখা খুব প্রয়োজন। নিয়ম করে নিঃশ্বাসের ব্যায়াম এবং মেডিটেশন করুন। যে খবর পড়লে উদ্বেগ বেড়ে যায়, সেগুলো এড়িয়ে চলুন। নিজের আশা-প্রত্যাশাগুলি বাস্তবিক করুন। ছোট ছোট জিনিস নিয়ে খুশি থাকার চেষ্টা করুন। এবং যে কোনো কাজ যেটা করলে মন ভাল থাকে, তেমন কিছু করুন। গাছের পরিচর্যা, রান্না করা, ছবি আঁকা, গান শোনা-যে কোনো রকমের শখ হতে পারে।

মদ্যপান এবং ধূমপান ত্যাগ

এই দু’টি আপনার শরীরের জন্য প্রচণ্ড ক্ষতিকর। রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখতে এক্ষুণি এই অভ্যাসগুলি ত্যাগ করুন।

সূত্র: আনন্দবাজার।

বিডি-প্রতিদিন/বাজিত হোসেন

এই বিভাগের আরও খবর