Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ২১ নভেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা
আপলোড : ২১ নভেম্বর, ২০১৬ ০০:২৫

আল্লাহ সব ধরনের জুলুম হারাম করেছেন

মাওলানা মুহম্মাদ আশরাফ আলী

আল্লাহ সব ধরনের জুলুম হারাম করেছেন

আল্লাহ সত্য, সুন্দর ও কল্যাণের সত্তা। সব ধরনের অসত্য, অসুন্দর ও অকল্যাণ থেকে মুক্ত তিনি। আল্লাহর ক্ষমতার কোনো সীমা-পরিসীমা নেই। ন্যায় ও মহানুভবতার উৎসও তিনি। হাদিসে কুদসিতে মহান আল্লাহর গুণাবলি বর্ণনা করা হয়েছে নিপুণভাবে। হজরত আবু যর (রা.) বলেন : নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম আল্লাহতায়ালার পক্ষ থেকে বর্ণনা করেন, তিনি বলেছেন : “হে আমার বান্দাগণ! নিশ্চয় আমি আমার ওপর জুলুম হারাম করেছি, আমি তোমাদের মাঝেও তা হারাম করেছি, অতএব তোমরা জুলুম কর না। হে আমার বান্দাগণ! তোমাদের প্রত্যেকেই গোমরাহ তবে আমি যাকে হেদায়েত দেই, অতএব আমার কাছে হেদায়েত তলব কর আমি তোমাদের হেদায়েত দিব। হে আমার বান্দাগণ! তোমরা সবাই ক্ষুধার্ত তবে আমি যাকে খাদ্য দেই, অতএব আমার নিকট খাদ্য তলব কর আমি তোমাদের খাদ্য দিব। হে আমার বান্দাগণ! তোমরা সবাই বিবস্ত্র তবে আমি যাকে বস্ত্র দান করি, অতএব আমার কাছে বস্ত্র তালাশ কর আমি তোমাদের বস্ত্র দিব। হে আমার বান্দাগণ! তোমরা রাত ও দিনে ভুল কর, আমি তোমাদের সব পাপ মোচন করি, অতএব আমার কাছে ক্ষমা চাও আমি তোমাদের ক্ষমা করব। হে আমার বান্দাগণ! তোমরা আমার ক্ষতি পর্যন্ত পৌঁছতে পারবে না যে আমার ক্ষতি করবে। আর না তোমরা আমার উপকার পর্যন্ত পৌঁছতে পারবে যে আমার উপকার করবে। যদি তোমাদের পূর্বপুরুষ ও পরবর্তী পুরুষ এবং মানুষ ও জিন সবাই তোমাদের মধ্যে সবচেয়ে নেক্কার ব্যক্তির মতো হয়ে যাও, তাও আমার রাজত্ব সামান্য বৃদ্ধি করবে না। হে আমার বান্দাগণ! যদি তোমাদের পূর্বপুরুষ ও পরবর্তী পুরুষ এবং মানুষ ও জিন সবাই তোমাদের মধ্যে সবচেয়ে খারাপ লোকের মতো হয়ে যাও, তাও আমার রাজত্ব সামান্য হ্রাস করবে না। হে আমার বান্দাগণ! যদি তোমাদের পূর্বপুরুষ ও পরবর্তী পুরুষ এবং মানুষ ও জিন এক ময়দানে দাঁড়িয়ে আমার কাছে প্রার্থনা করে, অতঃপর আমি প্রত্যেককে তার প্রার্থিত বস্তু প্রদান করি, তাও আমার কাছে যা রয়েছে তা হ্রাস করতে পারবে না, এ পরিমাণও সুই যে পরিমাণ পানি হ্রাস করে যখন তা সমুদ্রে প্রবেশ করানো হয়। হে আমার বান্দাগণ! এ তো তোমাদের আমল যা আমি তোমাদের জন্য সংরক্ষণ করি, অতঃপর তোমাদের তা পূর্ণ করে দেব। অতএব যে ভালো কিছু পেল সে যেন আল্লাহর প্রশংসা করে, যে অন্য কিছু পেল সে যেন নিজেকে ভিন্ন কাউকে দোষারোপ না করে।” (মুসলিম, তিরমিজি ও ইবনে মাজাহ)।

     লেখক : ইসলামী গবেষক


আপনার মন্তব্য