Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ১৭ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৬ এপ্রিল, ২০১৯ ২৩:৩২

আওয়ামী লীগের দুই পক্ষে সংঘর্ষ ভাঙচুর লুট, আহত ৫০

মাগুরায় উচ্চৈঃশব্দে গান বাজানো নিয়ে সংঘর্ষে নিহত ১

ফরিদপুর ও মাগুরা প্রতিনিধি

আওয়ামী লীগের দুই পক্ষে সংঘর্ষ ভাঙচুর লুট, আহত ৫০

ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলার বেলজানী গ্রামে এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষে অর্ধশতাধিক ব্যক্তি আহত হয়েছেন। এ সময় উভয় পক্ষের ২৫টি ঘরবাড়ি ভাঙচুর ও লুটপাট করা হয়েছে। গতকাল ভোরে দফায় দফায় এ সংঘর্ষ হয়। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। জানা যায়, গত রবিবার বেলজানী গ্রামের ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি আলাউদ্দিন মাতুব্বর গ্রুপের আব্দুর রউফ মাঠে যাচ্ছিলেন। এ সময় ময়না ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য সবুজ সমর্থক কয়েকজন তার ওপর হামলায় চালায়। এ ঘটনায় রউফের ছেলে বাবলু ওই দিন ৫১ জনকে আসামি করে মামলা করেন। এর জেরে মঙ্গলবার ভোরে আলাউদ্দন গ্রুপ সবুজ মেম্বারের লোকজনের বাড়িঘরে হামলা চালায়। এ সময় উভয় পক্ষ দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। গুরুতর আহত ১৭ জনকে ফরিদপুর মেডিকেল ও বোয়ালমারী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়েছে।   আলাউদ্দিন মাতুব্বর বলেন, ‘আওয়ামী লীগ নেতা সবুজ মেম্বর ও ঝিন্না মিয়ার লোকজন আমার পক্ষের লোকজনকে মারধর করে।’ সবুজ মেম্বর বলেন, ‘কোনো কারণ ছাড়াই আলাউদ্দিনের সমর্থকরা আমাদের লোকদের ওপর হামলা চালায় এবং বাড়ি-ঘর ভাঙচুর লুটপাট করে। বোয়লামারী থানার এসআই সাইফুদ্দিন জানান, ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

এদিকে মাগুরার শালিখা উপজেলার বৈখোলা গ্রামে পিকনিকের অনুষ্ঠানে উচ্চৈ:শব্দে গান বাজানো নিয়ে সংঘর্ষ হয়েছে। এতে আবু নাসের (৪৫) নামে এক যুবক নিহত ও ১৫ জন আহত হয়েছেন। শালিখা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তারিকুল ইসলাম জানান, সোমবার রাতে বৈখোলা গ্রামে নববর্ষ উপলক্ষে পিকনিকের আয়োজন করে একদল যুবক। সেখানে উচ্চৈ:শব্দে গান বাজানো নিয়ে রাজু আহম্মদ নামে এক যুবকের সঙ্গে বিরোধ হয় আলীবর্দী, আলী হোসেনসহ কয়েকজনের। এর জেরে মঙ্গলবার সকালে রাজু ও আলীবর্দী গ্রুপের লোকজনের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। আহত হন আবু নাসেরসহ ১৬ জন। গুরুতর জখম নাসেরকে প্রথমে সদর হাসপাতালে পরে ফরিদপুর মেডিকেলে পাঠানো হয়। সেখান থেকে ঢাকা মেডিকেলে নেওয়ার পথে দুপুরে তিনি মারা যান। আহতদের মধ্যে ১০ জনকে মাগুরা সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

 


আপনার মন্তব্য