শিরোনাম
প্রকাশ : ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১৬:৫৪
প্রিন্ট করুন printer

অবশেষে মেরামত হচ্ছে নান্দাইবাড়ি বেড়িবাঁধ

বাবুল আখতার রানা, নওগাঁ

অবশেষে মেরামত হচ্ছে নান্দাইবাড়ি বেড়িবাঁধ

প্রায় ৩৫ বছর পর নওগাঁর ছোট যমুনা নদীর নান্দাইবাড়ি তীর প্রতিরক্ষামূলক কাজ শুরু করা হয়েছে। বর্তমানে বাঁধের মাটির অংশের কাজ শেষ হয়ে ডাম্পিং ও প্লেসিং এর কাজ চলছে। ছোট যমুনা নদীর নান্দাইবাড়ি-কৃষ্ণপুর ও মালঞ্চি বেড়িবাঁধটি রাণীনগর ও আত্রাই উপজেলাবাসীর দীর্ঘদিনের গলার কাটা ছিল। 

জানা গেছে, প্রতি বছর নদীতে পানি এলে এই দুই উপজেলার বিশেষ করে কয়েকটি ইউনিয়নের অর্ধশতাধিক গ্রামের হাজারো মানুষ ও কয়েক হাজার হেক্টর জমির ফসল অনিশ্চতার মধ্যে থাকতো। অবশেষে স্থানীয় প্রশাসন ও নওগাঁ পানি উন্নয়ন বোর্ডের পরিশ্রমের ফল হিসেবে বেড়িবাঁধের ১৫০ ফুট দৈর্ঘ অংশের প্রতিরক্ষামূলক কাজ শুরু হয়েছে। উপজেলার নান্দাইবাড়ি বেড়িবাঁধের ১৫০ ফুট দৈর্ঘ্যের জন্য প্রায় ৩৯ লাখ টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। গত বছরের ডিসেম্বর থেকে কাজ শুরু হয় আর চলতি বছরের এপ্রিল মাসে পুরো কাজ শেষ হবে। বাঁধের ডাম্পিং ও প্লেসিং এর জন্য ৩৫০ কেজি ওজনের জিওব্যাগ বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। 

স্থানীয় বাসিন্দা বীর মুক্তিযোদ্ধা মোবারক আলী বলেন, এটি খুবই আনন্দের বিষয় যে গলার কাটা বাধটি অবশেষে স্থায়ীভাবে মেরামত করা হচ্ছে। বর্ষা মৌসুমে নদীতে পানি এলে বাড়ি ঘর ছেড়ে আসবাবপত্র নিয়ে আর উঁচু রাস্তায় গিয়ে আশ্রয় নিতে হবে না। জমির ফসল বন্যার পানিতে আর হারাতে হবে না। 

গোনা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আবুল হাসনাত খাঁন বলেন, বাঁধের শুধু নান্দাইবাড়ি অংশই নয় ধারাবাহিকভাবে ঝুঁকিপূর্ণ পুরো অংশেরই মেরামত করতে হবে দ্রুত। তা না হলে নদীতে পানি এলে আবার কোন না কোন অংশ ভেঙ্গে যাবে। তবে আশার আলো বাঁধের কিছু অংশের মেরামত কাজ করা হচ্ছে। 

নওগাঁ পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী ইঞ্জিনিয়ার প্রবীর কুমার পাল বলেন, সবার সার্বিক প্রচেষ্টায় প্রথম দফায় বাঁধের অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ অংশটুকু স্থায়ীভাবে মেরামত করা হচ্ছে। আগামীতে সরকার বাহাদুর বরাদ্দ দিলে অবশিষ্ট অংশটুকুও স্থায়ীভাবে মেরামত করা হবে। 

বিডি-প্রতিদিন/সালাহ উদ্দীন


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর