শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ২৮ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৭ মার্চ, ২০২১ ২৩:২৮

বাঁশের সাঁকোতে ১৪ গ্রামের মানুষের পারাপার

দাউদকান্দি প্রতিনিধি

বাঁশের সাঁকোতে ১৪ গ্রামের মানুষের পারাপার

বাঁশের সাঁকোতে কুমিল্লার উপকণ্ঠের তিতাস উপজেলার ১৪ গ্রামের হাজার হাজার গ্রামবাসীর পারাপার চলছে। এই ১৪ গ্রামের প্রায় ২৬ হাজারের অধিক জনসাধারণের যাতায়াতের জন্য তিতাস নদে ১২ বছর আগে এলাকাবাসীর অর্থায়নে একটি বাঁশের সাঁকো নির্মাণ করা হয়। এলাকাবাসী জানায়, স্থানীয় নারান্দিয়া ইউনিয়নের নয়াকান্দি বাজার থেকে কড়িকান্দি ইউনিয়নের চররাজাপুর গ্রামের মাঝখানে তিতাস নদের উপর স্থানীয় লোকজনের অর্থায়নে নির্মিত এ সাঁকো দিয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করতে হয় প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষকে। এ এলাকার লোকজন নারান্দিয়া ইউনিয়নের নয়াকান্দি বাজারে যাতায়াতের জন্য তৎকালীন ইউপি চেয়ারম্যান সাদেক হোসেন সরকারের উদ্যোগে একটি সংযোগ সড়ক নির্মাণ করা হয়। এর তিন বছর পূর্বে বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান মো. মহসীন ভূঁইয়া পুনরায় সড়কটির সংস্কার করেন। এক যুগেরও বেশি সময় ধরে সড়কটি দিয়ে এলাকার শিক্ষার্থী, ব্যবসায়ীসহ সাধারণ জনগণ চলাচল করলেও  অদ্যবধি নদের উপর সেতু নির্মাণ না হওয়ায় সাধারণ মানুষ চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন।  রাজাপুর গ্রামের সাবেক ইউপি মেম্বার আবুল কাশেম সরকার বলেন, নয়াকান্দি বাজারে যাতায়াতের জন্য মানুষ অনেক বছর আগ থেকে এ সাঁকোটি ব্যবহার করে আসছেন। জনগণের চাহিদা থাকায় প্রায় ১২ বছর আগে কড়িকান্দি ইউনিয়ন পরিষদের চররাজাপুর ওয়ার্ডের মেম্বার মমিনুল ইসলাম বলেন, কড়িকান্দি ইউনিয়নের চররাজাপুর, রাজাপুর, তিতাস নদের নতুন চর, কড়িকান্দি ও  কাপাশকান্দির জনগণ নয়াকান্দি বাজারে এ সড়ক দিয়ে চলাচল করে। সেতু নির্মাণ হলে বিশেষ করে নারান্দিয়া ইউনিয়নের প্রায় ১০ গ্রামের লোকজন খুব কম সময়ে ও কম খরচে চররাজাপুর হয়ে কড়িকান্দি বাজার ও উপজেলা সদরে যাতায়াত করতে পারবেন। নারান্দিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান  সালাউদ্দিন আহমেদ জানান, এখানে একটি সেতু নির্মাণ করা প্রয়োজন। সেতুটি নির্মাণ হলে এলাকার মানুষ সহজে উপজেলা সদরসহ কড়িকান্দি বাজারে যেতে পারবেন।

অপরদিকে কড়িকান্দি ইউনিয়নের লোকজন নয়াকান্দি বাজারে আসতে পারবেন। নদের উপর নির্মিত বাঁশের সাঁকো প্রতিবছরই এলাকাবাসীর অর্থায়নে নির্মাণ করতে হয়। নেই কোনো সরকারি অনুদান।


আপনার মন্তব্য