শিরোনাম
প্রকাশ : ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০৬:৪৫
প্রিন্ট করুন printer

মানুষের জীবনকে সহজ করবে গ্যালাক্সি ওয়্যারেবলের যে চারটি ফিচার

অনলাইন ডেস্ক

মানুষের জীবনকে সহজ করবে গ্যালাক্সি ওয়্যারেবলের যে চারটি ফিচার

নিত্য নতুন উদ্ভাবনের মাধ্যমে মানুষের জীবনকে সহজ করতে স্যামসাংয়ের জুড়ি মেলা ভার। প্রতিষ্ঠার পর থেকেই দক্ষিণ কোরিয়া ভিত্তিক এই প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানটি প্রতিনিয়ত উদ্ভাবনী ফিচার নিয়ে আসছে। বিশেষ করে সঙ্কটকালীন সময়েও গ্রাহকদের জন্য প্রতিষ্ঠানটির নিয়ে আসা ফিচারগুলো বেশ কার্যকরী। এক্ষেত্রে কোভিড-১৯ চলাকালীন সময়ে গ্যালাক্সি স্মার্টওয়াচগুলোতে হ্যান্ডওয়াশ অ্যাপটির কথা উল্লেখ করা যায়।

ব্যবহারকারীদের জীবনকে স্বাচ্ছন্দ্যময় করে তুলবে এমন চারটি ফিচার নিচে আলোচনা করা হলো-    

স্মার্ট লক

২০১৪ সালে স্মার্ট লক ফিচারটি অ্যান্ড্রয়েড ৫ সংস্করণে প্রথমবারের মতো নিয়ে আসা হয়। স্মার্ট লক ফিচারের বিশেষত্ব হচ্ছে এর মাধ্যমে ব্যবহারকারীরা যে কোন জায়গা বা পরিস্থিতিতে পাসওয়ার্ড কিংবা ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্ক্যানিং ছাড়াই নিরাপদে স্মার্টফোনটি খুলতে পারবেন। ব্যবহারকারীর ফোনটি গ্যালাক্সি স্মার্টওয়াচের সাথে কানেক্টেড অবস্থায় থাকলে কিংবা ফোনটি তার সাথে থাকলে স্মার্ট লক ফিচার ব্যবহারকারীর ফোনটিকে খোলা অবস্থাতেই রাখবে। পছন্দমতো ও প্রয়োজনীয় অ্যাপগুলোতে খুব দ্রুতভাবে প্রবেশ করতে ব্যবহারকারীরা এই ফিচারটির মাধ্যমে স্বয়ংক্রিয়ভাবে স্মার্টফোনটি খুলতে পারবেন। 

বাডস টুগেদার

বন্ধু বা সঙ্গীর সাথে গান শোনার বিষয়টি নিঃসন্দেহে আনন্দদায়ক। এ আনন্দকে আরো বাড়িয়ে তুলতে গ্যালাক্সি বাডস লাইভে বাডস টুগেদার ফিচার প্রথম চালু করা হয়। বাডস টুগেদার ফিচারটির মাধ্যমে ব্যবহারকারীরা প্রিয়জন বা বন্ধুর সাথে পছন্দের গান শুনতে পারবেন; একইসঙ্গে গান উপভোগের সময় এই ফিচারটি উন্নতমানের সাউন্ডের বিষয়টিও নিশ্চিত করবে। এই ফিচারটি ব্যবহারকারী খুব সহজেই এনাবল করতে পারবেন। এই ফিচারটি চালু করতে কিছু ধাপ অনুসরণ করতে হবে। প্রথমে ফোনের কুইক প্যানেল অপশনে গিয়ে মিউজিক শেয়ার আইকন ট্যাপ করতে হবে এবং যার সাথে ইয়ারবাডস শেয়ার করতে চান তাকে নির্বাচন করে নিতে হবে। পরবর্তীতে, আপনার সঙ্গীর ডিভাইসটি যখনই  আমন্ত্রণটি গ্রহণ করবে, তখন থেকেই গ্যালাক্সি ইয়ারবাডসের পৃথক দু’টি পেয়ারে আপনি ও আপনার সঙ্গী একইসময়ে একটি গান কিংবা অন্য কোনো মিউজিক উপভোগ করতে পারবেন। 

