৬ অক্টোবর, ২০২২ ১৮:৪১

আজও কুয়াকাটায় পর্যটকদের ভিড়

কলাপাড়া (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি

আজও কুয়াকাটায় পর্যটকদের ভিড়

কুয়াকাটার সৈকতে আজও ভিড় জমিয়েছে হাজারো পর্যটক। আগত পর্যটকরা সমুদ্রের নোনা জলে গাঁ ভাসিয়ে আনন্দ উন্মাদনায় মেতেছেন।

অনেকে ঘুরে ঘুরে উপভোগ করছেন কুয়াকাটার কুয়া, লেম্বুরবন, তিন নদীর মোহনা, গঙ্গামতির লেক, লাল কাঁকড়ার চর, মিশ্রিপাড়া বৌদ্ধ বিহার, শ্রী মঙ্গল বৌদ্ধ বিহার, রাখাইন পল্লীসহ বিভিন্ন দর্শনীয় পর্যটন স্পট। অনেকে আবার সৈকতের বেঞ্চিতে বসে উপভোগ করছে সমুদ্রের ছোট ছোট ঢেউ তীরে এসে আছড়ে পড়া। 

পর্যটকদের এমন ভিড়ে বুকিং রয়েছে কুয়াকাটার সকল হোটেল মোটেল। হাসি ফুটেছে ব্যবসায়ীদের মুখে। আগতদের সার্বিক নিরাপত্তায় মাঠে কাজ করছে ট্যুরিস্ট পুলিশ ও মহিপুর থানা পুলিশ। 

স্থানীয় জানায়, একসময় ঢাকা থেকে একাধিক ফেরি পার হয়ে কুয়াকাটায় আসতে হতো। পৌঁছাতে ২০ থেকে ২৫ ঘণ্টা সময় লাগত। সর্বশেষ ভোগান্তি ছিল মাওয়া-জাজিরা পয়েন্টের ফেরি। এখন সেখানে পদ্মা সেতু নির্মিত হয়েছে। এখন ফেরিবিহীন মাত্র ছয় ঘণ্টায় কুয়াকাটায় পৌঁছানো যায়। এ কারণে সরকারি ছুটি উপলক্ষে এসকল পর্যটকদের আগমন ঘটে। তবে কুয়াকাটার হোটেল-মোটেলগুলোর অধিকাংশই আগাম বুকিং রয়েছে। পর্যটকদের ভিড় দেখে খাবার হোটেলসহ ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরাও খুশি।
 
কুয়াকাটা ট্যুরিজম ম্যানেজমেন্ট এসোসিয়েশন কুটুমের সাধারণ সম্পাদক মো হোসাইন আমির বলেন, পদ্মা সেতু উদ্বোধনের পর পরই কুয়াকাটায় পর্যটকরা আসতে শুরু করেছে। আমাদের পক্ষ থেকে আগত পর্যটকদের সার্বিক সহযোগিত অব্যহত রেখেছি।

কুয়াকাটা হোটেল মোটেল ওনার্স এসোসিয়েশনের সেক্রেটারি এমএ মোতালেব শরীফ বলেন, দ্বিতীয় ও তৃতীয় শ্রেণির হোটেলে রুম অগ্রীম বুকিং রয়েছে। আগামী ৮-৯ তারিখ পর্যন্ত এমন অবস্থা থাকবে।

কুয়াকাটা ট্যুরিস্ট পুলিশ জোনের পরিদর্শক মো. হাসনাইন পারভেজ বলেন, আগত পর্যটকদের সার্বিক নিরাপত্তা দিতে ট্যুরিস্ট পুলিশ তৎপর রয়েছে।

বিডি-প্রতিদিন/সালাহ উদ্দীন

সর্বশেষ খবর