শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১২ ডিসেম্বর, ২০১৯ ২৩:৫৫

টিকিট সংকটে ভোগান্তি নেই সেবার মান

দিনাজপুরের বিরামপুর রেল স্টেশন

দিনাজপুর প্রতিনিধি

টিকিট সংকটে ভোগান্তি নেই সেবার মান

দিনাজপুরের বিরামপুরসহ আশপাশের কয়েক উপজেলার মানুষ ট্রেনযাত্রার জন্য ব্যবহার করেন বিরামপুর রেলস্টেশন। এখানে যাত্রীর যথেষ্ট চাপ থাকলেও  মেলে না পর্যাপ্ত টিকিট। ফলে নিয়মিত তাদের ভোগান্তির শিকার হতে হয়। অপরদিকে এ স্টেশনে বিশ্রামাগার ও টয়লেট না থাকা এবং প্ল্যাটফর্ম ছোট হওয়ায় দুর্ভোগ বেড়েছে যাত্রীদের। স্থানীয়রা জানান, বিরামপুর উপজেলার ১২ কিলোমিটার পূর্বে নবাবগঞ্জ, ১৪ কিলোমিটার দক্ষিণে হাকিমপুর উপজেলা ও হিলি স্থলবন্দর এবং ৪৬ কিলোমিটার দক্ষিণ-পূর্বে ঘোড়াঘাট উপজেলা। নবাবগঞ্জ এবং ঘোড়াঘাটে রেলস্টেশন নেই। হিলিতে স্টেশন থাকলেও আন্তঃনগর ট্রেনের যাত্রাবিরতি নেই। এ কারণে ওইসব এলাকার রেলযাত্রীদের বিরামপুর থেকেই চলাচল করতে হয়। যাত্রীদের অভিযোগ, বিরামপুর স্টেশন থেকে অধিকাংশ সময় টিকিট পাওয়া যায় না। কখনো আবার টিকিট পেলেও পাওয়া যায় না আসন। যাত্রীদের ব্যবহারের বিশ্রামাগাগুলো ব্যবহার অনুপযোগী হওয়ায় তা তালাবদ্ধ থাকে। স্টেশনে টয়লেটের ব্যবস্থা না থাকায় খুব সমস্যায় পড়তে হয়। এই স্টেশন থেকে এসি কেবিন ও চেয়ারের কোনো টিকিট বরাদ্দ নেই। যাত্রীছাউনি যেটি রয়েছে, তাও আকারে ছোট। হাকিমপুর উপজেলা চেয়ারম্যান ও হিলি স্থলবন্দর আমদানি রপ্তানিকারক গ্রুপের সভাপতি হারুন উর রশীদ হারুন জানান, হিলিতে আন্তঃনগর ট্রেনের যাত্রাবিরতি না থাকায় বিভিন্ন এলাকার এবং বিদেশ থেকে আসা ব্যবসায়ীদের বিরামপুর স্টেশন দিয়ে যাতায়াত করতে হয়। কিন্তু স্টেশনটিতে পর্যাপ্ত আসন বরাদ্দ না থাকায় যাত্রীদের ভোগান্তি হচ্ছে। স্টেশন মাস্টার মিজানুর রহমান জানান, বিরামপুর স্টেশনে যাত্রী বাড়ছেই। চাহিদা অনুযায়ী টিকিট বরাদ্দ নেই। নেই এসি কেবিন ও এসি চেয়ারকোচের বরাদ্দ। আসন বৃদ্ধি ও যাত্রীদের নানা সমস্যার কথা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর