শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ১৮ জুলাই, ২০১৭ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৭ জুলাই, ২০১৭ ২২:৪৯

একটি সঠিক সিদ্ধান্ত

সব সেবা খাত সিটি করপোরেশনে ন্যস্ত হোক

একটি সঠিক সিদ্ধান্ত

দেরিতে হলেও রাজধানীর জলাবদ্ধতা সমস্যা সমাধানে সঠিক পথে এগোনোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এ সমস্যা সমাধানে ড্রেনেজব্যবস্থার দায়িত্ব ওয়াসা নামের সাদা হাতির বদলে সিটি করপোরেশনের ওপর অর্পণের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। রবিবার গুলশানের ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের নগর ভবনে রাজধানীর জলাবদ্ধতা নিরসনে বিভিন্ন সেবা সংস্থার সমন্বয় সভায় স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন নাগরিকদের সুযোগ-সুবিধা দেখার সঙ্গে সরাসরি সম্পৃক্ত প্রতিষ্ঠান হিসেবে সিটি করপোরেশনকে ড্রেনেজব্যবস্থার দায়িত্ব নেওয়ার নির্দেশনা দেন। তিনি জলাবদ্ধতা নিরসনে দুই সিটি করপোরেশনকে পৃথক রোডম্যাপ তৈরির নির্দেশ দেন। বৈঠকে স্থানীয় সরকারমন্ত্রী ঢাকা ওয়াসার ড্রেনেজ অব্যবস্থাপনায় তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, জলাবদ্ধতাই ঢাকা মহানগরীর প্রধান সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। এ সমস্যা এক দিনে তৈরি হয়নি এবং ওয়াসার অব্যবস্থাপনাই জলাবদ্ধতার প্রধান কারণ। নাগরিক সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান হলেও ওয়াসা আজ নাগরিকদের কাছ থেকে অনেক দূরে সরে গেছে। সেবাপ্রাপ্তির ক্ষেত্রে মানুষ ওয়াসাকে কাছে পায় না। তাই জলাবদ্ধতা সমস্যা সমাধানে ওয়াসা নয়, সিটি করপোরেশনকেই প্রধান দায়িত্ব পালন করতে হবে। তাদের সঙ্গে অন্যান্য সংস্থাও কাজ করবে। সমস্যা সমাধানে নাগরিকদেরও এগিয়ে আসতে হবে। স্মর্তব্য, রাজধানীর ড্রেনেজব্যবস্থার বিভিন্ন অংশ ওয়াসা, রাজউক, সিটি করপোরেশন, ঢাকা জেলা প্রশাসন ও বিআইডব্লিউটিসি দেখভাল করে। সমন্বয়হীনতার কারণে জলাবদ্ধতা রাজধানীবাসীর নিয়তির লিখনে পরিণত হয়েছে। রাজধানীর ড্রেনেজব্যবস্থার দায়িত্ব ওয়াসার বদলে সিটি করপোরেশনের হাতে ন্যস্ত করার সিদ্ধান্তকে আমরা তাৎপর্যপূর্ণ বলে অভিহিত করতে চাই। আমাদের মতে, শুধু ড্রেনেজব্যবস্থা নয়, রাজধানীতে সেবাদান করা হয় এমন সব প্রতিষ্ঠানের নিয়ন্ত্রণ সিটি করপোরেশনের হাতে ন্যস্ত করার কথা ভাবতে হবে। রাস্তাঘাট নির্মাণ ও সংস্কার, ড্রেনেজ ব্যবস্থাপনা, পানীয় জল, বিদ্যুৎ ও গ্যাস সরবরাহ এমনকি ট্রাফিকব্যবস্থা ও আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণেও সিটি করপোরেশনের নেতৃত্ব থাকা উচিত। এ উদ্দেশ্যে নগর সরকার প্রতিষ্ঠার কথাও ভাবা যেতে পারে।


আপনার মন্তব্য