১৫ জুলাই, ২০২২ ১১:৪১

তিনবার বিয়ে হতে হতে হয়নি, এবার কি গাঁটছড়া বাঁধবেন সুস্মিতা?

অনলাইন ডেস্ক

তিনবার বিয়ে হতে হতে হয়নি, এবার কি গাঁটছড়া বাঁধবেন সুস্মিতা?

সুস্মিতা সেন

বলিউডের আলোচিত অভিনেত্রী সুস্মিতা সেন। মাত্র ১৮ বছর বয়সে মিস ইন্ডিয়া এবং মিস ইউনিভার্স। ২০ বছর বয়সে বিনোদন জগতে অভিষেক। বলিউডের ক্যারিয়ার সেভাবে নজরকাড়া না হলেও নিজের ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে প্রায়ই চর্চায় থাকেন সুস্মিতা সেন।

১৯৭৫ সালের নভেম্বর মাসে হায়দারাবাদের এক বাঙালি পরিবারে তার জন্ম। বাবা সুবীর সেন ছিলেন ভারতীয় বিমান বাহিনীর সাবেক উইং কমান্ডার। মা শুভ্রা সেন জুয়েলারি ডিজাইনার। দুবাইয়ে নিজস্ব দোকানও আছে তার।

মডেলিং নিয়ে তেমন কোনও আগ্রহ না থাকলেও কৌতূহলবশত মিস ইন্ডিয়া প্রতিযোগিতার ফর্ম পূরণ করেছিলেন। ১৯৯৪ সালে ঐশ্বরিয়া রাইকে হারিয়ে ‘মিস ইন্ডিয়া’ হন সুস্মিতা। ওই বছরই মাত্র ১৮ বছর বয়সে তিনি ‘মিস ইউনিভার্স’ খেতাব জেতেন তিনি।

১৯৯৬ সালে ‘দস্তক’ ছবির মাধ্যমে বলিউডে অভিষেক হয় তার। তারপর ‘বিবি নাম্বার ওয়ান’, ‘সির্ফ তুম’, ‘ফিজা’, ‘আঁখে’, ‘ম্যায় হু না’-র মতো অসংখ্য ছবিতে অভিনয় করেছেন সুস্মিতা।

ক্যারিয়ারে তেমন গতি না পেলেও তার ব্যক্তিগত জীবন কখনও প্রচারের আলো থেকে সরে যায়নি। ইন্ডাস্ট্রি বা ইন্ডাস্ট্রির বাইরের একাধিক নামীদামি ব্যক্তিত্বের সঙ্গে নাম জড়িয়েছে তার।

কখনও রণদীপ হুদা, কখনও মুম্বাইয়ের রেস্তরাঁর মালিক রিতিক ভাসিন, কখনও পরিচালক বিক্রম ভাট, তো কখনও তার চেয়ে বয়সে অনেক ছোট রোহমান শলের সঙ্গে নাম জড়িয়েছে তার।

সুস্মিতার জীবনে প্রথম প্রেম হয়ে এসেছিলেন রজত তারা। তখনও বিশ্বসুন্দরীর খেতাব জোটেনি অভিনেত্রীর। দিল্লিবাসী, সদ্যতরুণী সুস্মিতা সে সময়েই রজতের সঙ্গে সম্পর্কে জড়ান।

‘কর্মা অ্যান্ড হোলি’ ছবির শুটে সুস্মিতার আলাপ রণদীপ হুদার সঙ্গে। সেখান থেকে প্রেম। রীতিমতো শোরগোল ফেলেছিল তাদের সম্পর্ক। যদিও বেশি দিন টেকেনি তা।

রণদীপের আগে সুস্মিতা সম্পর্কে জড়িয়েছিলেন পরিচালক বিক্রম ভাটের সঙ্গে। ‘দস্তক’ ছবিতে কাজ করতে গিয়ে বিবাহিত বিক্রমের সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন অভিনেত্রী। তার জেরে নাকি ঘর ভেঙেছিল ওই পরিচালকের!

বিক্রম ভাটের সঙ্গে বিচ্ছেদের পর তার নাম জড়িয়েছিল হোটেল মালিক সঞ্জয় নারাংয়ের সঙ্গে। সেই সম্পর্ক অবশ্য বেশি দূর গড়ায়নি।

সঞ্জয়ের পর কখনও বান্টি সাচদেব, কখনও হটমেলের প্রতিষ্ঠাতা সাবির ভাটিয়া, কখনও পরিচালক মুদাসসার আজিজ, মানব মেননের সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়েছেন সুস্মিতা। কিন্তু কোনওটিই সেই অর্থে দীর্ঘস্থায়ী হয়নি।

আলোড়ন ফেলে দিয়েছিল পাকিস্তানের ক্রিকেট কিংবদন্তি ওয়াসিম আকরামের সঙ্গে সুস্মিতা সেনের সম্পর্কের খবর। ২০০৮ সালে এক রিয়্যালিটি শোয়ের সেটে দু’জনের আলাপ। ওই শোয়ের বিচারক ছিলেন দু’জনেই।

২০০৯ সালে আকরামের স্ত্রীর মৃত্যুর পর একে অপরের আরও কাছে চলে আসেন। নানা অনুষ্ঠানে দু’জনকে এক সঙ্গে দেখা যায় ওই সময়।

দু’জনই কখনও একে অপরের সঙ্গে সম্পর্কে থাকার কথা সরাসরি স্বীকার করেননি। কিন্তু বলিপাড়ার গুঞ্জন বলে, পাকিস্তানি ক্রিকেটারকে নাকি বিয়েও করেছিলেন অভিনেত্রী!

সুস্মিতার সাড়াজাগানো প্রেমিকদের অন্যতম অনিল আম্বানী। অনিলের সঙ্গে তার স্ত্রী টিনার সম্পর্কে তিক্ততার ফাঁক গলেই নাকি তার মনে জায়গা করে নেন অভিনেত্রী। শোনা যায়, সুস্মিতাকে ২২ ক্যারেটের হিরের আংটি উপহার দিয়েছিলেন অনিল!

এ-ও শোনা যায়, সুস্মিতার প্রেমে অনিল আম্বানী এতটাই পাগল হয়ে গিয়েছিলেন যে, স্ত্রী টিনা মুনিমকে ডিভোর্স দিতে উঠেপড়ে লেগেছিলেন তিনি। কিন্তু টিনা তাকে ডিভোর্স দেননি। শেষমেশ পরিবারের হস্তক্ষেপে এই সম্পর্ক থেকে সরে আসেন অনিল।

বয়সে অনেক ছোট মডেল রোহমান শলের সঙ্গে দীর্ঘ তিন বছর সম্পর্কে ছিলেন সুস্মিতা। গত বছর আচমকা সেই সম্পর্কে ইতি টানেন অভিনেত্রী।

বৃহস্পতিবার ফের খবরের শিরোনামে উঠে আসেন অভিনেত্রী। এবার সম্পর্কে জড়িয়েছেন সাবেক আইপিএল-কর্তা ললিত মোদীর সঙ্গে।

এই খবর যদিও নিজে জানাননি সুস্মিতা। নিজের সোশ্যাল মিডিয়া হ্যান্ডেলে একের পর এক ছবি ছেড়ে নিজেদের সম্পর্কের কথা ঘোষণা করেছেন ললিত মোদী।

পরিবারের সঙ্গে মালদ্বীপ এবং সার্ডিনিয়ায় ছুটি কাটানোর ছবি শেয়ার করার সময়ই সুস্মিতার সঙ্গে নিজের ছবি শেয়ার করেন ললিত মোদী। অভিনেত্রীকে নিজের ‘বেটার হাফ’ বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

সুস্মিতা চিরকালই নিজের ছন্দে জীবন কাটাতে পছন্দ করেন। তার এই যে একাধিক পুরুষ-সঙ্গী, কখনও তা গোপন করেননি তিনি। বরং যখনই যার সঙ্গে সম্পর্ক হয়েছে, খুব খোলামেলাভাবেই সেই সম্পর্ক এগিয়ে নিয়ে গিয়েছেন তিনি। ক্যামেরার সামনে তা স্বীকারও করেছেন।

২০০০ সালে মাত্র ২৫ বছর বয়সে তিনি রেনে নামে এক শিশুকে দত্তক নেন। পরে ২০১০ সালে আরও এক শিশুকে দত্তক নেন তিনি। নাম রাখেন আলিশা।

সুস্মিতার প্রাক্তন প্রেমিক রোহমানের সঙ্গে রেনে আর আলিশার সম্পর্ক খুব ভাল ছিল। মাঝেমাঝেই চারজন পাড়ি দিতেন একসঙ্গে ছুটি কাটাতে। নেটমাধ্যমেও দেখতে পাওয়া যেত তাদের ঘুরতে যাওয়ার ছবি।

পরম যত্নে দুই মেয়েকেই বড় করে তুলছেন তিনি। দুই মেয়ের সঙ্গে নিজের ছবিতে ভরে থাকে সুস্মিতার প্রোফাইল।

সম্প্রতি ছোট ছবি দিয়ে বলিউডে ক্যারিয়ার শুরু করেছেন সুস্মিতার বড় মেয়ে রেনে। শেষ বার ‘আরিয়া’ ওয়েবসিরিজের দ্বিতীয় সংস্করণে দেখা গিয়েছিল সুস্মিতাকে।

কয়েক দিন আগেই সুস্মিতা জানিয়েছিলেন, জীবনে কয়েকবার তার বিয়ে হয়ে যাওয়ার মতো পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। কিন্তু শেষ মুহূর্তে সিদ্ধান্ত বদলেছেন। তিনি জানিয়েছিলেন, ওগুলোই তার জীবনের সবচেয়ে সঠিক সিদ্ধান্ত।

রোহমানের সঙ্গে বিচ্ছেদের কয়েক দিনের মধ্যে ফের সম্পর্কে জড়ালেন অভিনেত্রী। ললিত মোদী ছবি শেয়ার করে নিজেদের সম্পর্কের কথা ঘোযণা করলেও সুস্মিতার পক্ষ থেকে এখনও পর্যন্ত কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

বিডি প্রতিদিন/কালাম

সর্বশেষ খবর