শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১৭ জুন, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৬ জুন, ২০২১ ২৩:১৭

সেতু আছে সড়ক নেই দুর্ভোগ চরমে

লালমনিরহাট প্রতিনিধি

সেতু আছে সড়ক নেই দুর্ভোগ চরমে
Google News

লালমনিরহাটের কালীগঞ্জে জনদুর্ভোগ লাঘবে তিস্তার শাখা নদীর উপরে একটি সেতু নির্মাণ করেছে স্থানীয় সরকার বিভাগ। কিন্তু সেতুর একপাশের সংযোগ সড়ক না থাকায় ২২ বছরেও দুই গ্রামের মানুষের ভোগান্তির অবসান হয়নি। সড়কের অভাবে এতে দুর্ভোগে পড়েছে স্কুল-কলেজ ও মাদ্রাসাগামী শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও সাধারণ মানুষ। সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, উপজেলার তুষভান্ডার ইউনিয়নের চর বৈরাতী এলাকায় একটি সেতুর পূর্বের অংশের নিচ থেকে সংযোগ সড়ক বিচ্ছিন্ন হয়ে পরিত্যক্ত অবস্থায় আছে। গত ৬ বছর পূর্বে সেতুটি তিস্তার বন্যায় ভেঙে যায়। সেই থেকে আজও একই অবস্থায় পড়ে আছে। সংস্কারের কোনো উদ্যোগ নেয়নি কেউ। এতে ভোগান্তিতে পড়েছেন দুই গ্রামের প্রায় ২০ হাজার পরিবার। জানা গেছে, এলজিইডি’র আওতায় ১৯৯৭-৯৮ অর্থবছরে উপজেলার তুষভান্ডার ইউনিয়নের চর বৈরাতী এলাকায় তিস্তার শাখা নদীর উপরে ২ লাখ ৯১ হাজার ১৬০ টাকা ব্যয়ে একটি সেতু নির্মাণ করা হয়। কিন্তু গত ৬ বছর পূর্বে সেতুটির এক দিকে সংযোগ সড়কের কিছু অংশ তিস্তা নদীর পানির তোরে ভেঙে যায়। ভেঙে যাওয়া সড়ক মেরামত করার জন্য এলাকার অনেকেই জনপ্রতিনিধি থেকে শুরু করে উপজেলা প্রশাসনের কাছে একাধিকবার আবেদন করেও কোনো লাভ হয়নি। বর্ষাকালে উপজেলার বিভিন্ন এলাকার হাজার হাজার মানুষ একটি সংযোগ সড়কের অভাবে বছরের পর বছর মারাত্মক দুর্ভোগে জীবন-যাপন করছেন। বর্তমানে ওইসব গ্রামের মানুষ আধুনিক সুযোগ-সুবিধাসহ যোগাযোগ ক্ষেত্রে বঞ্চিত। স্থানীয়রা জানান, সেতু থাকলেও সড়ক না থাকায় ব্যবহার করা যাচ্ছে না। ফলে তিন চার কিলোমিটার পথ উল্টো ঘুরে যাতায়াত করতে হয়।

এই বিভাগের আরও খবর