১৪ জুন, ২০২২ ১৭:১০

পাহাড়ে বৃষ্টি দেখে আশ্রয় কেন্দ্র প্রস্তুত, দুর্যোগ মোকাবেলা কমিটি গঠন

রাঙামাটি প্রতিনিধি

পাহাড়ে বৃষ্টি দেখে আশ্রয় কেন্দ্র প্রস্তুত, দুর্যোগ মোকাবেলা কমিটি গঠন

সম্প্রতি পাহাড়ে টানা বৃষ্টিপাত অব্যাহত থাকায় আশ্রয় কেন্দ্র খুলেছে রাঙামাটি জেলা প্রশাসন। পাহাড়বাসীর নিরাপত্তায় গঠন করা হয়েছে দুর্যোগ মোকাবেলা কমিটি। বিশেষ ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা হিসেবে রাঙামাটি শহর, কাপ্তাই ও কাউখালীতে অব্যাহত রাখা হয়েছে সতর্কতা মাইকিং। মঙ্গলবার বেলা ১১টায় রাঙামাটি জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে আসন্ন বর্ষা মৌসূমে পাহাড় ধস বন্যা, ভূমিকম্প ও প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবেলা বিষয়ে একটি জরুরি সভা অনুষ্ঠিত হয়। 

এতে সভাপতিত্ব করেন রাঙামাটি জেলা প্রশাসক মো. মিজানুর রহমান। এসময় রাঙামাটি অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. মামুন, জেলা অতিরিক্তি পুলিশ সুপার মো. জাহিদ, পৌর মেয়র মো. আকবর হোসেন চোধূরী ও রাঙামাটি সেনা জোনের বিশেষ প্রতিনিধি মেজর মো. তৌহিদ উপস্থিত ছিলেন।

রাঙামাটি জেলা প্রশাসক মো. মিজানুর রহমান বলেন, বর্ষার আগেই পাহাড়ে বৃষ্টিপাত অব্যাহত আছে। তাই এখন থেকে পাহাড়বাসীকে সচেতন করতে হবে। যাতে পাহাড় ধসে একটি জানমালের ক্ষতি না হয়। তিনি বলেন, রাঙামাটি পৌর এলাকার ৯টি ওয়ার্ডে ২৯টি আশ্রয় কেন্দ্র সব সময় প্রস্তুত করা হয়েছে। শুধু তাই নয় পরিস্থিতি ভয়াবহ হলে বিভিন্ন বিদ্যালয়, কলেজ, সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোও আশ্রয় কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহার করা যাবে। একই তথ্য অফিসের পক্ষ থেকে পাহাড়বাসিদের সর্তক করতে মাইকিং করা হচ্ছে। 

এসময় রাঙামাটি পৌর মেয়র মো. আকবর হোসেন চৌধূরী বলেন, রাঙামাটি শহর এলাকায় এক লাখ ২৫ হাজারের অধিক মানুষ পাহাড় ধসের ঝুঁকিতে বসবাস করছে। ঝুঁকিপূর্ণ এলাকাগুলো হচ্ছে- শহরের শিমুলতলী, নতুন পাড়া, মনতলা, রাঙ্গাপানি, রির্জাভ, এসপি অফিস সংলগ্ন এলাকা, শহীদ আবদুুল আলী একাডেমী সংলগ্ন ঢাল, পুলিশ লাইন সংলগ্ন ঢাল, স্বর্ণটিলা পাহাড়ের ঢাল, রাজমণিপাড়া পাহাড়ের ঢাল, রেডিও স্টেশনের পাশে শিমুলতলী পাহাড়ের ঢাল, লোকনাথ মন্দির পাহাড়ের ঢাল, আনসার ক্যাম্প সংলগ্ন পাহাড়ের ঢাল, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সংলগ্ন পাহাড়ের ঢাল, চম্পক নগর পাহাড়ের ঢাল, পাবলিক হেলথ পাহাড়ের ঢাল, আমানতবাগ পাহাড়ের ঢাল, মুজিবনগর পাহাড়ের ঢাল এলাকায়। বৃষ্টি দেখলেও এসব মানুষগুলো সহজে আশ্রয় কেন্দ্রে যেতে চাইনা। অনেকেই নিজেদের ঝুঁকি নিজেরা তৈরি করছে। এসব মানুষকে বেশি সর্তক করা প্রয়োজন। এ বিষয়ে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, পুলিশ, ফায়ার সার্ভিসসহ স্থানীয় জন প্রতিনিধিদের বিশেষ সতর্কতা অবলম্বন করার নিদের্শ দেন জেলা প্রশাসক। 


বিডি প্রতিদিন/হিমেল

সর্বশেষ খবর