বৃহস্পতিবার, ২ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০০:০০ টা

আবারও মুখরিত নাটকপাড়া

আবারও মুখরিত নাটকপাড়া

করোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় ঈদ-পরবর্তী পুনরায় জমজমাট হয়েছে নাটকপাড়া। দেশের বিভিন্ন লোকেশনে চলছে টিভি নাটক, টেলিফিল্ম, ধারাবাহিক ও ওয়েব কনটেন্ট নির্মাণ। মুখরিত নাট্যপাড়া নিয়ে খবর জানাচ্ছেন- পান্থ আফজাল

ঈদ উৎসবকে কেন্দ্র করে নাটক নির্মাণের ব্যস্ততা এখন নেই। এর মধ্যেই করোনা আতঙ্ক! তবুও স্বাস্থ্যবিধি মেনে সতর্কতা অবলম্বন করে শুটিং চলছে বিভিন্ন হাউসে। কেউ কেউ আউটডোরেও শুটিং করছেন। শুধু টিভি চ্যানেলের জন্য নয়; বিভিন্ন ধরনের কনটেন্ট নির্মিত হচ্ছে ওটিটি প্ল্যাটফরম ও ইউটিউব চ্যানেলের জন্যও। খোঁজ নিয়ে জানা যায়, বিভিন্ন হাউসে ও স্পটে প্রায় ৮-১০টি সিরিয়ালের কাজ চলছে। তবে একক নাটক নির্মাণ যত বেশি হতো তেমন হচ্ছে না; তুলনামূলকভাবে কম হচ্ছে। প্রথম সারির অভিনয়শিল্পীরাও করোনা আতঙ্কে শুটিং কম করছেন। যদিও শুটিং করতে সংগঠন থেকে বা সরকারি নিষেধাজ্ঞা নেই এখন আর। অনেক নির্মাতা, অভিনয়শিল্পী করোনার ডোজ নিয়ে শুটিংয়ে ফিরবেন বলে জানা যায়। তা অবশ্য ১০ তারিখের পর। এদিকে থেমে নেই বিভিন্ন শুটিং হাউসের ব্যস্ততা। উত্তরার বিভিন্ন শুটিং হাউসে চলছে নাটকের শুটিং। আপনঘর ১, ২, লাবণী, হিমনীড়, মন্দিরাসহ উত্তরার সব শুটিং হাউস ধীরে ধীরে ব্যস্ত হয়ে পড়েছে। তবে আগের তুলনায় কম। পুরান ঢাকা, পুবাইল, দিয়াবাড়িসহ রাজধানীর বিভিন্ন হাউস ও স্পটেও হচ্ছে শুটিং। এদিকে ঈদে বানানো আগের বেশ কিছু নাটক বিভিন্ন টিভি ও ইউটিউবে প্রচার হচ্ছে। তাই এখন নির্মাণের সংখ্যাও কম। অনেক নির্মাতার সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বাজেট, গল্প, অভিনয়শিল্পী ও লোকেশন নিয়ে তাঁরা প্রস্তুতি নিচ্ছেন। সবকিছু পরিকল্পনা করে তাঁরা কয়েক দিনের মধ্যেই শুটিংয়ে যাবেন।

এদিকে সোমবার উত্তরার শুটিং হাউসে দেশের প্রথম সারির দুই শীর্ষ অভিনয়শিল্পী আফরান নিশো ও মেহজাবিন একটি একক নাটকে অংশ নিয়েছেন। তাঁদের সঙ্গে ছিলেন মামুনুর রশীদ ও শিল্পী সরকার অপু। এটির নির্মাতা নঈম ইমতিয়াজ নিয়ামুল। গতকাল উত্তরার আরেকটি হাউসে একটি একক নাটকের শুটিং করেছেন সাফা ও শাওন। অন্যদিকে আবু হায়াত মাহমুদ উত্তরার হাউস ও ৩০০ ফুট মিলিয়ে মোশাররফ করিম ও অর্ষাকে নিয়ে শুটিং করছেন ‘দ্য ব্রোকার’-এর। এই ওয়েব সিরিজটি জি-ফাইভের জন্য তৈরি হচ্ছে বলে জানা যায়। নাটকের শুটিং নিয়ে ব্যস্ত রয়েছেন মুশফিক, ফারহান, ইরফান, মিশু, সাব্বির, পারসা, ইভানাসহ বেশ কিছু অভিনয়শিল্পী। জোভান শুটিংয়ের পরিকল্পনা করছেন। তবে করোনা ডোজ নিয়ে ৬-৭ তারিখের পর শুটিংয়ে নামবেন। খোঁজ নিয়ে জানা যায়, শুটিং পাড়ায় সবার ব্যস্ততা বাড়বে আগের মতোই জোরেশোরে। নাট্য নির্মাতা সহিদ উন নবী ১০, ১১, ১২ তারিখে মোশাররফ করিমকে নিয়ে শুটিং পরিকল্পনা করছেন ‘অ্যাম্বুলেন্স’ নাটকের। শুটিং করবেন ঢাকার আশপাশেই। তিনি বলেন, ‘এখন তো শুটিং করতে কোনো বাঁধা নেই। তবে করোনা ডোজ নিয়ে শুটিংয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা সবার। ১০ তারিখের পর পুরোদমে নাটকের পাড়া ব্যস্ত হয়ে পড়বে। তবে অনেক সিরিয়ালের শুটিং চলছে এখন।’ এদিকে তুহিন হোসেন, রাফাত মজুমদার রিংকু, হাসান রেজাউলসহ অনেক নির্মাতাই শুটিং পরিকল্পনা করছেন। হাসান রেজাউল ৪ ও ৫ তারিখে মিশু, সাব্বির ও তানিয়া বৃষ্টিকে নিয়ে তৈরি করছেন ‘প্রিয় ট্রমা’ নাটক। এরপর করবেন দৈব, মৌরি ও আর্তনাদ। তৌসিফ, জোভান, নিশো, মেহজাবিনকে নিয়ে দুটি কাজের পরিকল্পনায় রয়েছেন রাফাত মজুমদার রিংকু। গল্প ও বিভিন্ন বিষয় নিয়ে প্রস্তুতি নিচ্ছেন। ইকবাল খন্দকারের ১৩ বই থেকে ১৩ নাটক নিমাণ করবেন মনজুরুল হক মনজু। শুটিং শুরু হচ্ছে এই মাস থেকেই। ‘লাকি থার্টিন’-এর প্রথম নাটক ‘বাজান’। প্রযোজনা হাউসগুলো বিভিন্ন প্ল্যাটফরমের জন্য নাটকের শুটিংয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়েছে। তুলনামূলকভাবে বেশ কিছু কনটেন্ট নির্মিত হচ্ছে। বেশ কিছু প্রবীণ-নবীন তারকা শুটিং নিয়ে ব্যস্ত এখন। তবে সবাই পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার প্রত্যাশা করছেন। টিভি অনুষ্ঠান বিভাগ, অডিও প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান, ওটিটি ও ইউটিউব-সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, তাঁরা পুরোদমে নির্মাণের প্রস্তুতি নিচ্ছেন। কিছু নির্মিত হয়েছে, আরও কিছুর শুটিং পরিকল্পনা চলছে। বঙ্গবিডির চিফ কনটেন্ট অফিসার মুশফিকুর রহমান বলেন, ‘প্রস্তুতি চলছে। অনেকের সঙ্গে কথাবার্তা হচ্ছে।’ সিরিয়ালের মধ্যে শুটিং চলছে আবু হায়াত মাহমুদের ‘একশতে একশ’, হিমু আকরামের ‘শান্তি মলম ১০ টাকা’, নিমা রহমানের ‘গুলশান এভিনিউ-টু’, কায়সার আহমেদের ‘জাদুনগর’সহ বেশ কিছুর। তবে করোনার প্রকোপ আশঙ্কাজনক হারে বেড়ে যাওয়ায় তারকাদের মধ্যে এখন ভয় কাজ করছে। এর আগে অভিনয়শিল্পী সংঘের সাধারণ সম্পাদক আহসান হাবিব নাসিম জানান, ‘স্বাস্থ্যবিধি মেনে শুটিং করছেন সবাই।’

এই রকম আরও টপিক