শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ২৬ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৫ জানুয়ারি, ২০২০ ২১:৫৫

ছবিতে নেই তবু আলোচনায় তারা

ষাট থেকে নব্বইয়ের দশক পর্যন্ত প্রচুর তারকা এসেছেন ঢালিউডে। তাদের মধ্যে অনেকেই অভিনয় থেকে দূরে রয়েছেন দীর্ঘদিন। তারপরও নানাভাবে আলোচনায় রয়েছেন তারা। এমন কয়েকজন আলোচিত তারকার কথা তুলে ধরেছেন- আলাউদ্দীন মাজিদ

ছবিতে নেই তবু আলোচনায় তারা
শবনম

শবনম

 

১৯৬১ সালে মুস্তাফিজের ‘হারানো সুর’ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে অভিনেত্রী হিসেবে ঢালিউডে অভিষেক ঘটে শবনমের। ১৯৮৮ সালে তিনি পাকিস্তানে স্থায়ী হন। ১৯৯৯ সালে পুনরায় বাংলাদেশে এসে কাজী হায়াতের ‘আম্মাজান’ ছবিতে অভিনয় করেন। এরপর তাকে আর বড় পর্দায় দেখা না গেলেও এখনো দর্শক তার কথা ভোলেননি।

 

 

শাবানা

১৯৬২ সালে নির্মাতা আজিজুর রহমানের হাত ধরে চলচ্চিত্রে এসে নির্মাতা এহতেশামের ‘নতুন সুর’ ছবিতে শিশুশিল্পী ও ১৯৬৭ সালে একই নির্মাতার ‘চকোরি’ ছবিতে নায়িকা হিসেবে অভিষেক হয় তার। ১৯৯৭ সালে অভিনয় জীবন থেকে অবসর নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী হন। বিদেশে থাকলেও তার  জনপ্রিয়তা রয়ে গেছে।

 

সুচন্দা

১৯৬৬ সালে সুভাষ দত্তের ‘কাগজের নৌকা’ ছবির মাধ্যমে অভিনেত্রী হিসেবে সুচন্দার বড় পর্দায় অভিষেক ঘটে। ১৯৮৫ সাল পর্যন্ত অভিনয় করে যান তিনি। এখনো অভিনেত্রী, নির্মাতা হিসেবে আলোচনায় রয়েছেন সুচন্দা।

 

ববিতা

১৯৬৮ সালে জহির রায়হানের ‘সংসার’ ছবির মাধ্যমে চিত্রজগতে অভিষেক ববিতার। এরপর ২০১৫ সাল পর্যন্ত প্রায় আড়াইশ ছবিতে অভিনয় করেন। ২০১৫ সালে সর্বশেষ অভিনয় করেন নার্গিস আক্তারের ‘পুত্র এখন পয়সাওয়ালা’ ছবিতে। তিনি এখন সংসার ও সামাজিক কর্মকান্ডে ব্যস্ত থাকলেও দর্শক তাকে মিস করেন।

 

অঞ্জনা

১৯৭৬ সালে শামসুদ্দিন টগর পরিচালিত ‘দস্যু বনহুর’ ছবির মাধ্যমে বড় পর্দায় অভিষেক ঘটে নৃত্যপটিয়সী এই নায়িকার। ১৯৯২ সাল পর্যন্ত কেন্দ্রীয় চরিত্র রূপায়ণ করেন। ২০০৮ সালে ‘ভুল’ ও ‘হাঙ্গামা’ নামের দুটি ছবিতে অভিনয় করেন। এখনো তিনি সামাজিক ও রাজনৈতিক কর্মকান্ডে সক্রিয় রয়েছেন।

 

অঞ্জু ঘোষ

১৯৮২ সালে এফ কবীর চৌধুরী পরিচালিত ‘সওদাগর’ সিনেমার মাধ্যমে অঞ্জুর চলচ্চিত্রে অভিষেক ঘটে। ১৯৮৯ সালে তার অভিনীত ‘বেদের মেয়ে জোছনা’ অপ্রত্যাশিত ব্যবসা করে।

১৯৯৬ সালে কলকাতায় প্রবাসী হন। ২০১৮ সালে ঢাকায় এসে তিনি সাইদুর রহমান সাইদ পরিচালিত ‘মধুর ক্যান্টিন’ ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হন।

 

রোজিনা

১৯৭৬ সালে কালিদাসের ‘জানোয়ার’ পরে এফ কবীর চৌধুরী পরিচালিত ‘রাজমহল’ ছবিতে মুখ্য অভিনেত্রী হিসেবে কাজ করেন। নব্বই দশকের শেষ ভাগে যুক্তরাজ্য প্রবাসী হন। ২০০৫ সালে দেশে ফিরে মতিন রহমানের ‘রাক্ষুসী’ ছবিতে অভিনয় করেন।

 

শাবনাজ

১৯৯১ সালে এহতেশামের ‘চাঁদনী’ ছবির মাধ্যম বড় পর্দায় আসেন শাবনাজ। ২০০৪ সালে সংসার আর ধর্মকর্ম নিয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়েন তিনি। এই নায়িকাকে এখনো ভোলেননি দর্শক।


আপনার মন্তব্য