অটো সুইচ 

অনেক ব্যবহারকারী একাধিক ডিভাইসের সাথে একজোড়া ইয়ারবাডসই ব্যবহার করেন। তবে, এর কিছু অসুবিধা রয়েছে। একটি উদাহরণ দিয়ে বিষয়টি স্পষ্ট করা যাক। একজন ব্যবহারকারী তার একজোড়া ইয়ারবাডস একাধিক ডিভাইসের সাথে সংযুক্ত করেছেন। এখন তিনি অন্য একটি ডিভাইসের সাথে তার ফোনটিকে যুক্ত করতে চান। এক্ষেত্রে, ব্যবহারকারীর যে সমস্যার মুখোমুখি হতে হয় তা হলো ব্লুটুথ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করতে হয় বা পুনরায় সংযোগ করতে হবে। 

গ্যালাক্সি বাডস প্রো তে অটো সুইচ ফিচারটি নিয়ে আসা হয়। এর বিশেষত্ব হচ্ছে, এক ডিভাইস থেকে অন্য ডিভাইসে যাওয়ার সময়  অটো সুইচ ফিচার গ্যালাক্সি বাডস প্রো’র সংযোগকে ঠিক রাখে। যেমন: গ্যালাক্সি ট্যাবলেটে ছবি দেখার সময় একজন ব্যবহারকারীর গ্যালাক্সি স্মার্টফোনে ফোন আসলো; তখন এই ফিচার ব্যবহারকারীদের ইয়ারবাডগুলোক ফোনে পেয়ার করার জন্য ট্যাবলেট থেকে ম্যানুয়ালি ইয়ারবাড বিচ্ছিন্ন করতে হবে না; কারণ এই ফিচারটি ব্যবহারকারী ফোন ধরার সাথে সাথেই স্বয়ংক্রিয়ভাবে তার ফোনে ব্লু টুথ সংযোগ দিবে। 

হ্যান্ড ওয়াশ 

কোভিড-১৯ বৈশ্বিক মহামারির কারণে মানুষের ব্যক্তিগত স্বাস্থ্য সুরক্ষার বিষয়টি আগের চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। তবে, আমাদের প্রতিদিনের পথচলায় বিভিন্ন কারণে নিয়মমাফিকভাবে হাত ধোয়া সম্ভবপর হয়ে উঠে না। এই প্রতিকূল সময়ে নিয়মমাফিকভাবে মানুষের হাত ধোয়ার বিষয়টিকে স্মরণ করিয়ে দিতে গত বছর স্যামসাং তাদের গ্যালাক্সি স্মার্টওয়াচগুলোতে হ্যান্ডওয়াশ অ্যাপ নিয়ে এসেছে। এই অ্যাপটি মানুষের নিয়মমাফিকভাবে হাত ধোয়ার বিষয়টিকে সহজ করেছে। কিছু প্রক্রিয়া অনুসরণ করে এই অ্যাপটি ব্যবহার করতে হবে। 

প্রক্রিয়াগুলো হলো: প্রথমে ব্যবহারকারীকে অ্যাপটিতে অ্যালার্ম সেট করে নিতে হবে। ফলে, নিয়মিত বিরতিতে হাত ধোয়ার জন্য ব্যবহারকারী রিমাইন্ডার পাবেন। অ্যাপটিতে নতুন আপডেট নিয়ে আসা হয়েছে। ফলে, ব্যবহারকারীরা হাত ধোয়া শুরু করলে গ্যালাক্সি স্মার্টওয়াচ স্বয়ংক্রিয়ভাবে ২৫ সেকেন্ড ধরে সময় গণনা শুরু করবে। ২৫ সেকেন্ড ধরে হাত ধোয়ার বিষয়টি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা কর্তৃক নির্ধারণ করা হয়েছে। অ্যাপটির রয়েছে আরো বেশ কিছু সুবিধা। এর মধ্যে অন্যতম হলো একজন ব্যবহারকারী দিনে কতবার হাত ধুয়েছেন তা অ্যাপটির ড্যাশ বোর্ডে রেকর্ড থাকবে এবং তার হাত ধোয়ার অভ্যাস কেমন তা প্রতি সপ্তাহে জানিয়ে দেওয়া হবে।  
 
বিডি-প্রতিদিন/বাজিত হোসেন


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর