শিরোনাম
প্রকাশ : ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ২০:৫৪

মাদক ব্যবসায় বাধা দেয়ায় ইউপি সদস্যের আঙুল কেটে ফেলার অভিযোগ

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি :

মাদক ব্যবসায় বাধা দেয়ায় ইউপি সদস্যের আঙুল কেটে ফেলার অভিযোগ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় মাদক ব্যবসায় বাধা দেয়ায় দুই ভাই ও ভাতিজা মিলে আক্রমণ চালিয়ে খোকন মিয়া (৫৫) নামে অপর এক ভাইয়ের হাতের আঙুল কেটে ফেলেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল মঙ্গলবার রাতে উপজেলার কুটি ইউনিয়নের গঙ্গানগর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। 

আহত খোকন মিয়া কুটি ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য। সে গঙ্গানগর গ্রামের মৃত ইয়াকুব আলীর পুত্র। পরে পুলিশ খবর পেয়ে তাকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য  ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে পাঠায়। এ ঘটনায় আলমগীর হোসেন ও হানিফ মিয়া নামে দু’জনকে আটক করেছে পুলিশ। 

স্থানীয়রা জানায়, গতকাল মঙ্গলবার রাত প্রায় ৯টার দিকে তার ছোট ভাই আলমগীর হোসেনের ঘরে কয়েকজন মাদক বিক্রেতা আসে। এ খবর পেয়ে তার ঘরে তল্লাশির উদ্দেশ্যে আসে আলমগীরের বড় ভাই ইউপি সদস্য খোকন মেম্বার। তার উপস্থিতি টের পেয়ে দরজা বন্ধ করে রাখে আলমগীর। খোকন মেম্বার দরজা খুলতে বললে এক পর্যায়ে উত্তেজিত হয়ে নেশায় আসক্ত আলমগীর হোসেন (৩৫) ও মেম্বারের আরেক ভাই সায়েব আলী (৬০) ও তার ছেলে আনোয়ার হোসেন (৩০) হামলা চালায়। এক পর্যায়ে তাদের আক্রমণে খোকন মেম্বারের হাতের একটি আঙুল কেটে যায়। এসময় প্রাণ বাচাঁতে দৌঁড়ে ঘরের অন্য কক্ষে আশ্রয় নেন খোকন মেম্বার। পরে খবর পেয়ে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য জেলা সদর হাসপাতালে পাঠায়। 

কসবা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ লোকমান হোসেন বলেন, মাদক ব্যবসায় বাধা দেয়ায় গত মঙ্গলবার রাতে খোকন মেম্বারকে মারধোর করে তার নেশায় আসক্ত ভাই ও ভাতিজা। তাদের আক্রমণে তার হাতের একটি আঙুল কেটে গেছে। ঘটনার সাথে জড়িত দু’জনকে আটক করা হয়েছে। অভিযোগ পেলে  জড়িতদের বিরুদ্ধে বিধি মোতাবেক আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

বিডি-প্রতিদিন/শফিক


আপনার মন্তব্য