শিরোনাম
প্রকাশ : ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ২০:৫২

ধুনটে ব্রিজ ভেঙে ট্রাক খাদে, ১৫টি রুটে যানবাহন চলাচল বন্ধ

নিজস্ব প্রতিবেদক, বগুড়া

ধুনটে ব্রিজ ভেঙে ট্রাক খাদে, ১৫টি রুটে যানবাহন চলাচল বন্ধ

বগুড়ার ধুনটে আবারও ব্রিজ ভেঙে বালু বোঝাই ট্রাক খাদে পড়ে চালক ও হেলপারসহ তিনজন আহত হয়েছেন। আহতদের উদ্ধার করে বগুড়া ও শেরপুর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে ধুনট-শেরপুর সড়কের মাঠপাড়া স্টিলের বেইলী ব্রিজ ভেঙে এ ঘটনা ঘটে। এতে বগুড়া ও সিরাজগঞ্জসহ ১৫টি গুরুত্বপূর্ণ সড়কে সকল ধরনের যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। এতে করে লাখো মানুষকে দুর্ভোগে পড়তে হয়েছে। ব্রিজটি মেরামতে অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে।

স্থানীয় লোকজন জানান, ১৯৯০ সালের দিকে ধুনট-শেরপুর সড়কের মাঠপাড়া এলাকায় গাড়ামারা খালের উপর সড়ক ও জনপথ বিভাগ ৬২ মিটার দৈর্ঘ্য স্টিলের বেইলী ব্রিজ নির্মাণ করে। ব্রিজটির উপর দিয়ে অতিরিক্ত মালামাল বোঝাই ভারী যানবহন চলাচলের কারণে ব্রিজটি দুর্বল হয়ে পড়ে। ২০১৩ সালের ১৬ নভেম্বর পাথর বোঝাই একটি ট্রাক পারাপারের সময় ব্রিজটির পশ্চিম অংশ ভেঙে খালের পানিতে পড়ে যায়। পরে পুরানো সরঞ্জাম ব্যবহার করে ব্রিজটি যানবাহন চলাচলের উপযোগী করে ভারী যানবাহন চলাচল বন্ধে সাইন বোর্ড ঝুলিয়ে দেয় বগুড়া সড়ক ও জনপথ (সওজ) বিভাগ। এরপরও ২০১৪ ও ২০১৬ সালে আরও দু’দফা ব্রিজটির পাটাতন ভেঙে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

সর্বশেষ মঙ্গলবার দুপুরের দিকে গোসাইবাড়ী থেকে অভার লোড বালু বোঝাই একটি ট্রাক শেরপুরের দিকে যাওয়ার পথে ধুনটের মাঠপাড়া ব্রিজটির পূর্ব অংশ আবারও ভেঙে ট্রাক খাদে পড়ে ডুবে যায়। পরে স্থানীয় লোকজন ট্রাকের ভিতর থেকে চালক ও হেলপারসহ তিনজনকে উদ্ধার করে শেরপুর ও বগুড়ার হাসপাতালে প্রেরণ করে।

মাঠপাড়া গ্রামের বাসিন্দা ইউপি সদস্য মজনু মন্ডল, গাড়ি চালক ফরহাদ হোসেন ও পথচারী আবুল হোসেন জানান মাঠপাড়া গাড়ামারা খালের বেইলী ব্রিজটি দীর্ঘদিন যাবত ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। সিরাজগঞ্জ ও পুর্ব বগুড়ার জনসাধারনের চলাচলের একমাত্র এই সড়ক দিয়ে প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চালাচল করতো এবং বিভিন্ন পরিবহনে পন্য আনা নেওয়া করা হতো। তাই এই ব্রিজটি ভেঙে যাওয়ায় সিরাজগঞ্জ, কাজিপুর, ধুনটের মথুরাপুর, সোনাহাটা, গোসাইবাড়ী ও ভান্ডারবাড়ীসহ ১৫টি সড়কে যানবাহান চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। এতে ধুনটসহ পাশ্ববর্তী কাজিপুর ও সিরাজগঞ্জসহ বিভিন্ন উপজেলার লাখো মানুষকে দুর্ভোগে পড়তে হয়েছে। তবে ঝুঁকিপূর্ণ ব্রিজটি নিয়ে বাংলাদেশ প্রতিদিনে প্রতিবেদন প্রকাশিত হলেও টনক নড়েনি কর্তৃপক্ষের।
 
বগুড়া সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী আশরাফুজ্জামান জানান, সংবাদ পেয়ে সরেজমিনে ভাঙা ব্রিজটি পরিদর্শন করা হয়েছে। তবে অনেক বছর আগে থেকেই স্টিলের বেইলী ব্রিজের ট্রামজাম ও স্টিল টেকিং সহ বিভিন্ন সরঞ্জাম সরবরাহ বন্ধ রয়েছে। এ কারণে স্টিলের ব্রিজগুলো জোড়াতালি দিয়ে মেরামত করা হচ্ছে। তবে সেখানে আরসিসি গার্ডার সেতু নির্মাণের জন্য চেষ্টা করা হচ্ছে।

বিডি প্রতিদিন/এনায়েত করিম


আপনার মন্তব্য