শিরোনাম
প্রকাশ : ৫ ডিসেম্বর, ২০২০ ২২:১৯
আপডেট : ৫ ডিসেম্বর, ২০২০ ২২:২৩
প্রিন্ট করুন printer

নবজাতক বিক্রির চেষ্টাকালে বাবা আটক, অতঃপর...

নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল

নবজাতক বিক্রির চেষ্টাকালে বাবা আটক, অতঃপর...

বরিশালের মুলাদীতে ২ মাস বয়সের শিশু সন্তান বিক্রির চেষ্টাকালে সোহরাব হোসেন নামে এক ব্যক্তিকে আটক করে থানায় সোপর্দ করেছে গ্রামবাসী। 

শনিবার বিকেলে আটক সোহরাব উপজেলা পৌর সদরের পূর্ব তেরচর এলাকায় ভাড়াটিয়া বাসিন্দা এবং স্থানীয় পৌরসভায় সুইপার। তার স্ত্রী পেশায় ভিক্ষুক। 

স্থানীয়রা জানান, সোহরাবের আয়-রোজগার কম হওয়ায় স্ত্রীর সাথে তার বাকবিতণ্ডা লেগেই থাকতো। সবশেষ শনিবার দুপুরের পর একই বিষয় নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া হয়। এর এক পর্যায়ে শিশু সন্তানকে সোহরাবের কাছে দিয়ে তাকে ঘর থেকে বের করে দেয় স্ত্রী। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে সোহরাব তার শিশু সন্তানকে নিয়ে প্যাদারহাট সিকদার বাড়িতে যায়। এ সময় সোহরাব তার শিশুকে দিয়ে দেয়ার জন্য কিছু টাকা দাবি করেন। 

তখন ওই বাড়ির বাসিন্দারা জানতে চায় সে তার সন্তানকে বিক্রি করতে চায় কিনা। সোহরাব তার বিকল্প কোন পথ নেই বলে তাদের জানান। এতে গ্রামবাসীর শিশু পাচারকারী হিসেবে সন্দেহ হলে তারা মুলাদী থানায় খবর দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে নবজাতকসহ সোহরাবকে আটক করে। 

মুলাদী থানার ওসি ফয়েজ উদ্দীন জানান, স্বামী-স্ত্রীর ঝগড়ার জের ধরে সোহবার শিশু সন্তানকে নিয়ে বাসা থেকে বের হয়ে বিক্রির চেষ্টা করে। এতে স্থানীয়দের শিশু পাঁচারকারী সন্দেহ হলে তারা থানায় খবর দেয়। পুলিশ তাকে আটক করে। পরবর্তীতে সোহরাবের স্ত্রীকে খবর দিয়ে থানায় নিয়ে আসা হয়। স্ত্রী অভিযোগ করেন সোহরাব বেশীরভাগ সময় মদ খেয়ে মাতাল থাকে। এ কারণে কোন টাকা দেয় না। সে ভিক্ষে করে যা পায় তা দিয়ে কোনভাবে খেয়ে-না খেয়ে থাকে। তারা শিশুটিকে ঠিকমত খাবার দিতে না পাড়ায় সোহরাবকে সন্তানসহ ঘর থেকে বের করে দেয় স্ত্রী। থানার কর্মকর্তারা স্বামী-স্ত্রী দুই জনের সাময়িক বিবাদ মিটিয়ে শিশুটির জন্য কাপড় ও খাবার কিনে তাদের বাড়িতে পাঠিয়ে দেন। 

বিডি-প্রতিদিন/সালাহ উদ্দীন


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর