শিরোনাম
প্রকাশ : ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১৯:০৯
প্রিন্ট করুন printer

টুঙ্গিপাড়ায় স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের প্রতিবাদে মানববন্ধন

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি

টুঙ্গিপাড়ায় স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের প্রতিবাদে মানববন্ধন

গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় নবম শ্রেণিতে পড়ুয়া এক স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের প্রতিবাদে ও দোষীদের শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন করেছে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসী।

বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ, টুঙ্গিপাড়া উপজেলা শাখার উদ্যোগে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। সোমবার সকাল ১০টায় উপজেলার জিটি স্কুলের সামনে গোপালগঞ্জ-টুঙ্গিপাড়া সড়কের উপর ঘণ্টাব্যাপী মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়।

এসময় দোষীদের শাস্তির দাবিতে বিভিন্ন ধরনের লেখা প্ল্যাকার্ড প্রদর্শন করা হয়। মানববন্ধনে উপজেলার বিভিন্ন স্কুলের শিক্ষার্থীরা অংশ নেন।

মানববন্ধন চলাকালে বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ, টুঙ্গিপাড়া উপজেলা শাখার সভাপতি লিমন বিশ্বাস, সহপাঠী মিতু হক বক্তব্য রাখেন। বক্তারা দোষীদের দ্রুত গ্রেফতার করে শাস্তির দাবি জানান।

মামলার এজাহার থেকে জানা গেছে, গত ১৪ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় উপজেলার একটি কোচিং সেন্টার থেকে পড়া শেষ করে বাসায় ফিরছিল ওই শিক্ষার্থী। তারা নতুন বাজার বটতলা এলাকায় পৌঁছালে ইজিবাইক চালকের সহযোগিতায় মিতুল, রসুল খান ও রাজীব শেখ চোখ বেঁধে তুলে নিয়ে যায় ওই শিক্ষার্থীকে।

পরে ওই তিন যুবক স্কুল ছাত্রীকে চেতনানাশক স্প্রে করে ধর্ষণের চেষ্টা করে। কিন্তু ওই শিক্ষার্থী বাধা দিলে তার মাথায় আঘাত করে তারা। এক পর্যায়ে ওই শিক্ষার্থী অজ্ঞান হয়ে পড়লে তাকে ধর্ষণ করে। রাত ৮টার দিকে অচেতন অবস্থায় তাকে তার বাসার সামনে ফেলে রেখে যায়। পরে পরিবারের লোকজন তাকে উদ্ধার করে টুঙ্গিপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়।

রাতে অবস্থার অবনতি ঘটলে গোপালগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানেও তার শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটলে পরদিন ১৫ ফেব্রুয়ারি বিকালে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

ভুক্তোভোগী শিক্ষার্থীর বাবা বলেন, এ ঘটনায় আমার পরিবারের ওপর দিয়ে ঝড় বয়ে যাচ্ছে। এ ঘটনায় টুঙ্গিপাড়া থানায় তিনজনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেছি। আমি দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।

আসামিরা হলেন-উপজেলার গওহরডাঙ্গা গ্রামের আনোয়ার হোসেনের ছেলে মিতুল হোসেন (১৫), টুঙ্গিপাড়া গ্রামের আনোয়ার উদ্দিন খানের ছেলে রসুল খান (২৫) ও শেখ শুকুর আহম্মেদের ছেলে রাজিব শেখ (২২)।

টুঙ্গিপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এএফএম নাসিম জানান, এ বিষযে ভুক্তোভোগীর বাবা টুঙ্গিপাড়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে। গোপালগঞ্জ ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ভিকটিমের ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন করা হয়েছে।

বিডি প্রতিদিন/এমআই


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর